১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বেনাপোলে বিজিবি চোরাচালানী সংঘর্ষ, আহত ৮


স্টাফ রিপোর্টার, বেনাপোল ॥ বেনাপোল রেলস্টেশন এলাকায় চোরাচালান পণ্য আটককে কেন্দ্র করে বিজিবি ও চোরাচালানীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে যশোর ২৬ বিজিবির বেনাপোল ক্যাম্পের হাবিলদার নাইমুল ইসলাম বাদী হয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় রেলস্টেশনের পাশে ভবারবেড় গ্রামের ২৭ জনের নাম উল্লেখসহ আরও ২০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। পুলিশ কোন আসামিকে আটক করতে পারেনি। বিজিবি-চোরাকারবারীদের সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা হওয়ায় আতঙ্কিত হয়ে ইতোমধ্যে এলাকা পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে। বিজিবি টহল অব্যাহত রেখেছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, বুধবার বিকেলে বেনাপোলের ভবারবেড় গ্রামে একদল চোরাকারবারীকে ধাওয়া করে বিজিবি। এ সময় বিজিবি সদস্যরা চোরাকারবারীদের কিছু মালামাল আটক করলে তাদের সঙ্গে বিজিবি সদস্যদের হাতাহাতি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে এবং বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে চোরাচালানীদের সংঘর্ষ বাঁধে। চলে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া। এ সময় এলাকাজুড়ে আতঙ্ক ও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে চোরাকারবারীদের নিক্ষেপ করা পাথরের আঘাতে বিজিবি সদস্য হাবিলদার নাইমুল ইসলাম আহত হয়। পরে বিজিবি বেশি সদস্য নিয়ে চোরাকারবারীদের ধরতে ওই গ্রামে অভিযান চালায়। এতে বিজিবির হামলায় ভবারবেড় গ্রামের আব্দুর রউফ, তুষার ও বাবুসহ ৮ জন আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়। সন্ধ্যার দিকে যশোর ২৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল জাহাঙ্গীর হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বেনাপোল পৌরসভার ভবারবেড় গ্রাম ওয়ার্ড পৌর কমিশনার জোছনা বেগম জানান, চোরাচালানীদের আটক করতে ব্যর্থ হয়ে বিজিবি সদস্যরা নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর আক্রমণ করে তাদের আহত করেছে।

এ ব্যাপারে ২৬ ব্যাটালিয়ন বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, চোরাকারবারীরা বিজিবি সদস্যদের ওপর হামলা করে আটক চোরাইপণ্য ছিনিয়ে নিয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের আসামি করে মামলা করা হয়েছে। এক্ষেত্রে কোন নিরাপরাধ মানুষ হয়রানীর শিকার হবে না বলে জানান তিনি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: