১৩ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কিছু প্রতারক চক্রের ভর্তি বাণিজ্যের ফাঁদে পা না দিতে পরামর্শ


নিখিল মানখিন ॥ মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষার শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের উদ্দেশে সতর্কবার্তা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। পরীক্ষায় নির্বাচিত করার প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতকারীদের বিষয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শও দিয়ে সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে- জীবনবৃত্তান্ত সংগ্রহ করে অতি মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা সংগ্রহ করে অবৈধ রমরমা ভর্তিবাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে কিছু প্রতারক চক্র। অথচ টাকা প্রদানকারী মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে যারা নির্বাচিত হবেন, তারা নিজ যোগ্যতায় নির্বাচিত হবেন। বিগত সময়ের অভিজ্ঞতা এমন তথ্যই দিয়েছে। কারণ মেডিক্যাল পরীক্ষায় টাকা দিয়ে নির্বাচিত এবং প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার বিন্দুমাত্র কোন সুযোগ নাই। আর মেধাতালিকা প্রকাশের পরও জালিয়াতি করার সুযোগ থাকে না। নির্বাচিতদের মেধা তালিকা অনলাইনে প্রকাশ করা হয়ে থাকে। যোগ্যপ্রার্থীর মেধা ডিঙিয়ে কম মেধার প্রার্থী নির্বাচিত হওয়ার কোন সুযোগ নাই। এমন চেষ্টা করা হলে মেধা তালিকার সিরিয়াল দেখলেই তা ধরা পড়বে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এবারও ভর্তি পরীক্ষার ন্যূনতম পাস নম্বর ৪০ বহাল থাকছে। অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন জমা দেয়ার শেষ তারিখ আজ ১ সেপ্টেম্বর। অনলাইনে টাকা জমার শেষ তারিখ ২ সেপ্টেম্বর। প্রবেশপত্র বিতরণ করা হবে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডাঃ এবিএম আবদুল হান্নান জনকণ্ঠকে জানান, ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এবারও ন্যূনতম পাস নম্বর ৪০ বহাল থাকছে। আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত দেশের সব পাবলিক ও প্রাইভেট মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজে একযোগে পরীক্ষা হবে। এবার সারাদেশে ২২টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা নেয়া হবে বলে জানান অধ্যাপক ডাঃ এবিএম আবদুল হান্নান।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, দেশে বর্তমানে ২৯টি সরকারী মেডিক্যাল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে ৩১৬২টি আসন এবং ৬৪টি বেসরকারী মেডিক্যাল কলেজে ৫৩২৫টি আসন রয়েছে। এ ছাড়া ৯টি সরকারী ডেন্টাল কলেজ ও মেডিক্যাল কলেজগুলোর ডেন্টাল ইউনিট মিলিয়ে বিডিএস কোর্সে মোট ৫৩২টি ও ২৪টি বেসরকারী ডেন্টাল কলেজে ১২৮০টি আসন রয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডাঃ এবিএম আব্দুল হান্নান স্বাক্ষরিত সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, প্রতিবছর এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষাকে সামনে রেখে কিছু কুচক্রীমহল, দুর্নীতিবাজ ব্যক্তি বা গ্রুপ কোচিং সেন্টারের নামে নানা প্রলোভন দেখিয়ে থাকে। এই চক্রটি মেডিক্যাল কলেজ ভর্তির বিষয়ে শতভাগ কমন সাজেশন, এক্সক্লুসিভ প্রোগ্রামের মাধ্যমে বা গ্যারান্টিসহকারে ভর্তির কথা বলে গোপনে বড় অংকের টাকা দাবি করে থাকে। ভর্তির জন্য নির্বাচিত না হলে টাকা ফেরত দেয়া হবে বলে তারা তাদের প্রতি শিক্ষার্থীদের বিশ্বাস বাড়ানোর চেষ্টা করে। এবারও এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।

সতর্কবার্তায় আরও জানানো হয়েছে, এ পর্যন্ত মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি পরীক্ষা সর্বোচ্চ স্বচ্ছতার সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়ে এসেছে, যা সংশ্লিষ্ট সকলের গর্বের বিষয়। সর্বোচ্চ স্বচ্ছতার সঙ্গে পরীক্ষা গ্রহণে বর্তমান সরকারের উর্ধতন নীতিনির্ধারণী মহলের নির্দেশ রয়েছে।