১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আয়-ব্যয়ের হিসাব ইসিতে জমা দিয়েছে আওয়ামী লীগ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ দল পরিচালনায় বিগত ১৪ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব ইসিতে জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। সোমবার দলের পক্ষ থেকে দাখিল করা হিসাব বিবরণীতে ব্যয়ের চেয়ে আয়ের পরিমাণ বেশি উল্লেখ করা হয়েছে। বিগত বছরে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আয় হয়েছে ৯ কোটি ৫ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪৩ টাকা। আর ব্যয় হয়েছে ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৪০ হাজার ৮২১ টাকা।

সোমবার দুপুর ১টায় আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ইসি সচিব সিরাজুল ইসলামের কাছে আয়-ব্যয়ের প্রতিবেদন জমা দেন। প্রতিনিধি দলে আরও উপস্থিত ছিলেন উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক এ্যাডভোকেট রিয়াজুল কবির কাওসার ও আইনজীবী এ্যাডভোকেট সাইফুদ্দিন খালিদ।

ইসিতে হিসাব দাখিল শেষে আবদুস সোবহান গোলাপ সাংবাদিকদের বলেন, প্রাথমিক সদস্যদের চাঁদা, এমপিদের চাঁদা, সেন্ট্রাল কমিটির সদস্যের চাঁদা ও বিভিন্ন প্রকাশনা বিক্রি থেকে দলের এ আয় হয়েছে। আর ব্যয় হয়েছে সভা-সেমিনার আয়োজন, সারাদেশের পার্টি অফিসের পরিষেবা, বিল, অফিসের কর্মচারীদের বেতন এবং অঙ্গ সংগঠনের পেছনে খরচসহ বিভিন্ন খাতে।

পরিচয়পত্র নবায়ন ও সংশোধনে আজ থেকে ফি কার্যকর ॥ বিনামূল্যে জাতীয় পরিচয়পত্র ভুল-ত্রুটি সংশোধন, নবায়নের সময়সীমা শেষ হয়েছে। আজ থেকে এ কাজে ফি কার্যকর করা হচ্ছে। ইসি সূত্র জানা গেছে বিভিন্ন কাজে এখন থেকে ১শ’ থেকে ১ হাজার টাকা জমা দিয়ে পরিচয়পত্র নবায়ন, সংশোধন করতে হবে। ইসি জানিয়েছে জাতীয় পরিচয়পত্র বিনামূল্যে সংশোধনের সময় আর বাড়ানো হবে না। নির্বাচন কমিশন সচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেন, বিনামূল্যে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন নবায়নে অন্তত দু’মাস সময় দেয়া হয়েছে। ফি কার্যকরে বিধি মেনে প্রজ্ঞাপন ও গেজেট হয়েছে। বিনামূল্যে সেবার জন্য সময় বাড়ানোর সুযোগ নেই। আজ ১ সেপ্টেম্বর থেকে সংশোধিত লেমিনেটেড কার্ড নিতেও টাকা লাগবে। জরুরী কাজে যে কোন কার্ড প্রয়োজন হলে নির্ধারিত ফি দিয়েই তা নিতে হবে।

তবে জানা গেছে, প্রথমবার ভোটার হওয়ার পর অথবা জাতীয় নিবন্ধন অনুবিভাগে নাম নিবন্ধন হওয়ার পর জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়ার জন্য নাগরিকদের কোন টাকা দিতে হয় না। এ কার্ডের মেয়াদ ১৫ বছর। তবে নতুন নিয়ম অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের পর জাতীয় পরিচয়পত্র নবায়নেও ফি দিতে হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র নবায়নের ফি ঠিক করা হয়েছে ১শ’ টাকা। তবে জরুরীভিত্তিতে নবায়নের জন্য দিতে হবে ১৫০ টাকা। হারিয়ে ফেললে বা নষ্ট হলে নতুন পরিচয়পত্র নিতে সাধারণ সময়ের জন্য প্রথমবার আবেদনে ২শ’ ও জরুরী আবেদনে ৩০০ টাকা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া দ্বিতীয়বার ৩শ’ টাকা (সাধারণ), ৫শ’ টাকা (জরুরী) এবং পরবর্তী যে কোন বার আবেদনে ৫শ’ টাকা (সাধারণ) ও জরুরী সময়ের জন্য এক হাজার টাকা ঠিক করা হয়েছে।

এছাড়া পরিচয়পত্র সংশোধনের ফি প্রথমবার ২শ’ টাকা, দ্বিতীয়বার ৩শ’ টাকা পরে যে কোন বারের জন্য দিতে হবে ৪শ’ টাকা। পরিচয়পত্র তথ্য সংশোধনের জন্য প্রথমবার ১শ’ টাকা, দ্বিতীয়বার ২শ’ টাকা পরে যে কোন বারের জন্য ৩শ’ টাকা দিতে হবে। পরিচয়পত্র হারালে বা নষ্ট হলে বিকল্প পরিচয়পত্র সংগ্রহে নির্বাচন কমিশনের পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগে আবেদন করতে হয়। ফি সোনালী ব্যাংকের যে কোন শাখায় জাতীয় পরিচয়পত্রের ফি এর ১-০৬০১-০০০১-১৮৪৭ কোডে জমা দিতে হবে। অথবা সচিব নির্বাচন কমিশনের অনুকূলে পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফট এর মাধ্যমে জমা দিতে হবে।