১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কমছে ইউরো অঞ্চলের বেকারত্ব


ইউরো অঞ্চলের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। এরই প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে অঞ্চলটির শ্রমবাজারেও। বেকারত্বের হার কমে দাঁড়িয়েছে ১০ দশমিক ৯ শতাংশে। ইউরো অঞ্চলে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা ২ লাখ ১৩ হাজার কমায় ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারির পর বেকারত্বের হার সর্বনিম্নে ঠেকেছে। কিন্তু তারপরেও এই অঞ্চলের শ্রমবাজারে এখনও ১ কোটি ৭৫ লাখ মানুষ কর্মহীন অবস্থায় রয়েছে। তা সত্ত্বেও যেভাবে শ্রমবাজারে মানুষ যুক্ত হচ্ছে, তা অর্থনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়ানোরই ইঙ্গিত বহন করছে। স্পেনে বেকারত্বের হার কমে ২৪ দশমিক ৩ থেকে ২২ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। গ্রিস, পর্তুগাল এবং আয়ারল্যান্ডে বেকারত্বের হার গত বছরের চেয়ে প্রায় ২ শতাংশীয় পয়েন্ট করে কমে যথাক্রমে ২৫, ১২ দশমিক ১ ও ৯ দশমিক ৫ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। ইতালির বেকারত্বের হারও অপ্রত্যাশিতভাবে কমে ১২ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। ইউরো অঞ্চলের বেশিরভাগ দেশেই বেকারত্বের হার কমেছে যা এই অঞ্চলের অর্থনীতির জন্য আশাব্যঞ্জক।

ঝুঁকিতে মার্কিন প্রবৃদ্ধি

মার্কিন অর্থনীতিতে আবারও কালোছায়া উঁকি দিচ্ছে। দেশটির কারখানা কার্যক্রম বিগত দুই বছরের মধ্যে সবচেয়ে শ্লথ গতিতে এগোচ্ছে।

ইনস্টিটিউট ফর সাপ্লাই ম্যানেজমেন্ট (আইএসএম) জানিয়েছে, আগস্টে তাদের জাতীয় কারখানা কার্যক্রম সূচক কমে দাঁড়িয়েছে ৫১ দশমিক ১ পয়েন্টে। এ হার ২০১৩ সালের মে মাসের পর সর্বনিম্ন। জুলাইয়ে সূচকটি ছিল ৫২ দশমিক ৭ পয়েন্টে।

এভাবেই কমছে কারখানা কার্যক্রমের সূচক। কারখানা তথা ম্যানুফ্যাকচারিং খাতের এই কমে যাওয়া দেশটির প্রবৃদ্ধিকে ঝুঁকির মুখে ফেলে দিতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা।

কেননা, দেশটির অর্থনীতির ১২ শতাংশই হলো কারখানা কার্যক্রম তথা ম্যানুফ্যাকচারিং খাত। এখন কারখানা কার্যক্রমের এই শ্লথ গতির পেছনে ডলারের মান বৃদ্ধি এবং জ্বালানি খাতের ব্যয় সংকোচন নীতি গ্রহণকে দায়ী করছেন তারা।

এই শ্লথ গতি ফেডারেল রিজার্ভের সুদের হার বৃদ্ধির যে সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে, তাতে প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়াতে পারে। সবচেয়ে বড় কথা, ঝুঁকির মুখে পড়ে যেতে পারে মার্কিন প্রবৃদ্ধি।

অর্থনীতি ডেস্ক