মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

কেন হত্যা রোধ করা যাচ্ছে না?

প্রকাশিত : ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে নিয়মিত বিরতিতে একের পর এক খুন হচ্ছেন ব্লগাররা। দুয়েকজন সন্দেহভাজন উগ্রপন্থী ধরা পড়লেও মৃত্যুমিছিল থামানো যাচ্ছে না। কেন? সেদিন নিহত হলেন মুক্তমনা লেখক, গণজাগরণ মঞ্চকর্মী ও শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র শাহরিয়ার মজুমদার। ব্লগার অভিজিত রায় হত্যার প্রতিবাদে ব্লগার এ্যান্ড অনলাইন এ্যাক্টিভিস্ট সিলেট, আয়োজিত মিছিলে অংশ নেয়ার পর থেকেই অজ্ঞাত একটি মহল তাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে যাচ্ছিল। কিছুদিন আগে তাকে কাফনের কাপড় ও এর সঙ্গে একটি চিরকুট পাঠিয়ে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। রাজিব, দীপ, অভিজিত, ওয়াশিকুর, অনন্তবিজয়, নিলয়ের পর এই তালিকায় যুক্ত হলো শাহরিয়ার। এদের সবার মতো মৌলবাদের বিরুদ্ধে যুক্তি ও বিজ্ঞানকে সমর্থন করতেন শাহরিয়ার। এ কারণেই হয়তো মৌলবাদীদের শিকার হতে হলো তাকে। বৃহস্পতিবার রাতে মেস থেকে শাহরিয়ারের লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ এটা আত্মহত্যা বললেও এই বক্তব্য কেউ গ্রহণ করেনি। মরদেহ উদ্ধারের পর থেকে নানা প্রশ্ন উঠেছে। শাহরিয়ারের বন্ধুদের দাবি, এটা আত্মহত্যা নয়, হত্যা। একই দাবি সিলেট গণজাগরণ মঞ্চেরও।

ব্লগার বা অনলাইন এ্যাক্টিভিস্টরা দেশব্যাপী আলোচনায় আসে ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আটক কাদের মোল্লার বিচারে ফাঁসির রায় না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ ব্লগাররা শাহবাগে একত্রিত হয়ে প্রতিবাদ করেন। পরে সেটি অভূতপূর্ব গণজাগরণে রূপ নেয়। শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ ইতিহাস সৃষ্টি করে। সে সময়েই মৌলবাদী ও স্বাধীনতাবিরোধী চক্র স্বাধীন মত প্রকাশকারীদের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাতে শুরু করে। মৌলবাদীরা পরিস্থিতি এমন ঘোলাটে করে যে, ব্লগার মানেই নাস্তিকÑ এমন ধারণা ধর্মভীরু মানুষের মাঝে ছড়াতে থাকে। তারা এক সময় ‘নাস্তিক তালিকা’ তৈরি করে হত্যার মিশনে নামে। তালিকা ধরে ধরে একের পর এক ব্লগারকে তারা হত্যা করতে থাকে। তালিকায় নতুন নাম যোগ করছে। তারা থেমে নেই। তালিকার বাইরেও শাহরিয়ারদের মতো মুক্তমনাদের কখনও প্রকাশ্যে কখনও গোপনে হত্যা করছে। তালিকায় থাকা অনেকেই আছেন আতঙ্কে। কেউ কেউ সরকারের কাছে নিরাপত্তাও চেয়েছেন।

মৌলবাদ-জঙ্গীবাদ দমনে সচেষ্ট বর্তমান সরকার। দেশী-বিদেশী সব পর্যায়েই সত্যটি প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু মুক্তমনা ব্লগারদের হত্যা ও তাদের ওপর আক্রমণ যেন রোধ করা যাচ্ছে না। কেন এই হত্যা ঠেকানো যাচ্ছে না! ১০ বছরের বেশি সময় অতিবাহিত হয়ে গেল হুমায়ুন আজাদের ওপর হামলাকারীদের বিচার শেষ হয় না। সাম্প্রতিক সময়ে ধারাবাহিকভাবে মুক্তমনা ব্লগারদের হত্যা তদন্ত কেন ঢিমেতালে চলছে, অপরাধীরা কেন ধরা পড়ছে নাÑ সরকারকে বিষয়গুলো আরও গভীরভাবে ভাবতে হবে। এমন একটি কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার যাতে স্বাধীন মত প্রকাশকারী ব্লগারদের ওপর সুপরিকল্পিত আক্রমণের হোতাদের শনাক্ত করা সম্ভব হয় এবং তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা যায়। শাহরিয়ারের মৃত্যুরহস্য যত দ্রুত সম্ভব উদ্ঘাটন করা হোক।

প্রকাশিত : ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৭/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: