১৪ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

সিরিজ জয় না হার, ফয়সালা আজ


মিথুন আশরাফ ॥ এক, দুই বছর নয়; সাড়ে ৬ বছর পর আবার একটি প্রশ্ন বাংলাদেশের সামনে ঘুরপাক খাচ্ছে, সিরিজ জয় না হার হবে? দেশের মাটিতে সেই যে ২০০৮ সালের অক্টোবরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এমন প্রশ্নের মুখে পড়েছিল বাংলাদেশ, আজ চট্টগ্রামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে খেলতে নামার আগে আবারও সেই প্রশ্ন বাংলাদেশের সামনে এসে পড়েছে। সেই প্রশ্নের উত্তরও মিলে যাবে আজ। সিরিজের ফয়সালা যে আজই হয়ে যাবে।

ওয়ানডেতে এই বছরটি বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য শুধু আলোই নিয়ে এসেছে। সুখ, শান্তি, স্বস্তি, আনন্দ, উৎসবই শুধু হচ্ছে। সিরিজ জয় না হার হবে আজ? এ প্রশ্নটি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে খেলতে নামার আগে বাংলাদেশকে স্পর্শই করতে পারেনি। মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিকদের গায়েও আঁচড় কাটতে পারেনি। সেই ভাবনাই নিতে হয়নি। অবশেষে সেই ভাবনা করতে হচ্ছে। তাও আবার সাড়ে ছয় বছর পর। ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে জেতার পর দ্বিতীয় ওয়ানডেতে হেরে সিরিজে সমতা আসে। এরপর তৃতীয় ওয়ানডের আগে সিরিজ জয় না হার হবে, সেই প্রশ্ন উঠে। কিন্তু বাংলাদেশ হেরে যায়। সিরিজেও হার হয়। এরপর দেশের মাটিতে আর কোন তিন ম্যাচের সিরিজে এমন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতে হয়নি বাংলাদেশকে। শেষ ম্যাচে গিয়ে সিরিজের ফয়সালা হয়নি। হয় সিরিজে আগেই জয় নিশ্চিত হয়েছে। নয় তো আগেই সিরিজ হার হয়ে গেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এসে আবার সেই রকম অবস্থা দাঁড় হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টি২০ দিয়ে সিরিজ শুরু হয়। দুই ম্যাচের টি২০ সিরিজে হেরেছে বাংলাদেশ। ৫২ ও ৩১ রানে যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় টি২০তে হার হয়েছে। এরপর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৮ উইকেটে হারের পর দ্বিতীয় ওয়ানডেতেই ৭ উইকেটে জিতে ঘুরে দাঁড়িয়েছে মাশরাফিরা। এবার ওয়ানডে সিরিজ জিতবে কে? এ প্রশ্নের উত্তর আজ ম্যাচ শেষেই মিলে যাবে। সেই যে গতবছর নবেম্বর থেকে বাংলাদেশ সিরিজ জিতে চলেছে, তা এখন পর্যন্ত বজায় রয়েছে। যদি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে জিতে যায় বাংলাদেশ, তাহলে টানা চার সিরিজ জেতার ইতিহাস গড়বে। যা আজ পর্যন্ত বাংলাদেশ করতে পারেনি। তাও আবার বাঘা বাঘা দলগুলোকেই হারিয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর নবেম্বরে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ৫ ওয়ানডে ম্যাচের সিরিজ শুরু করে সব ম্যাচ জিতে মাশরাফিবাহিনী। এরপর যে পাকিস্তানকে ১৯৯৯ সালের পর আর হারাতেই পারছিল না, তাদের ৩-০ তে সিরিজে হারিয়ে দেয়। ভারতকেও সেই তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি করেই ফেলেছিল। কিন্তু তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুটিতে জিতে সিরিজ জয় নিশ্চিত করে নিলেও তৃতীয় ওয়ানডেতে এসে হেরে যায় বাংলাদেশ। বছরটি শুধু আলোতেই ভরে থেকেছে। সেই আলো আরও ছড়িয়ে দেয়ার পালা এবার। যদি দক্ষিণ আফ্রিকাকেও সিরিজে হারিয়ে দিতে পারে বাংলাদেশ, তাহলে বিশ্বক্রিকেট দরবারে ‘বড় শক্তি’র দল হয়ে ওঠার সঙ্গে দেশের মাটিতে পরাশক্তিই হয়ে উঠবে বাংলাদেশ। এর আগে বাংলাদেশকে সেই ২০১৩ সালের মে মাসে সিরিজের শেষ ম্যাচে গিয়ে সিরিজ জয় না হার হবে, এমন অভিজ্ঞতার মুখোমুখিই হতে হয়েছিল। দুই বছর আগে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সর্বশেষ এমন অভিজ্ঞতার মধ্যে পড়েছিল বাংলাদেশ। তাতে বাংলাদেশের সিরিজ হারই হয়েছিল। সেই তিন ম্যাচের সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ জিতে, পরের দুই ম্যাচেই হেরে সিরিজ হেরেছিল। সেই সিরিজ অবশ্য জিম্বাবুইয়ের মাটিতে হয়েছিল। দেশের মাটিতে অবশ্য আড়াই বছরের বেশি সময় আগে এমন অভিজ্ঞতার মধ্যে পড়ে বাংলাদেশ। তবে সেই সিরিজটি ছিল ৫ ম্যাচের। ২০১২ সালের নবেম্বর-ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে জিতে পরের দুটিতে হারে বাংলাদেশ। সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডেতে গিয়ে জিতে সিরিজ জয় করে বাংলাদেশই।

এবার আবারও দেশের মাটিতে সাড়ে ছয় বছর পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে গিয়ে বাংলাদেশের সামনে সিরিজ জয়ের হাতছানি দিচ্ছে। কাদের বিপক্ষে হাতছানি দিচ্ছে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। এ মুহূর্তে বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং, সব বিভাগেই যাদের আধিপত্য বিস্তার। কিন্তু এ দলটিকেই ২০০৭ সালের বিশ্বকাপের পর আবার হারিয়েছে বাংলাদেশ। সিরিজে হারানোর স্বপ্নও এখন জেগে গেছে। বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জয়ের পরই বলেছেন, ‘আমি মনে করি আমরা ভাল খেলেছি, দিনটা ওদের ছিল না। আমাদের দিন ছিল। আমরা ভাল খেলেই জিতেছি, এই জয়টা আমাদের প্রাপ্য ছিল। দলের সবাইকে ধন্যবাদ। সামনের ম্যাচেও (আজকের ম্যাচে) এভাবে পারফর্ম করতে পারলে আমাদের জন্য ভাল হবে।’ এখন যদি এ ম্যাচেও বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা নৈপুণ্য দেখিয়ে ম্যাচ জিতে নিতে পারেন, তাহলে সিরিজ জয়ই হয়ে যাবে বাংলাদেশের। সেই অপেক্ষাতেই আছে পুরো জাতি। এখন সিরিজ জয় না হার হবে, সেই ফয়সালা আজই হয়ে যাবে।