২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

প্রণোদনা কমেছে রফতানি খাতে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পোশাক শিল্প রফতানিতে উৎসে কর বাড়ানোর পর এবার রফতানি খাতের নগদ প্রণোদনা কমিয়েছে সরকার। চলতি অর্থবছরে রফতানিমুখী দেশীয় বস্ত্রখাতে শুল্ক বন্ড ও ডিউটি ড্র- ব্যাকের পরিবর্তে বিকল্প নগদ সহায়তা ৪ শতাংশ করা হয়েছে। গত বছর এ প্রণোদনার পরিমাণ ছিল ৫ শতাংশ। এছাড়া চামড়াজাত দ্রব্য রফতানির ক্ষেত্রে প্রণোদনা আড়াই শতাংশ কমানো হয়েছে। সোমবার এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বৈদেশিক মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত সব অনুমোদিত ডিলার ব্যাংকের কাছে পাঠানো ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, দেশের রফতানি বাণিজ্যকে উৎসাহিত করতে সরকার পূর্ববর্তী বছরের মতো চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরেরও কতিপয় পণ্য রফতানি খাতে রফতানি ভর্তুকি বা নগদ সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এ বছর ১৪টি রফতানি খাতে নগদ সহায়তা বা ভর্তুকি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সর্বনিম্ন ৩ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ পর্যন্ত সহায়তা দেয়া হবে। এক জুলাই থেকে আগামী ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত এই সুযোগ অব্যাহত থাকবে।

ওই প্রজ্ঞাপনে দেখা যায়, চলতি অর্থবছরে রফতানিমুখী দেশীয় বস্ত্রখাতে শুল্ক বন্ড ও ডিউটি ড্র ব্যাকের পরিবর্তে ৪ শতাংশ হারে বিকল্প নগদ সহায়তা দেয়া হবে। যা গত অর্থবছরের তুলনায় এক শতাংশ কম। সমহারে কমানো হয়েছে বস্ত্রখাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের অতিরিক্ত সহায়তাও। এ খাতে সহায়তা ৫ শতাংশের পরিবর্তে দেয়া হবে ৪ শতাংশ।

অন্যদিকে রফতানি আয়ের ওপর কর হার দশমিক ৬ শতাংশ নির্ধারণ করে আরেক প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত বছর এই কর হার ছিল দশমিক ৩ শতাংশ।

সবচেয়ে বেশি কমানো হয়েছে হাড়ের গুঁড়া রফতানি প্রণোদনা। গত বছর যেখানে ১৫ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হয়েছে এবার পাবে মাত্র ৫ শতাংশ। এখাতের প্রণোদনা এক বছরেই ১০ শতাংশ কমানো হয়েছে।