১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মাইলফলক স্পর্শের লড়াই সাকিব-মাশরাফির


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ একটি ম্যাচ বেশি খেলেছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। তাই এক উইকেট বেশি নিয়ে এগিয়ে আছেন তিনিই। ১৫৬ ওয়ানডে খেলে তার দখলে রয়েছে ১৯৯ উইকেট। আর এক ম্যাচ কম খেলে সাকিব আল হাসানের ঝুলিতে সংগ্রহ ১৯৮ উইকেট। বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের পর দ্বিতীয় বোলার হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে ২০০ উইকেটের মালিক হওয়ার সুযোগ এ দু’জনের। একটি অঘোষিত লড়াইও। অধিনায়ক মাশরাফি আর সহঅধিনায়ক সাকিবের লড়াইয়ে আজ দু’জনই জয়ী হতে পারেন। তবে কে আগে রাজ্জাককে আগে ছুঁয়ে ফেলেন সেটাই দেখার অপেক্ষা। তবে এর মধ্যে সাকিবের জন্য নতুন এক কীর্তিও অপেক্ষা করছে। ২০০ উইকেট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ওয়ানডেতে একাধারে বল হাতে ২০০ উইকেট এবং ব্যাট হাতে ৪ হাজার রানের গর্বিত মালিক হয়ে যাবেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই ওয়ানডেতে দারুণ বোলিং করেছেন সাকিব। কিন্তু উইকেটের দেখা পাননি। তাকে অবশ্য বেশ সাবধানে মোকাবেলা করেছে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা। সে কারণেই মিতব্যয়ী বোলিং করলেও এখন পর্যন্ত উইকেটের দেখা পাননি। এ সিরিজ তিনি শুরু করেছেন ১৯৮ উইকেট নিজের সংগ্রহে নিয়ে। প্রথম ম্যাচে ২৭ রান দেয়ার পর দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও ৩০ রান দিয়েছেন সাকিব। তবে উইকেটের দেখা মেলেনি। আজ তার প্রয়োজন দুটি উইকেট। এটি হলেই ছুঁয়ে ফেলবেন রাজ্জাককে। রাজ্জাক ১৫৩ ম্যাচে ২৯.২৯ গড়ে এ ২০৭ উইকেট শিকার করেছেন। একই গৌরবের মালিক হওয়ার জন্য সাকিবের প্রয়োজন ২ উইকেট। কিন্তু এ সিরিজে দুই ম্যাচে কোন উইকেটই নিতে পারেননি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। এখন সাকিবের শিকার ১৫৫ ওয়ানডেতে ২৮.৬১ গড়ে ১৯৮ উইকেট। দুই উইকেট দূরে তিনি রাজ্জাকের পর দ্বিতীয় বোলার হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে ২০০ উইকেট শিকারি হওয়ার জন্য। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ শুরুর আগে এ জন্য ২ উইকেট প্রয়োজন ছিল অনেক আগেই ৪ হাজার রান করা সাকিবের। কিন্তু চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তিনিই সবচেয়ে সফল বোলার এখন পর্যন্ত। ১৩ ওয়ানডে খেলে সাকিব সাগরিকায় শিকার করেছেন ১৫.০৩ গড়ে ২৭ উইকেট। রাজ্জাকের আছে এ ভেন্যুতে ১১ ম্যাচে ২১ উইকেট। এর অর্থ সাগরিকায় দারুণ ভয়ঙ্কর সাকিব বল হাতে। আজ তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে জ্বলে উঠতে পারলেই হলো। দুটি উইকেট নিতে পারলেই নতুন গৌরবের মালিক হয়ে যাবেন।

অপরদিকে মাশরাফি চলতি সিরিজে দুই ম্যাচে একটি করে দুটি উইকেট নিয়েছেন। এখন তার সংগ্রহে আছে ১৫৬ ম্যাচে ৩০.৮৯ গড়ে ১৯৯ উইকেট। আর এক উইকেট প্রয়োজন দ্বিতীয় বাংলাদেশী হিসেবে ২০০ উইকেটের মালিক বনে তিনি। সাকিব-মাশরাফি ও রাজ্জাক, এ তিনজন ছাড়া এক শ’ উইকেট শিকারির তালিকায় আর একজন বাংলাদেশীই আছেন। ১২৩ ম্যাচে সাবেক বাঁহাতি স্পিনার মোহাম্মদ রফিক ১১৯ উইকেট শিকার করেছিলেন। দারুণ ফর্মে থাকা টিম বাংলাদেশের সঙ্গে সঙ্গে এ দু’জন জ্বলে উঠলে দেশের ক্রিকেটে নতুন মাত্রা যোগ হবে। দেখা যাক মাইলফলক ছোঁয়ার এ ম্যাচে কে এগিয়ে যান।