মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বরিশালে কৃষকের রঙ্গিণ স্বপ্ন এখন পানির নিচে

প্রকাশিত : ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ০৩:৩৫ পি. এম.
বরিশালে কৃষকের রঙ্গিণ স্বপ্ন এখন পানির নিচে

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ জোয়ারের পানি বৃদ্ধি আর অতিবর্ষণে জেলার ৫২ হাজার ৭৩৫ হেক্টর জমির পাকা আউশ ধান গত এক সপ্তাহ ধরে এক থেকে দুই ফুট পর্যন্ত পানির নিচে তলিয়ে রয়েছে। পানির নিচে ধানের গোছা এলোমেলো থাকায় কৃষকেরা পাকা ধান কর্তন করতে পারছেন না। ফলে পাকা ধানে পচন ধরতে শুরু করেছে। যেকারণে এবার কৃষকের পাকা আউশ ধান ঘরে তোলার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, চলতি আউশ আবাদ মৌসুমের শুরুতে কৃষকদের খরাার কবলে পড়তে হয়েছে। পরবর্তীতে বীজতলা তৈরির পর পরই কৃত্রিম বন্যায় অধিকাংশ বীজতলা নষ্ট হয়ে যাওয়ায় জমি আবাদযোগ্য করার পরেও আউশ চাষে বিলম্ব হয়। যেকারণে জেলার দশটি উপজেলায় আউশ চাষের ২ লাখ ৩৫ হাজার ৯৭০ হেক্টর জমির লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে আবাদ হয়েছে ২ লাখ ৭ হাজার ৫৬০ হেক্টর জমিতে। কৃষকদের জমি আবাদের সকল প্রস্তুতি থাকা সত্বেও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২৮ হাজার ৪১০ হেক্টর জমিতে আবাদ কম হয়েছে।

জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলা সদরের আউশ চাষী নুরুল ইসলাম মুন্সি বলেন, বিপর্যয়ের অনেক ধকল সয়ে পাকা ধান ঘরে তোলায় আশায় ছিলাম। কিন্তু দীর্ঘ ৬/৭ দিন ধরে পাকা আউশ ধান পানির নিচে তলিয়ে থাকায় ইতোমধ্যে নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছে। কীর্ত্তিপাশা এলাকার চাষী হেমায়েত হাওলাদার বলেন, এনজিওসহ বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে ঋণনিয়ে আউশ আবাদ করেছিলাম। গত কয়েকদিনের প্রবল বর্ষণ ও জোয়ারের পানিতে পাকা ও আধাপাকা আউশ ধান পানির নিচে তলিয়ে থাকায় আমিসহ অন্যান্য চাষীদের এখন পথে বসার উপক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক আব্দুল আজিজ ফরাজী জানান, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের শিকার আউশ চাষীদের সাথে কৃষি কর্মকর্তারা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

প্রকাশিত : ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ০৩:৩৫ পি. এম.

০৫/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: