২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বুদ্ধিস্ট হেরিটেজ কাজে লাগিয়ে পর্যটন খাতকে চাঙ্গা করার সুযোগ আছে


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বুদ্ধিস্ট হেরিটেজকে কাজে লাগিয়ে দেশের পর্যটন খাতকে চাঙ্গা করার যথেষ্ট সুযোগ আছে। এতে বাঙালীর পাঁচ হাজার বছরের ইতিহাস ঐতিহ্যকে ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব বিশ্বব্যাপী।

রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সেমিনারে এমন মতামত প্রকাশ করেন আলোচকরা। বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড আয়োজিত দিনব্যাপী এ সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বেসামরিক ও বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি, সচিব খোরশেদ আলম চৌধুরী, বাংলাদেশ পর্যটন বোর্ডের সিইও আখতারুজ্জামান কবির, বাংলাদেশ পর্যটন বোর্ডের চেয়ারম্যান অপরূপ চৌধুরী এবং পর্যটন বিশেষজ্ঞ ফারুক হাসান বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট কৃষ্টি প্রচার সংঘের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট পিআর বড়ুয়া। বুদ্ধিস্ট পর্যটকদের অনুপ্রাণিত করতে এ অঞ্চলের বিদ্যমান বুদ্ধিস্ট ঐতিহ্য, সংস্কৃতি এবং তীর্থস্থানভিত্তিক টেকসই পর্যটন উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় কর্মশালার আয়োজন করা হয়। প্রধান অতিথি রাশেদ খান মেনন দেশের বুদ্ধিস্ট পর্যটনের ঐতিহাসিক গুরুত্ব ও প্রেক্ষাপট তুলে ধরে বলেন, ধর্ম প্রচারে এ অঞ্চলে গৌতম বুদ্ধ এসেছিলেন এটা সত্য। এ বিষয়টিসহ দেশের গৌরবময় ও ঐতিহাসিক বুদ্ধিস্ট হেরিটেজ সাইটগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ এবং দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের লিভিং হেরিটেজসমূহ বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরা সম্ভব হলে আন্তর্জাতিক বুদ্ধিস্ট সার্কিটের মহাসড়কে সঙ্গে বাংলাদেশ যুক্ত হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হবে । যা দেশের পর্যটন বিকাশে মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, হাজার বছর ধরে অনেক ধর্মের সহাবস্থানের দেশ আমাদের এ বাংলাদেশ। দেশের পর্যটন বিকাশের জন্য বেসরকারী ট্যুরিস্ট অপারেটদের এগিয়ে আসার পাশাপাশি বিদ্যমান অবকাঠামোর উন্নয়ন অপরিহার্য। কর্মশালায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সরকারী বিভাগ ও এজেন্সির কর্মকর্তাবৃন্দ, বেসরকারী পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ, পর্যটন বিশেষজ্ঞ, এনজিও ও আন্তর্জাতিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ, বৌদ্ধ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, প্রতœতত্ত্ববিদ, ঐতিহাসিক এবং সাংবাদিক সমাজের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।