মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

হবিগঞ্জে বখাটে চক্রকে গ্রেফতারের দাবীতে মানব বন্ধন

প্রকাশিত : ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ০৩:৫৭ পি. এম.
হবিগঞ্জে বখাটে চক্রকে গ্রেফতারের দাবীতে মানব বন্ধন

নিজস্ব সংবাদদাতা,হবিগঞ্জ॥ হবিগঞ্জ শহরে প্রকাশ্যে স্কুল ছাত্রী উত্যক্তের ঘটনায় মূল হোতা এক বখাটে আটক হলেও ভিডিও চিত্র ফেইস বুকে ছড়িয়ে দেয়ার সাথে জড়িতরা এখনও গ্রেফতার না হওয়ায় এবার আন্দোলনে নেমেছে খোদ নির্যাতিত ছাত্রীর প্রতিষ্ঠান। রবিবার সকাল ১১ টায় হবিগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ব্যানারে সরকারী মহিলা কলেজের সম্মুখস্থ সড়কে ঘন্টা ব্যাপী এক বিশাল মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সংহতি প্রকাশ করে হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, হবিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের শত শত ছাত্রছাত্রী এবং বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সহ কয়েক হাজার সাধারন মানুষ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নির্যাতিত প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষিকা শামীম আরা চৌধুরী, সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ নাজমুল হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি সৈয়দ কামরুল হাসান, জেলা কমিউনিষ্ট পার্টী সেক্রেটারী পিযুষ চক্রবর্তী, জেলা বাসদ সমন্বয়ক কমরেড হুমায়ূন খান, হবিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ আবু লেইস, হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শরীফ হোসেন , উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক এ কে এম রেজাউল করিম ও শামছুর জামান মাসুদ সহ বেশ কয়েকজন ছাত্রছাত্রী প্রমুখ। মানব বন্ধন শেষে সমাবেশে বক্তারা, স্কুল ছাত্রী লাঞ্চিতের ঘটনায় মূল হোতা বখাটেকে জনতার সহায়তায় আটক করায় হবিগঞ্জের এসপি জয়দেব কুমার ভদ্রকে ধন্যবাদ জানান। সেই সাথে সম্প্রতি হবিগঞ্জ শহরের বি, কে, জি, সি গভঃ গালর্স হাই স্কুল, বৃন্দাবন কলেজ ক্যান্টিং, মুসলিম কোয়ার্টারস্থ তিন কোনা পুকুর পাড়, পি টি টি আই সড়ক, উচ্চ বালিক-বালিকা বিদ্যালয় ও মহিলা কলেজ, শশ্মান ঘাট সহ আরও কয়েকটি চিন্থিত এলাকায় ইভটিজিংয়ের মাত্রা বেড়ে যাবার পরও সদর থানা পুলিশের যথাযথ দায়িত্ব না পালন করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, শহরে মা-বোনদের স্বাভাবিক চলাফেরা ও ছাত্রীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসা-যাওয়ায় সুচিন্তিত পদক্ষেপ ও নিরাপত্তা প্রশাসনকেই দিতে হবে। শুধু তাই নয়, জনতার সহায়তায় এক বখাটে আইনের আওতায় আসলেও ভিডিও চিত্র ফেইস বুকে ছড়িয়ে দেয়ার সাথে জড়িত চক্রটিকে অবিলম্বে গ্রেফতার করেতে হবে। নয়তো ওই ঘটনায় জেগে উঠা আন্দোলনের দাবী যেমন পুরোপুরি সফল হবে না তেমনি বখাটেরাও এই ঘৃন্য পথে ঠেকেই যাবে। এদিকে কর্মসূচী পালন শেষে সাংবাদিকদের নিকট ওই নির্যাতিত ছাত্রীর বাবা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন এবং সেই সাথে অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়ে লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনায় দায়েকৃত মামলা তুলে নিতে তাকে বিভিন্ন প্রভাবশালী লোকজন ভয়-ভীতি প্রদর্শন করছেন। এছাড়া তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে এও বলেন, উক্ত ঘটনার জড়িত মূল বখাটে বিভিন্ন শ্রেনীতে একাধিকবার ফেল করে এখন ৯ম শ্রেনীতে পড়ছে। ফলে তার বয়স নাকি ১৮ উপরে হবে। অথচ এই বখাটের বয়স কম দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

প্রকাশিত : ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ০৩:৫৭ পি. এম.

০৬/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: