২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

দৌলতপুরে স্কুল ছাত্রীর শ্লীলতাহানির দায়ে শিক্ষকের অপসারন দাবি


নিজস্ব সংবাদদাতা, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ৫ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীর শ্লীলতাহানির দায়ে মফিদুল ইসলাম হিটা নামে এক শিক্ষকের অপসারন দাবিতে স্কুল বন্ধ করে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার পূর্ব তারাগুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। স্কুলের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানান, সোমবার সকাল ৭টার দিকে ওই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মফিদুল ইসলাম হিটা প্রাইভেট পড়ানোর নাম করে ৫ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে বাথরুমে নিয়ে শ্লীলতাহানি করে। এসময় স্কুলের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা তা দেখতে পেলে ওই শিক্ষক তাদের পরীক্ষায় ফেল করানোর হুমকি দিয়ে শ্লীলতাহানির বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। পরে শ্লীলতাহানির শিকার ওই ছাত্রী তার পরিবারের লোকজনকে জানালে একইদিন বিকেলে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি সমঝোতার চেষ্টা করা হয়। পরদিন মঙ্গলবার সকালে ওই স্কুলের সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগন স্কুলে সমবেত হয়ে লম্পট শিক্ষক মফিদুল ইসলাম হিটার অপসারনসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে স্কুল বন্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের খবর পেয়ে দৌলতপুর থানার ওসি (তদন্ত) আসাদুজ্জামান চাকলাদার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। তবে ঘটনার সাথে জড়িত শিক্ষক মফিদুল ইসলাম হিটা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের রোষানল থেকে বাঁচতে গা ঢাকা দিয়েছে বলে ওসি (তদন্ত) আসাদুজ্জামান চাকলাদার জানিয়েছেন। উল্লেখ্য ওই শিক্ষক পরীক্ষায় ফেল করানো হুমকি দিয়ে একাধিক ছাত্রীর শ্লীলতা হানি করেছে বলে শিক্ষার্থী ও অভিববকরা জানিয়েছেন।