১৭ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ২ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ঝিনাইদহে ক্লিনিকে এক মাসে চার প্রসূতির মৃত্যু ॥ আশঙ্কাজনক ৫


নিজস্ব সংবাদদাতা, ঝিনাইদহ, ২ সেপ্টেম্বর ॥ মহেশপুর জননী ক্লিনিকে এক মাসেই সিজার করা ৪ প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে। মুমূর্ষু অবস্থায় রয়েছেন সিজার করা আরও ৫ প্রসূতি। এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজনের মধ্যে চমর ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। অবস্থা বেগতিক দেখে ক্লিনিক মালিক, ডাক্তার, নার্স ও কর্মচারীরা ক্লিনিকটি তালাবদ্ধ করে পালিয়ে গেছে। একের পর এক প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনায় বুধবার সিভিল সার্জনকে প্রধান করে ৩ সদস্যবিশিষ্ট একটি বিশেষজ্ঞ তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার এ বিশেষজ্ঞ টিম এলাকা পরিদর্শন করবে বলে জানা গেছে।

সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, মহেশপুর উপজেলা শহর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূর ভৈরবা বাজারে জননী ক্লিনিক। আগস্ট মাসেই এ ক্লিনিকে মারা গেছে সিজার করা ৪ প্রসূতি। এদের মধ্যে মহেশপুর উপজেলার বালিনগর গ্রামের আবু বকরের মেয়ে রূপা খাতুন, ভৈরবা গ্রামের আশা মোল্লার মেয়ে আরিফা খাতুন যশোর সদর হাসপাতালে, সাতপোতা গ্রামের আশা আহম্মেদের মেয়ে সালেহা খাতুন যশোর কুইন্স হাসপাতালে ও কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের নাজমুল ইসলামের স্ত্রী বিথি খাতুন খুলনা মেডিক্যালে মারা গেছেন। এছাড়া এখনও মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন যশোর কুইন্স হাসপাতালে পাঁচপোতা গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী খাইরুননেছা, একই গ্রামের আশাদুলের মেয়ে হানিফা, হুদোপাড়ার আনিচুরের স্ত্রী নার্গিস, যশোর একতা হাসপাতালে রুলী গ্রামের সোহাব আলীর মেয়ে মর্জিনা খাতুন ও মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শ্রীপুর গ্রামের ওয়াজ্জেল হোসেনের মেয়ে মানিফা।

সিজার করার পর এদের সবাই মাথা যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকে। পরে বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়ার পর তারা মারা যায়।

বর্তমানে ক্লিনিক এলাকায় লোকজনের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। সকালে এলাকার লোকজন দোষীদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। অবস্থা বেগতিক দেখে ক্লিনিক মালিক খোকন, ডাক্তার, নার্স ও কর্মচারীরা ক্লিনিকে তালা লাগিয়ে পালিয়ে গেছে।

এ ঘটনায় সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুস সালামকে প্রধান করে গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাঃ এমদাদুল হক ও সার্জারি বিশেষজ্ঞ ডাঃ জাহিদুর রহমানসহ ৩ সদস্যবিশিষ্ট একটি বিশেষজ্ঞ তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। দ্রুত তাঁরা প্রতিবেদন দিবেন বলে জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ড ভার্সিটিতে সেমিনার

ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের ইলেকট্রিক্যাল এ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এবং আইইইই স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চের উদ্যোগে সম্প্রতি এক সেমিনার বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইউনিভার্সিটি অব সাউদাম্পটন, ইউকে হতে পিএইচডি অর্জনকারী শেখর মাহমুদ। প্রবন্ধের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে দূষিত তেল ট্রান্সফরমারের দক্ষতা বিনষ্ট করে। উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম নুরুল ইসলাম এবং বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য সচিব ড. মুশফিক এম চৌধুরী। সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ড. আমানউল্লা চৌধুরী। -বিজ্ঞপ্তি

মানারাত ভার্সিটিতে সেমিনার

সোমবার মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ফার্মেসি বিভাগের উদ্যোগে “প্রফেশনাল আসপেক্টস অব ফার্মেসি ইন বাংলাদেশ” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. চৌধুরী মাহমুদ হাসান।

ফার্মেসি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. নুরুন নাহার রহমানের সভাপতিত্বে মূল বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউনিমেড এবং ইউনিহেলথ ম্যানুফ্যাকচারারস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোসাদ্দেক হোসাইন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. ইকরাম আলী শেখ। -বিজ্ঞপ্তি