২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

স্কুল ভবন পরিত্যক্ত গাছতলায় পাঠদান

প্রকাশিত : ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল, ৬ সেপ্টেম্বর ॥ বিদ্যালয় ভবনটির প্রতিটি কক্ষের ছাদের পলেস্তরা (প্লাস্টার) খসে ভিমে রড মরিচা ধরে গেছে। ফাটল ধরে খসে পড়ছে প্রতিটি দেয়ালের ইট। ভেঙ্গে গেছে ভবনের দরজা-জানালা। বিভিন্ন স্থান ফুটো হওয়ায় সামান্য বৃষ্টি নামলেই ছাদ চুয়ে পানি পড়ে। কক্ষের মেঝে পলেস্তারার কোন চিহ্ন নেই। শ্রেণীকক্ষে ঢুকতে ও বের হতে দরজার প্রয়োজন হয় না শিক্ষার্থীদের। ভাঙ্গা দেয়ালের ফাঁক দিয়েই চলে যাতায়াত।

জানা গেছে, বিদ্যালয়ের কার্যালয়সহ চারটি কক্ষ সম্পূর্ণ ব্যবহার অনুপযোগী ও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ২০১৩ সালে ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন। ফলে ঝুঁকি এড়াতে ওই ভবন পরিহার করে ক্লাস চলে এখন গাছতলায়। সখীপুর উপজেলার কাঁকড়াজান ইউনিয়নের ইন্দারজানী গ্রামের ‘হাজী আজাহার আলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের’ করুণ চিত্র এটি।

পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র মাসুদ রানা জানায়, কয়েক মাস পরই তাদের সমাপনী পরীক্ষা। ভবন না থাকায় তাদের নিয়মিত ক্লাস হচ্ছে না। ঝড়-বৃষ্টির ভয়ে আকাশে মেঘ জমলেই দৌড়ে নিরাপদে বাড়ি চলে যায়। ফলে পড়াশোনার ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে তাদের। অভিভাবক প্রতিনিধি সদস্য সেলিনা আক্তার (দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী আরজিনার মা) জানান, মেয়েকে বিদ্যালয়ে পাঠিয়ে আতঙ্কে থাকি, কখন ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়। আকাশে মেঘ দেখলেই দৌড়ে মেয়েকে নিতে স্কুলে চলে আসি। প্রধান শিক্ষক ডিএমএ সামাদ বলেন, বিদ্যালয়ের একমাত্র ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণার দুই বছরেও নতুন কোন ভবন পাইনি। এ বিষয়ে সখীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমিনুল হক বলেন, ভবনটির অবস্থা খুবই জরাজীর্ণ। পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৭/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: