২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

কিশোরগঞ্জে শিশু গৃহপরিচারিকার লাশ নিয়ে বিক্ষোভ


নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ, ৩ সেপ্টেম্বর ॥ ঢাকায় গৃহকর্তার বাসায় কিশোরগঞ্জের মেয়ে তাহমিনা আক্তারকে (১৪) নির্যাতন করে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। সে সদর উপজেলার ছয়না গ্রামের রিক্সাচালক আঃ গফুরের মেয়ে। বৃহস্পতিবার বিকেলে এ হত্যাকা-ে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী মেয়েটির লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। তারা চার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় বক্তৃতা করেন মানবাধিকারকর্মী এ্যাডভোকেট এনামুল হক, এ্যাডভোকেট হামিদা বেগম, জেলা মহিলা পরিষদের সভানেত্রী সুলতানা রাজিয়া, নারী নেত্রী বিলকিস বেগমসহ অন্যরা। পরে জেলা প্রশাসকের আশ্বাস পেয়ে লাশ নিয়ে বাড়ি ফিরে যায় স্বজন ও এলাকাবাসী। সন্ধ্যায় মেয়েটির লাশ গ্রামের বাড়িতে জানাজা শেষে দাফন করা হয়েছে। এর আগে বুধবার গভীর রাতে ময়নাতদন্ত শেষে পুলিশ নিহত মেয়েটির লাশ স্বজনদের হস্তান্তর করে।

নিহতের বাবা জয়নাল আবেদিন জানান, প্রায় ৭ মাস আগে মাসিক ২ হাজার টাকা বেতনে তার মেয়েকে ঢাকার মিরপুর এলাকার বাসিন্দা মামুন ওরফে মোঃ লিটন নামের এক আইনজীবীর বাসায় কাজ করতে দেন। অভাবের তাড়নায় পাশের গ্রামের এক নারীর মাধ্যমে মেয়েটিকে ওই বাসায় দিয়েছিলেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত তাকে কোন বেতন দেয়া হয়নি। বিভিন্ন সময় বেতন চাইলেই তার মেয়েকে নির্যাতন করা হতো। তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, তার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে। এ ব্যাপারে মিরপুর থানায় মামলা করতে চাইলেও পুলিশ তা নেয়নি। পরে তাকে দিয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা করানো হয়।

স্বজনদের অভিযোগ, লাশ আনতে গৃহকর্তার বাসায় গেলেও তারা লাশ ফেলে আগেই পালিয়ে যায়। তারা এখন পর্যন্ত পরিবারটির সঙ্গে কোন ধরনের যোগাযোগ করেনি। ফোন করলেও ফোনকল কেটে দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: