২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দেশকে আরও এগিয়ে নেব


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইন্টারনেট সব মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য শনিবার থেকে সারাদেশে একযোগে শুরু হয়েছে ‘বাংলাদেশ ইন্টারনেট উইক’। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার বিকেল পৌনে ছয়টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ‘বাংলাদেশ ইন্টারনেট উইক’-এর উদ্বোধন করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে বাংলাদেশ আরও এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তাঁর সরকারই প্রথম ইন্টারনেট সেবা সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছে। এ সময় দেশের ঘরে ঘরে তথ্যপ্রযুক্তির সেবা পৌঁছে দেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে দেশকে উন্নতির পথে নিয়ে যাব। তবে একটি জিনিস খেয়াল রাখতে হবে, এর অপব্যবহারের মাধ্যমে যেন দেশে সামাজিক অবক্ষয় না হয়। ইন্টারনেটের কোনরকম অপব্যবহার যেন না হয় সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে। ইন্টারনেটের দাম জনগণের নাগালের মধ্যে নিয়ে আসতে দাম কমানো হয়েছে। মোবাইল অপারেটরগুলোকে আহ্বান জানাই তারাও যেন গ্রাহক পর্যায়ে দাম কমিয়ে আনতে কার্যকর ভূমিকা নেয়।

ইন্টারনেট উইক উপলক্ষে রাজধানীর বনানী সোসাইটি মাঠে আয়োজিত কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানে নানা আয়োজন ছিল। শনিবার রাত ৮টায় বনানী মাঠে ছিল ‘মিট দ্য ইয়ুথ’ অনুষ্ঠান। এখানে তরুণদের ইন্টারনেটভিত্তিক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

ইন্টারনেট উইকে অংশ নিচ্ছে ই-কমার্স, ওয়েবপোর্টাল, মোবাইল এ্যাপ্লিকেশনসহ সারাদেশের স্থানীয় মোবাইলভিত্তিক বিভিন্ন উদ্যোগ। সপ্তাহজুড়ে এসব উদ্যোগের প্রচার ও প্রদর্শন করা হবে। দর্শনার্থীরা এসব সেবা গ্রহণের প্রক্রিয়া সরাসরি দেখতে ও জানতে পারবেন। এছাড়া সপ্তাহ উপলক্ষে দেশের অর্ধশত বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মশালা, সেমিনারের আয়োজনের পাশাপাশি সংবাদ মাধ্যমে সাতটি পলিসি বৈঠকের আয়োজন করা হবে।

ইন্টারনেট উইক উৎসবের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস), গ্রামীণফোন এবং সরকারের আইসিটি বিভাগ।

শনিবার থেকে ৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর বনানী মাঠ, ৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীর নানকিন বাজার ও ১১ সেপ্টেম্বর সিলেটের সিটি ইনডোর স্টেডিয়ামে ইন্টারনেট উইক আয়োজন করা হয়েছে। ইন্টারনেটের প্রচার, প্রসার ও ইন্টারনেটের সুফলগুলো সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরতে ১১ সেপ্টেম্বর ৪৮৭টি উপজেলায় একটি করে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: