২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আত্মবিশ্বাসী হোন


মানুষ সামাজিক জীব। আমরা সবাই কোন না কোন সমাজের অন্তর্ভুক্ত। বিজ্ঞানী ডুর্খেইম বলেন, মানুষ সমাজ ছাড়া চলতে পারে না। আর তাই সমাজে, পারিপার্শ্বিক পরিবেশে আমাদের সকলকে মানিয়ে নিয়ে চলতে হবে, নিজেকে মেলে ধরতে হবে। প্রমাণ করতে হবে, যে অবস্থায় আমরা আছি, তা সর্বশ্রেষ্ঠ। আমাদের প্রত্যেকের ভেতরে ছোটখাটো কোন না কোন গুণ আছে। যেটা আমাকে সমাজের তথা দেশের অন্যতম করতে যথেষ্ট। ভেতরের ছোটবড় শিখাগুলোকে যদি জ্বালাতে পারি তবে আর অন্ধকারে থাকতে হবে না। শিখাগুলোই আমাদের হৃৎপি-কে সতেজ রাখবে। সমাজের প্রত্যেকে নিজেকে আলোর পথে নিয়ে আসতে যদি অন্তত একটি প্রদীপ জ্বালাই, তবে আলো আমাদের চেনাবে বাকিদের কাছে। খোলস এড়িয়ে মেরুদ-ের ওপর ভর দিয়ে দাঁড়াতে সাহায্য করবে।

(১) নিজের ওপর আত্মবিশ্বাস আপনাকে মেলতে সাহায্য করবে। ‘আমি এটা অবশ্যই পারব’Ñ এই ছোট একটা বাক্য যদি নিজেরা নিজেকে বলতে পারি, তবে যে কোন কাজ অনেক সহজ হয়ে যাবে। সর্বপ্রথম নিজেকে চিনতে হবে। আমি কতটুকু পারি, কতটুকু আমার দ্বারা সম্ভব তার সম্পর্কে স্বচ্ছ একটা ধারণা থাকতে হবে। তবেই নিজেকে আত্মপ্রকাশ করা যাবে।

(২) আমরা যে কাজই করি না কেন আর যে গুণই আমাদের ভেতরে থাক তা কখনই ছোট ভাবা যাবে না। নিজেই যদি নিজেকে ছোট মনে করি তবে অন্যকে সুযোগ দেয়া হবে। পৃথিবীতে কোন ভাল কাজই ছোট না। ছোট কাজের মানুষগুলো যদি না থাকত, তবে বড় কাজ সৃষ্টি হতো না। নিজের যা আছে, যেটুকু আছে তা দিয়েই নিজেকে দাঁড় করাতে হবে বিজয়ের মঞ্চে। (৩) ‘মেঘ দেখে কেউ করিসনে ভয়, আড়ালে তার সূর্য হাসে’। কিছু উড়ো কালো মেঘের কান্না দেখে নিজের পথচলা স্থবির করলে সামনের পথটার সন্ধান আর মিলবে না। পথ চলতে কখনও পিছু থমকে ফিরে যাওয়া ভীতুর কাজ। আমাদের প্রত্যেকের মনের ভেতরে একটা সাহসের পি- ঘুমন্ত অবস্থায় আছে। সেটাকে জাগ্রত করতে হবে আমাদের নিজেদেরই।

(৪) প্রতিদিন কমপক্ষে একটি ভাল কাজ করতে হবে। নিজের জন্য না হলেও অন্যের জন্য। অন্যের জন্য কিছু করতে পারলে নিজেকেই প্রকাশ করা যাবে। প্রতিদিন ছোট্ট একটা ভাল কাজই দিনের শেষে মনকে শান্তি মেলাবে। বিন্দু বিন্দু জল বিশাল জলাশয় সৃষ্টি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তেমনি আমাদের সুন্দর সাবলীল মনোবল ছোট কাজগুলোকে বিশালতায় রূপ দেবে।

(৫) ‘ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়’। মনের ইচ্ছাশক্তিকে জাগ্রত করতে হবে। ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিতে হবে। গুটিয়ে রাখলে চলবে না। সৎ কাজে আর ভাল পথে চলতে সাহসের দরকার হয় না, দরকার শুধু একটু মনোবল।

(৬) ছিন্নমূল হয়ে বেঁচে থাকার ভেতর কোন বীরত্ব নেই। আমরা কেউ ছিন্নমূল হয়ে বাঁচতে চাই না। ভেতরের সবটুকু প্রকাশ করে আত্মপ্রত্যয়ী হয়ে উঠতে হবে। আমাদের সকলের একটাই প্রধান পরিচয় আমরা মানুষ। কিন্তু মানুষ হওয়ার পাশাপাশি আমাদের আরও একটি নিজস্ব পরিচয় দাঁড় করাতে হবে। মেলতে হবে নিজের অদৃশ্য পাখনা।

(৭) সমাজের আমরা যদি একজন মানুষ নিজের পারাটুকু কাজে লাগাতে পারি, সর্বোত্তমটুকু কাজে লাগাতে পারি তবে তাকে দেখেই উৎসাহিত হবে অন্যরা।

অনেক শূন্যতা নিয়ে আমরা পৃথিবীতে আসি। তারপর হয়ত কিছু পূর্ণতা ঝুলিবদ্ধ করতে পারি। জন্মের সময় কেঁদে পদার্পণ করি পৃথিবীতে আর আমার আগমনে বাকিরা হয় আনন্দিত। আমরা কি পারি না? পৃথিবীতে অবস্থানকালীন এটুকু সময়ে নিজের গুণগুলোকে প্রকাশ করে নিজের ভাবনাকে প্রজ্বলিত করতে! যেন আমি পৃথিবী থেকে চলে গেলে তারা কেঁদে আমার শূন্যতার জানান দেয়।

শারমিন সুলতানা মিম

মডেল : আইরিন তানি