মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২২.৮ °C
 
২৩ এপ্রিল ২০১৭, ১০ বৈশাখ ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

দলের গর্বিত মালিক হওয়ার শেষ সুযোগ আজ

প্রকাশিত : ৩০ আগস্ট ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল-টি২০) তৃতীয় আসরে কারা সত্যিই দল কিনতে আগ্রহী, দলের মালিক হতে আগ্রহী, তা বোঝা যাবে আজ। ২৫ নবেম্বর শুরু হতে যাওয়া লীগে দল নেয়ার জন্য আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোর পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টি দেয়ার শেষ দিন যে আজই। যারা এ দুটি শর্ত পূরণ করবে আজকের মধ্যে, তারাই যে দল নিতে চায়, বিপিএলের তৃতীয় আসর থেকে দল চালাতে চায়, তা বোঝা যাবে। তবে সবার আগে পুরনো দলগুলোর মধ্যে দল কিনতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সব শর্ত পূরণ করে ফেলেছে সিলেট রয়্যালস। সেই সঙ্গে নতুনদের মধ্যে ডিবিএল ও এক্সিওম টেকনোলজিও দল কেনার শর্ত পূরণ করেছে।

দল নিতে হলে ১ কোটি টাকা পে-অর্ডার ও সাড়ে চার কোটি টাকা ব্যাংক গ্যারান্টি দিতে হবে। সেটি আজ বিকেল ৫টার মধ্যেই দিতে হবে। সেই শর্ত সিলেট রয়্যালস সবার আগে পূরণ করেছে। আর পুরনো যে পাওনা বাকি ছিল, বৃহস্পতিবারের মধ্যে তা দিতে হতো; তাও দিয়ে দিয়েছে সিলেট রয়্যালস। আগ্রহীদের মধ্যে বাকি থাকছে আরও ১২টি প্রতিষ্ঠান। পুরনোদের মধ্যে রংপুর রাইডার্স আছে। তারাও সময়মতো পুরনো পাওনা পরিশোধ করেছে। এখন তৃতীয় আসরে দল নিতে হলে রংপুর রাইডার্স মালিককে পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টিও আজকের মধ্যে দিতে হবে। নতুনদের মধ্যে এবার নতুন করে দল নিতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ১১টি। সেই প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছেÑ বেক্সিমকো, মিডিয়াকম (স্কয়ার), সোহানা গ্রুপ অব কোম্পানি, ইনডেক্স গ্রুপ, এক্সিওম টেকনোলজি লিমিটেড, ডিবিএল গ্রুপ, বিবিএস কেবলস, বেঙ্গল কমিউনিকেশন, ব্লুজ কমিউনিকেশন, নেট ওয়ার্ল্ড বিডি লিমিটেড ও ফাইবার এড হোম লিমিটেড। সিলেট রয়্যালসের মালিকদের মতো ডিবিএল ও এক্সিওম টেকনোলজির দল চালানো নিশ্চিত হয়ে গেছে। নতুন প্রতিষ্ঠানগুলো যদি বিপিএলের তৃতীয় আসরে দল চালাতে চায় তাহলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) থেকে নির্ধারিত পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টি দিতে হবে। তবেই দল মিলবে। এখন কতটি প্রতিষ্ঠান এ শর্তগুলো পূরণ করে তাই দেখার বিষয়। তবে পুরনোদের মধ্যে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স, দুরন্ত রাজশাহী, খুলনা রয়েল বেঙ্গলস, বরিশাল বার্নার্স ও চিটাগং কিংস আর বিপিএলের সঙ্গে থাকতে পারছে না। বিপিএলের দ্বিতীয় আসরে ম্যাচ গড়াপেটায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স দলটি এমনিতেই থাকতে পারবে না। এর বাইরে পুরনো দলগুলোর মধ্যে বিসিবির দেয়া শর্ত মানেনি দুরন্ত রাজশাহী, খুলনা রয়েল বেঙ্গলস, বরিশাল বার্নার্স ও চিটাগং কিংস। বৃহস্পতিবারের মধ্যে যে পুরনো দলগুলোর আগের পাওনা মিটিয়ে দেয়ার কথা, সেই শর্তটি পূরণ করতে পারেনি এ দলগুলো। আর তাই বিপিএলের সঙ্গে এ দলগুলো থাকার আর কোন যোগ্যতাই রাখল না। