মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ আগস্ট ২০১৭, ৬ ভাদ্র ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

পঞ্চগড় পৌর এলাকায় জলাবদ্ধতায় ৩০ পরিবার

প্রকাশিত : ৩১ আগস্ট ২০১৫, ১১:২৪ এ. এম.
পঞ্চগড় পৌর এলাকায় জলাবদ্ধতায় ৩০ পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ পঞ্চগড় পৌরসভার এম আর কলেজ রোডের ডোকরোপাড়ায় হঠাৎ জলাবদ্ধতায় পড়েছে প্রায় ৩০টি পরিবার। প্রবল বৃষ্টিতে পানি সরে না যাওয়ায় এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ময়লা-আবর্জনা আর দুর্গন্ধযুক্ত পানি এলাকার পরিবেশ দুষিত করে তুলেছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, পাশের একটি কার্লভার্টের মূখে এক ব্যাক্তি দেয়াল নির্মান করায় এবং কয়েকদিন ধরে লাগাতার বৃষ্টিপাতের এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। শুধু কলেজরোড এলাকাই নয় পঞ্চগড় পৌরসভার অনেক এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ নির্মানাধীন ড্রেনের ময়লা পরিস্কার না করায় পানি সরে যেতে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। ফলে পানি উপচে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। সোমবার সকালে পঞ্চগড় সরকারী এম আর কলেজ রোডের পাশে ডোকরোপাড়ায় গিয়ে দেখা গেছে, কয়েকদিনের বৃষ্টিতে সেখানে হাটু পানি জমে আছে। ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানিতে পরিবেশ মারাত্মকভাবে দুষিত হচ্ছে। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ছাড়াও বাড়ির সকলে এই ময়লা পানির ওপর দিয়ে যাতায়াত করতে বাধ্য হচ্ছে। দ্রুত দুর্গন্ধযুক্ত পানি না সরাতে পারলে রোগ-ব্যাধি ছড়ানোর আশংকা করছেন এলাকাবাসী

ভূক্তভোগিদের অভিযোগ, আগে এই এলাকায় কোন জলাবদ্ধতা ছিল না। এম আর কলেজ রোডের একটি কার্লভার্ট দিয়ে এই পানি দ্রুত সরে যেত। এক বছর আগে ওই এলাকায় জমি কিনে এক ব্যক্তি কার্লভার্টের পানি যাওয়ার স্থানে রাতারাতি দেয়াল নির্মান করে। তখন থেকেই এই এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। তারা জানিয়েছেন বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকবার পৌর মেয়র ও স্থানীয় কাউন্সিলরকে অভিযোগ করার পরও তারা কোন ব্যবস্থা নেননি।

ডোকরোপাড়ার গৃহিনী আফরোজা বেগম জানান, কয়েকদিনের বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতায় আটকে গেছি আমরা। পানি সরে না যাওয়ায় চরম ভোগান্তির মধ্যে দিন কাটাচ্ছি । হাটু পরিমান ময়লা পানি ডিঙ্গিয়ে ছেলে-মেয়েরা স্কুলে যেতে চায়না। ঘরের ভেতরে পানি উঠে যাচ্ছে। ওই এলাকার বাসিন্দা তফছের আলী জানান, আমাদের এলাকায় চলাচলের কোন রাস্তা এবং পানি সরে যাওয়ার কোন ড্রেন নেই। তাই একটু বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। পানি জমে থাকায় আমার একটি পেঁপে বাগান নষ্ট হয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে ওই এলাকার পৌর কাউন্সিলর বেলাল হোসেন কার্লভার্টের মূখ দেয়াল দিয়ে বন্ধ করে দেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, রাতারাতি এখানে কে বা কারা দেয়াল নির্মান করেছে তা আমরা জানিনা। পৌর মেয়র দেশের বাইরে আছেন। তিনি ফিরে আসলে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

প্রকাশিত : ৩১ আগস্ট ২০১৫, ১১:২৪ এ. এম.

৩১/০৮/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: