১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

চাপে অস্ট্রেলিয়া, উজ্জীবিত ইংল্যান্ড


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ পরিকল্পনা দেখেই বোঝা যায় কতটা চাপে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম টেস্টে বড় হারের পর কার্যত এ্যাশেজে কিংকর্তব্যবিমুঢ় অবস্থায় অতিথিরা। যারা গতবারই ইংল্যান্ডকে ডুবিয়েছিল ‘হোয়াইটওয়াশে’র লজ্জায়, বিশ্বকাপ পুনরুদ্ধার করে নিশ্চিত ফেবারিট হিসেবে নামে এ্যাশেজ লড়াইয়ে। কার্ডিফে প্রথম টেস্টে চারদিনেরও কম সময়ে ১৬৯ রানের বড় হারে বদলে গেছে দৃশ্যপট। লর্ডসে কঠিন পরীক্ষার দ্বিতীয় টেস্টে আজ তাই জায়গা হচ্ছে না অন্যতমসেরা অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসনের। সমালোচনার মুখে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন অভিজ্ঞ ব্র্যাড হ্যাডিনও! প্রধান নির্বাচক রডনি মার্শের ইঙ্গিত, হ্যাডিনের পরিবর্তে উইকেটের পেছনে অভিষেক হতে যাচ্ছে ২৯ বছর বয়সী পিটার নেভিলের, ওয়াটসনের জায়াগায় প্রতিভাবান মিচেল মার্শ।

লজ্জাজনকভাবে হারের পর ব্যর্থ ওয়াটসন-হ্যাডিনকে কচুকাটা করছে অসি মিডিয়া। তবে ঘুরে দাঁড়াতে চান ড্যারেন লেহম্যান ‘এটা পাঁচ টেস্টের দীর্ঘ সিরিজ। তাই আমাদের ফেরার দারুণ সুযোগ রয়েছে। কার্ডিফে আমরা ভাল ব্যাটিং করিনি। সময় মতো বোলিংটাও ঠিক ছিল না। লর্ডসে ভুল শুধরে ঘুরে দাঁড়াতে চাই। ছেলেরা নিশ্চই বুঝতে পারছে এ জন্য কী করণীয়।’ বলেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধান কোচ লেহম্যান। প্রথম টেস্টে ৪১২ রানের প্রায় অসম্ভব লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৪২ রানে অলআউট হয় সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ইনিংসে ক্লার্কদের সংগ্রহ ছিল ৩০৮ রান। ইংল্যান্ড করে যথাক্রমে ৪৩০ ও ২৮৯ রান। ১৩৪ ও ৬০ রানের চমৎকার দুটি ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা ইংলিশ তারকা জো রুট।

এক হারেই চাপের মুখে অসিরা। বিশেষ করে ওয়াটসন-হ্যাডিনের ফর্মহীনতায় ক্ষেপেছে অসিরা। দুই ইনিংসে ওয়াটসনের রান ৩০ ও ১৯, বল হাতে উইকেটশূন্য। হ্যাডিন করেছেন ২২ ও ৭। ‘দ্য অস্ট্রেলিয়ান’ পত্রিকা লিখেছে, ‘লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টে দলে পরিবর্তন ফরজ হয়ে পড়েছে। ওয়াটসন সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি। ওকে বিদায় জানানোর সময় এসেছে।’ অভিজ্ঞদের ব্যর্থতা তরুণদের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রভাবশালী ‘সানডে টেলিগ্রাফ’ পত্রিকায়। ১৯৯৭ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে এমনি সিরিজের প্রথম ম্যাচে হেরে গিয়েছিল অসিরা। এরপর ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজ জিতে নিয়েছিল। ক্লার্কের এই দল কতটা পারবে, সময়েই তার উত্তর মিলবে। পরিবর্তনের বিষয়টা পুরোপুরি না মানলেও একাদশ গড়া নিয়ে চিন্তিত লেহম্যান।

কোচ আরও যোগ করেন, ‘লর্ডসের পিচ, পরিবেশ দেখে আমাদের একাদশ বাছাই করতে হবে। কার্ডিফে এভাবে খেলার পর এখন আমাদের জন্য কাজটা অবশ্যই কঠিন হয়ে গেছে।’ তবে ওয়াটসনের হয়েই কথা বলেছেন তিনি, ‘বার বার এলবিডব্লিউ হতে কেউ চায় না। ওয়াটসনও নিশ্চই খুশি নয়। তবে ওর ভুলগুলো দ্রুত শুধরে নিতে হবে।’ অন্যদিকে ক্লার্কের নেতৃত্বের প্রশংসা করেছেন কোচ বেইলিস। ‘মাত্র ৩০ বছর বয়সে ৯ হাজারের ওপর টেস্ট রান ভাবা যায়? কুক আধুনিক ইংল্যান্ডের সেরা প্রতিভা। কার্ডিফে অধিনায়ক হিসেবেও ছিল উজ্জ্বল। ওকে বলেছি, যাও তুমি তোমার নিজের স্টাইলটা মেলে ধর। আশা করছি সিরিজজুড়ে এটা অব্যাহত থাকবে।’ বলেন মাত্রই এক মাস আগে ইংল্যান্ডের কোচের দায়িত্ব পাওয়া সাবেক অস্ট্রেলিয়ান তারকা ট্রেভর বেইলিস। আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছেন কুক নিজেও ‘সিরিজ শুরুর আগের দিন সংবাদ সম্মেলনের কথা মনে পড়ছে। আগে কী হয়েছে সবাই কেবল তা নিয়েই বলছিল। আমার বিরক্তি লাগছিল। কারণ যা হয়ে গেছে, সেটা নিয়ে আর তো কিছু করার নেই।’ আগের কথা মানে অস্ট্রেলিয়ার মাঠে সর্বশেষ এ্যাশেজ, যেখানে ৫-০ তে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল কুকের দল। তিনি আরও যোগ করেন ‘আমরা যে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে লড়তে পারি, এটা দেখানো খুব জরুরী ছিল। এভাবে সিরিজ শুরু করাটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এতে বোঝা যায় আমাদের মৌলিক বিষয়গুলো ঠিকই আছে। আর আমরা নিজেদের খেলাটা খেললে অস্ট্রেলিয়াকেও চাপে ফেলতে পারি। এ ধারা অব্যাহত রাখতে চাই।’ প্রথম টেস্টে উদ্ভাসিত সাফল্যের পর আজ অপরিবর্তিত দল নিয়ে মাঠে নামবে স্বাগতিক ইংলিশরা।