মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বড় হারেও তৃপ্ত বাংলাদেশ

প্রকাশিত : ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কথার ঝাঁজ বেশ ভালই ছিল মামুনুলদের। কিন্তু ময়দানী লড়াইয়ে সেই ঝাঁজের ছিটেফোঁটাও দেখা যায়নি। যার পরিণামও হয়েছে ভয়াবহ! বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবলে এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে নেমে রীতিমতো খাবি খেয়েছে বাংলাদেশ। পার্থে বৃহস্পতিবার বিকেলে এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৫-০ গোলে হেরেছে সফরকারী বাংলাদেশ।

পার্থ ওভাল স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরু থেকেই বাংলাদেশকে নিয়ে ছেলে খেলায় মত্ত হয় সর্বশেষ তিন বিশ্বকাপে খেলা অস্ট্রেলিয়া। যার ফলশ্রুতিতে ম্যাচের প্রথম ২৯ মিনিটেই চার গোল আদায় করে নেয় সকারুরা। প্রতিরোধ গড়ার স্বপ্ন মূলত তখনই শেষ হয়ে যায় মামুনুল, হেমন্ত, জাহিদ, লিঙ্কনদের। বড় হারের পরও এই ম্যাচ থেকে প্রাপ্তির অনেক দিক দেখছেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা। এই প্রথম অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলল বাংলাদেশ। যে দলটি খেলেছে সর্বশেষ তিন বিশ্বকাপ। বর্তমানে এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন। শুধু তাই নয়, বিশ্ব ফুটবলেও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে সকারুরা। কোন দলই এখন অস্ট্রেলিয়াকে সহজভাবে নেয় না।

শক্তিধর এই দলের বিপক্ষে শুরুর দিকে খেই হারিয়ে ফেললেও শেষদিকে একেবারে মন্দ করেননি লোডফিক ডি ক্রুইফের দল। প্রথম আধাঘণ্টায় এক হালি গোল হজম করার পর শেষ এক ঘণ্টায় স্বাগতিকরা বাংলাদেশের গোলপোস্ট খুঁজে পেয়েছে মাত্র একবার। শেষ ও পঞ্চম গোলটি অস্ট্রেলিয়া পায় ম্যাচের ৬১ মিনিটে। এরপর বাকি প্রায় আধাঘণ্টাতেও আর গোল পায়নি সকারুরা। ম্যাচে বড় ব্যবধানে হারলেও এই দিকগুলোকেই ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন ফুটবলবোদ্ধারা।

ম্যাচের প্রথমার্ধে ন্যূনতম প্রতিরোধও গড়তে পারেনি বাংলাদেশের রক্ষণভাগ। রক্ষণাত্মক কৌশল নিয়েই পুরো ম্যাচটি খেলে সফরকারীরা। বলের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখে দুই মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে বাংলাদেশকে কোণঠাসা করে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। ডিফেন্ডারদের ব্যর্থতায় ষষ্ঠ মিনিটে ডানদিক থেকে কোনাকুনি শটে সকারুদের হয়ে প্রথম গোল করেন ম্যাথু লেকি। দুই মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন টম রোজিচ। ডি বক্সের মধ্য থেকে নেয়া টমের শট বাংলাদেশের এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে প্রবেশ করে।

২০ মিনিটে বাংলাদেশের রক্ষণভাগ ব্যর্থতার আরও একটি নিদর্শন রাখে। টম রোজিচের শট বিপদমুক্ত করতে যান ডিফেন্ডার তপু বর্মন। কিন্তু শটটি তার গায়ে লেগে দিক পাল্টে গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেলকে ফাঁকি দিয়ে বল জালে জড়ায় (৩-০)। আত্মঘাতী এই গোল হজমের পর ২৯ মিনিটে চার নম্বর গোল পায় এ্যাঞ্জে পোস্টেকোগলুর দল। এক খেলোয়াড়ের হেড পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হন গোলরক্ষক সোহেল। ফিরতি শটে তাকে পরাস্ত করে জাল খুঁজে পান নাথান বার্নস।

চার গোল খেয়ে বিরতিতে যাওয়া বাংলাদেশ বিরতির পর কিছুটা খোলস ছাড়ার চেষ্টা করে। এই অর্ধে মাত্র এক গোল হজম করে অতিথিরা। ৬১ মিনিটে পাঁচ ও শেষ গোল পায় অস্ট্রেলিয়া। ম্যাথু স্প্রিনাভিচের বাড়ানো বলে বক্সের বাইরে থেকে নিখুঁত শটে গোল করেন অ্যারন মুই। বাকি আরও কয়েকটি সহজ প্রচেষ্টা ব্যর্থ হলে পাঁচ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে অস্ট্রেলিয়া। এই হারে ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে এখন পর্যন্ত জয়ের মুখ দেখতে পারল না বাংলাদেশ। ‘বি’ গ্রুপে আগের দুই ম্যাচে কিরগিজস্তানের কাছে ৩-১ গোলে হারের পর তাজিকিস্তানের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে লাল-সবুজের এই দেশ।

অস্ট্রেলিয়ার এটি টানা দ্বিতীয় জয়। কিরগিজস্তানকে ২-১ গোলে হারিয়ে বাছাই পর্ব শুরু করা অসিরা ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে পৌঁছে গেছে।

প্রকাশিত : ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৪/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: