মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

করতোয়া ফুঁসে উঠছে॥ বিশুদ্ধ পানির সঙ্কট

প্রকাশিত : ৩০ আগস্ট ২০১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা, ২৯ আগস্ট ॥ করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হলেও সুন্দরগঞ্জ, ফুলছড়ি, সাঘাটা, পলাশবাড়ি ও সদর উপজেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় তিস্তা ২ সে.মি. ও করতোয়ার পানি ২ সেমি বৃদ্ধি পেয়ে করতোয়া এখন বিপদসীমার ৩২ সে.মি. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া তিস্তার পানি বেড়েছে ২ সে.মি.। এ সময় ব্রহ্মপুত্রের পানি ১০ সে.মি. এবং ঘাঘটের পানি ৬ সে.মি. হ্রাস পেয়ে এখন বিপদসীমার সামান্য নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বন্যায় গোবিন্দগঞ্জ পৌর এলাকাসহ গোবিন্দগঞ্জের ৮টি ইউনিয়নের করতোয়া নদী তীরবর্তী এলাকা ব্যাপকভাবে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে সুন্দরগঞ্জ এবং গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার পানিবন্দীদের শুকনো খাবার, জ্বালানি, টয়লেট, বিশুদ্ধ পানি এবং গোখাদ্য সঙ্কটে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এছাড়া গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও সাব রেজিস্ট্রার অফিস চত্বর, মহিলা কলেজ এবং উপজেলা পরিষদ ভবন সংলগ্ন কুটিবাড়ি এলাকা এখনও বন্যার পানিতে নিমজ্জিত।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ পর্যন্ত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় ২শ’ টন চাল ও নগদ ৭ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে।

নীলফামারিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী থেকে জানান, উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ১৫ সে.মি. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। শনিবার সকাল ৬টা থেকে তিস্তার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহের বিষয়টি নিশ্চিত করে ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোন্নাফ হাওলাদার বলেন দুপুর ১২টার পর তিস্তার পানি ৩ সে.মি. কমে বিপদসীমার ১২ সে.মি. ওপরে প্রবাহ অব্যাহত রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।

এদিকে উজানের ঢলে তিস্তা পানি বৃদ্ধির কারণে তিস্তা অববাহিকার ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলার নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। এলাকাবাসী জানায়, উজানের ঢলে তিস্তার বন্যায় বাইশপুকুর, কিসামতেরচর, বাঘেরচর, টাবুরচর, ঝাড়শিঙ্গেশ্বর, ছাতুনামা, ভেন্ডাবাড়ি, ২৫টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

দিনাজপুরে তিন বিশিষ্টজনকে সম্মাননা

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ প্রায় এক হাজার প্রতিযোগীর অংশগ্রহণে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, দেশের বিশিষ্ট তিন জনকে সম্মাননা প্রদান ও বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্য দিয়ে শনিবার দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত হলো এপেক্স বাংলাদেশের ৫৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে এর আয়োজন করে এপেক্স ক্লাব অব দিনাজপুর।

অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন সংগঠনের জাতীয় সভাপতি সৈয়দ নুরু রহমান। জেলা গভর্নর-৭ এপেক্সিয়ান নাসিম আহমেদ-এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন আসাদুজ্জামান কাঞ্চন, আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, এনামুল হক মামুন, রুহুল মঈন চৌধুরী, ইসরাত কাওকাব রাফি, রাজি উদ্দিন চৌধুরী ডাব্লিউ এবং ক্লাবের সভাপতি নুরুল মতিন সৈকত।

অনুষ্ঠানে এ দেশের ভাষা আন্দোলন, মহান মুক্তিযুদ্ধসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক অঙ্গনে সাহসী সংগঠক হিসেবে ভূমিকা রাখার জন্য দিনাজপুরের সাবেক এমপি এম. আব্দুর রহিম, চিকিৎসা ও সমাজ সেবার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার জন্য বগুড়ার ডাঃ এএইচএম মশিউর রহমান এবং সমাজ সেবায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখার জন্য গাইবান্ধার আব্দুস সোবহান-কে সম্মাননা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে প্রায় ৫০ জন প্রতিযোগীকে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

প্রকাশিত : ৩০ আগস্ট ২০১৫

৩০/০৮/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: