১৬ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আবারও জ্বলে ওঠার অপেক্ষা তামিমের


মোঃ মামুন রশীদ ॥ বিশ্বকাপ শেষে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঘরোয়া সিরিজে জ্বলে উঠেছিলেন এবং ওয়ানডে সিরিজে দুটি সেঞ্চুরি ও টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকান। কিন্তু আবারও ব্যাটিং ব্যর্থতা গ্রাস করেছে বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য এ ওপেনারকে। সর্বশেষ চার ওয়ানডেতে তিনি করেছেন যথাক্রমে ১৩, ৫, ০ ও ৫ রান। এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই টি২০ ম্যাচেও ছিলেন একেবারে ব্যর্থ, করেছিলেন ৫ ও ১৩। তবে এবার নিজেকে ফিরে পাওয়ার মোক্ষম সুযোগ তাঁর। যেখানে বড় হয়েছেন সেই এলকাতেই এবার প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। ফিরে আসছে ৭ বছর আগের ৯ মার্চও। সেদিনই সর্বশেষ এ মাঠে প্রোটিয়াদের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ দল। আর তামিম খেলেছিলেন ৮২ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। তবে সেদিন জিততে পারেনি বাংলাদেশ। সাত বছর পর আমূল বদলে যাওয়া বাংলাদেশ এবার সেই একই ভেন্যুতে অন্যরকম এক পরিস্থিতিতে মুখোমুখি হচ্ছে প্রোটিয়াদের। জিততে পারলেই সিরিজ জয়। এখন সেই আত্মবিশ্বাস আছে ক্রিকেটারদের। কিন্তু তামিম ঠিক ছন্দে নেই। সাগরিকায় জ্বলে উঠবে তার ব্যাট? নতুন এক মাইলফলক ছুঁতে যাচ্ছেন আজ এ ম্যাচে। ক্যারিয়ারের ১৫০তম ওয়ানডে খেলতে নামবেন ২৬ বছর বয়সী এ বাঁহাতি।

মাঝে অনেকটা সময় বাজে কেটেছিল। বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ভাল ইনিংস ছাড়া তেমন বড় কোন ইনিংস পায়নি তার কাছ থেকে। বাংলাদেশ দলের দুর্দান্ত নৈপুণ্যের ভিড়ে তার ব্যর্থতা আরও প্রকটভাবেই ধরা পড়েছে। আর সে কারণেই এমনকি তামিমবিরোধী হয়ে উঠেছিলেন দেশের অনেক ক্রিকেটপ্রেমী দর্শক-ভক্তরা। কিন্তু ব্যাট হাতেই জবাব দিয়েছিলেন সেসব সমালোচনার। ভারতের বিপক্ষেও তেমন খারাপ যায়নি সময়টা। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এখন পর্যন্ত তেমন কিছুই করতে পারেননি তিনি। প্রোটিয়া শিবির কী তামিমকে চেনে? তামিমের ব্যাটিং করার ক্ষমতা এবং সামর্থ্য সম্পর্কে কোন ধারণা আছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের? অবশ্যই থাকার কথা। অন্তত হাশিম আমলা আর জেপি ডুমিনি তো ভালভাবেই জানবেন। এ দু’জনই ২০০৮ সালে সর্বশেষ ম্যাচ খেলেছিলেন বাংলাদেশের বিপক্ষে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। আরেকজন খুব ভালভাবেই অনুভব করবেন। তিনিও আছেন দলের সঙ্গে, খেলোয়াড় হিসেবে নয় কোচ হিসেবে। বর্তমানে বোলিং কোচ চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্ট দারুণ বোলিং করেছিলেন ওই ম্যাচে। এ কারণে তামিমকে চেনা আছে তারও। সবে এক বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পার করা তরুণ তামিম ক্যারিয়ারের ২২তম ওয়ানডে খেলতে নেমে একাই সেদিন শাসন করেছিলেন প্রোটিয়া বোলিং আক্রমণকে। অন্যরা ছিলেন ব্যর্থ। সে কারণে সেদিন ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে বিধ্বস্ত হয়েছিল বাংলাদেশ।

এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। সিরিজে ১-১ সমতা। আর গত কয়েক বছরে সাগরিকা নিশ্চিতভাবেই বাংলাদেশ দলের জন্য পয়মন্ত ভেন্যুতে রূপান্তরিত হয়েছে। সর্বশেষ ৭ ম্যাচের একটিতে পরাজিত হয়েছে এ মাঠে। আর তামিমের ব্যাট থেকেও ভাল রান এসেছে। সবমিলিয়ে সাগরিকায় তামিম ১২ ওয়ানডে খেলেছেন। ৩৫.৫৪ গড়ে করেছেন ৩৯১ রান। অথচ ক্যারিয়ার গড় তার ৩০.৯৫! এ কারণে তিনি স্বপ্ন দেখতেই পারেন সাগরিকায় রানে ফেরার। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাকি ৮ ওয়ানডেতে একেবারেই বাজে পরিসংখ্যান তামিমের। সবমিলিয়ে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ৯ ম্যাচ খেলে ২২.৫৫ গড়ে ২০৩ রান করতে পেরেছেন। অর্ধশতক ওই একটি। সবদিক থেকে আজ তামিমের জ্বলে ওঠার দিন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দীর্ঘ ৭ বছরের ব্যর্থতা কাটিয়ে ওঠা এবং নতুন করে রানে ফেরার দিন আজ। তাছাড়া ক্যারিয়ারের বিশেষ একটি মাইলফলকও ছুঁতে চলেছেন এ বাঁহাতি। বাংলাদেশের ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্যারিয়ারের ১৫০তম ওয়ানডে খেলতে নামবেন আজ। সর্বাধিক ১৭৫ ওয়ানডে খেলে সবার ওপরে থাকা মোহাম্মদ আশরাফুল ছাড়াও ১৫০ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন সাকিব আল হাসান (১৫৫), মাশরাফি বিন মর্তুজা (১৫৪), মুশফিকুর রহীম (১৫৪) ও আব্দুর রাজ্জাক (১৫৩)।