১৭ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জাতীয় ঐক্যের ডাক দিলেন মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী


মালয়েশিয়ায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভের প্রেক্ষাপটে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন। একই সঙ্গে তিনি পদত্যাগ করতেও অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। একটি আর্থিক কেলেঙ্কারির ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে শনিবার দেশটিতে দু’দিনব্যাপী এ বিক্ষোভ শুরু হয়। কড়া পুলিশ পাহারার মধ্যে হাজার হাজার লোক বিক্ষোভে অংশ নেয়। তবে পুলিশ তাদের বিক্ষোভে বাধা দেয়নি। যদিও পুলিশের ভাষ্য, বিক্ষোভ অবৈধ। রাজাকের পদত্যাগের দাবিতে রবিবার দ্বিতীয় দিনের মতো বিক্ষোভে উত্তাল ছিল রাজধানী কুয়ালালামপুর। খবর এএফপির

বিদেশী অজ্ঞাত দাতাদের কাছ থেকে নাজিবের ব্যাংক এ্যাকউন্টে ৭০ কোটি মার্কিন ডলার (৪৪ কোটি ৫০ লাখ পাউন্ড) পরিশোধের ঘটনা প্রকাশিত হওয়ার পর বিক্ষোভকারীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। তবে তিনি অর্থ নেয়ার কথা অস্বীকার করে বলেছেন, বিক্ষোভকারীরা মালয়েশিয়ার ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করছে। পুলিশ জানায়, দুই দিনের বিক্ষোভে প্রায় ২৫ হাজার লোক অংশ নেয়। তবে বিক্ষোভের আয়োজক গণতন্ত্রকামী সংগঠন বেরসিহ বলেছে, বিক্ষোভে তিন লাখ লোক অংশ নেয়। বিক্ষোভে মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদও যোগ দেন। মালয়েশিয়ার জাতীয় দিবস উপলক্ষে সোমবার এক ভাষণে রাজাক বলেন, একটি গণতান্ত্রিক দেশে মত প্রকাশের ক্ষেত্রে এই ধরনের বিক্ষোভ সঠিক পন্থা নয়। প্রধানমন্ত্রীর বিরেুদ্ধে প্রধান অভিযোগ হলো, তিনি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ওয়ানএমডিবি বিনিয়োগ তহবিল থেকে ৭০ কোটি ডলার নিয়েছেন। নাজিব কুয়ালালামপুরকে একটি অর্থনৈতিক কেন্দ্রে পরিণত করতে ২০০৯ সালে এটি প্রতিষ্ঠা করেন।

অসমের চার বিধায়ককে সাসপেন্ড করল কংগ্রেস

ভারতের রাজনৈতিক দল কংগ্রেস অসম রাজ্যের বিধানসভার চার বিধায়ককে দল থেকে সাসপেন্ড ও পাঁচ জনকে শোকজ করেছে। দলবিরোধী কর্মকা-ে জড়িত থাকার অভিযোগে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। খবর বাসসর।

তারা সবাই সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দেয়া সাবেক মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার খুবই ঘনিষ্ঠ বলে জানা গেছে। গুজব রয়েছে, সাসপেন্ড হওয়া বিধায়করা বিজেপি’র দিকে ঝুঁকে পড়তে পারেন। তবে এ ব্যাপারে কংগ্রেস আনুষ্ঠানিক কোন ঘোষণা দেয়নি।

সাসপেন্ড হওয়া বিধায়করা হলেন, প্রধান বড়ুয়া, জয়ন্ত মাল্লা বড়ুয়া, পীযূষ হাজারিকা ও পল্লব লোচন দাস। এছাড়া শোকজ করা হয়েছে আবু তাহের ব্যাপারী, কৃপানাথ মাল্লা, বিনন্দা সাইকিয়া, রাজেন বড়ঠাকুর ও বলিন চেটিয়া। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আসাম রাজ্য কংগ্রেস সম্পাদক ঋতুপর্ণ কোনোয়ার অল ইন্ডিয়া রেডিওকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।