১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ফেনী রেলপথে স্লিপার চুরি


নিজস্ব সংবাদদাতা, ফেনী, ১ সেপ্টেম্বর ॥ পরিত্যক্ত ফেনী বিলোনিয়া রেললাইনের রেল, স্লিপারসহ মূল্যবান জিনিস চুরি হয়ে যাচ্ছে। রক্ষণাবেক্ষণ ও পাহারা না থাকায় মালামাল চুরি অব্যাহত রয়েছে, চুরি বন্ধ করার কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। মালামাল চুরির মামলা দিয়ে সময় পার করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে এ লাইন চালু করার জন্য ভারত-বাংলাদেশ উচ্চ পর্যায়ে চিঠি চালাচালি চলছে। খুব শীঘ্রই ফেনী বিলোনিয়া রেললাইন চালুর জন্য ভারতীয় প্রতিনিধি দল ঢাকায় আসছে বলে সংশিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

ব্রিটিশ আমলে অসম বেঙ্গল রেলওয়ের তত্ত্ব¡াবধানে ১৯২৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর ফেনী বিলোনিয়া রেললাইন চালু করা হয়। ৬৮ বছর পর ১৯৯৭ সালের ১৭ আগস্ট চীফ ট্রাফিক ম্যানেজার (পুব)-এর লিখিত আদেশে বাংলাদেশের অন্য আরও কয়েকটি শাখা রেল পথের সঙ্গে ফেনী বিলোনিয়া শাখা লাইনটি বন্ধ করে দেয়া হয়। ফেনী বিলোনিয়া শাখা লাইনে ২৮ দশমিক ৮ কিলোমিটার রেল পথে ফেনী রেল স্টেশন ছাড়া আটটি রেলস্টেশন রয়েছে। লাইনটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ শাখা লাইনের লোকবলের অনেকে গোল্ডেন হেন্ডশেকে অবসর নেয়, আবার অনেককে মেইন লাইন নিয়ে আসা হয়। পরিত্যক্ত ঘরগুলো মাদক ও অসামাজিক কাজে ব্যবহার হচ্ছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছে।

রেল কর্মকর্তা লাঞ্ছিত ॥ মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী থেকে জানান, কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টারের অফিস কক্ষে রেলওয়ে পাকশীর (উত্তর) সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (এসিও) আব্দুল্লাহ্-আল মামুনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে ও দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে ঈশ্বরদী রেল স্টেশনে প্রতিবাদ র‌্যালি ও মানববন্ধন করা হয়। বাংলাদেশ রেলওয়ে বুকিং সহকারী এ্যাসোসিয়েশন পাকশী শাখার পক্ষ থেকে এসব কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়।

ঘণ্টাকালব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বুকিং সহকারী এ্যাসোসিয়েশনের প্রধান উপদেষ্টা এবিএম আব্দুর রহমান, উপদেষ্টাম-লীর সদস্য তরিকুল ইসলাম, আব্দুল আলিম, সভাপতি আব্দুল মমিন , সহ-সভাপতি তুষাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম, আব্দুল হান্নান, আব্দুল খালেক, সেলিম রেজা।