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গত সপ্তাহের শুরুতেই বলেছিলেন, ‘সিলেট, বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী ও চিটাগং বকেয়া টাকা পরিশোধ করেনি। এই ৫টি ক্লাবের কাছে বিসিবির মোট বকেয়া ৩৬ কোটি ৮১ লাখ টাকা। সিলেটের কাছে বকেয়া রয়েছে ৮ কোটি টাকা। এ ছাড়া বরিশাল ৬ কোটি টাকা, খুলনা ৮ কোটি ১৯ লাখ টাকা, রাজশাহী ৬ কোটি ৯ লাখ টাকা ও চিটাগংয়ের কাছে বকেয়া রয়েছে ৭ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। তবে রংপুর ফ্রাঞ্চাইজির মালিক সব বকেয়া টাকা পরিশোধ করায় আসন্ন বিপিএল টুর্নামেন্টে দল কিনতে পারবে। দল কিনতে হলে পুরনো-নতুনদের এক কোটি টাকা পে-অর্ডার হিসেবে জমা দিতে হবে। আর বাকি সাড়ে চার কোটি টাকা খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক পরিশোধের গ্যারান্টি হিসেবে দিতে হবে। তা ব্যাংকে জমা রাখা হবে। আগের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর মধ্যে যারা অর্থ পরিশোধ করেনি তাদের ২৭ আগস্টের মধ্যে বকেয়া টাকা পরিশোধ করতে হবে। এরপর নতুন নিয়মে পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টি দিয়ে দল কেনার চূড়ান্ত আগ্রহ দেখাতে হবে।’ কোন শর্তই পুরনোদের মধ্যে বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী ও চিটাগং পূরণ করেনি। তবে সিলেট রয়্যালস শুধু পুরনো বকেয়াই নয়, নতুন শর্তও পূরণ করেছে। বিসিবির পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস যেমন শনিবার বলেছেন, ‘আজ (শনিবার) পর্যন্ত বিপিএলের আপডেট হচ্ছে সিলেট রয়্যালস তাদের পুরনো বকেয়া এবং নতুন পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টি যা আছে এটা জমা দিয়ে দিয়েছে। তাদের সব পরিষ্কার। আর রংপুর রাইডার্স পুরনো বকেয়া দিয়ে দিয়েছে। কিন্তু তারা নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য যে পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টি আজ (শনিবার) পর্যন্ত জমা দেয়নি। আর নতুনদের মধ্যে ডিবিএল ও এক্সিওম টেকনোলজি তারা নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য যেটা আমরা চেয়েছিলাম ব্যাংক গ্যারান্টি এবং পে-অর্ডার, তারা তা জমা দিয়ে দিয়েছে। সাড়ে পাঁচ কোটির পুরোটাই দিয়েছে তারা। কাল (আজ) শেষ দিন। বিকাল ৫টা পর্যন্ত রংপুর রাইডার্স ও নতুনদের জন্য এখনও একটা সুযোগ আছে। আমরা আশা করছি হয়ত অনেকেই পে-অর্ডার এবং ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দেবে। পুরনো দলগুলোর মধ্যে সিলেট সব শর্ত পূরণ করেছে। তারা থাকছে। রংপুর পুরনো বকেয়া দিয়েছে। নতুন শর্ত পূরণ করলে তারাও থাকবে। এছাড়া পুরনোদের মধ্যে রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চিটাগংয়ের এখন আর কোন সুযোগ নেই। ২৭ তারিখ তাদের জন্য শেষ সময় ছিল। তারা যেহেতু আমাদের বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে শোধ করেনি তাই তাদের বিবেচনা করা হবে না। এখান থেকে সরে আসার সুযোগ তো আমি দেখছি না।’

প্রকাশিত : ৩০ আগস্ট ২০১৫

৩০/০৮/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: