মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

ঈদে অনন্য শাড়ি পাঞ্জাবি

প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৫
  • তৌফিক অপু

ঈদের রঙে রেঙে উঠেছে সবার মন। ঈদকে সামনে রেখে তাই সবাই ছুটছে শুধু শপিংমলের দিকে। সকলের পথ যেন এসে থেমেছে বর্ণাঢ্য সাজে সেজে ওঠা শপিংমল প্রাঙ্গণে। যানজটের ধকল সয়ে, যানবাহনের ক্রাইসিস মেনে নিয়ে কেউ একা, কেউ দলবেঁধে, কেউবা সপরিবারে পছন্দের পোশাকটি কিনে নিতে ফ্যাশন হাউস থেকে শুরু করে বিভিন্ন মার্কেট, ফুটপাথে কেনাকাটার উদ্দেশ্যে ঘুরে ঘুরে সময় পার করে দিচ্ছে।

ঈদ বলে কথা। বছর ঘুরে ঈদ আসে এক অনাবিল আনন্দের গাঢ় উদ্দীপনা আর উচ্ছ্বাস নিয়ে। এই উচ্ছ্বাসটাকে বুকে ধারণ করে সব বয়সী নারী-পুরুষের মধ্যে শুরু হয়ে যায় সাধ্যমতো কেনাকাটার ধুম। তবে কেনাকাটার ছন্দময় স্পন্দনটা বেজে ওঠে ড্রেস হাউসগুলোতে।

বাঙালী নারীর কাছে অন্যসব পোশাকের আকর্ষণ অসীম হলেও শাড়ির প্রতি তাদের আগ্রহ অপরিসীম। ঈদ ছাড়াও ঘরোয়া কিংবা কোন পার্টিতে এ্যাটেন্ড করার আগে পার্টি অনুযায়ী শাড়ির উজ্জ্বল ছবিটাই চোখের সামনে ভেসে ওঠে।

রমজানের শুরুতেই দেশের বিভিন্ন মার্কেটে ক্রেতাদের আনাগোনা শুরু হয়। ক্রেতাদের রুচি ও চাহিদার প্রতি লক্ষ রেখে দেশের প্রতিটি ফ্যাশন হাউস, বুটিক হাউস এবং দোকানে শোভা পায় দেশীয় ফেব্রিক্স-এর নতুন ডিজাইনের পোশাক। ঈদ পোশাকের মধ্য অন্যতম হলো পাঞ্জাবি। তরুণদের ঈদের পোশাকের তালিকায় প্রথমেই স্থান পায় পাঞ্জাবি। ঈদের দিনের শুরু হয় এ পোশাকের মাধ্যমে। সকালে পাঞ্জাবি পরে সকলে একসঙ্গে ঈদের নামাজ পরতে যান। তাই প্রত্যেক তরুণেরা চান পাঞ্জাবী যেন হয় একটু ব্যতিক্রমী ও ভিন্ন ডিজাইনের। ক্রেতাদের পছন্দের প্রতি লক্ষ রেখে ফ্যাশন হাউসগুলো এবার নিয়ে এসেছে গুণগত মানের, বাহারি ডিজাইনের পাঞ্জাবি। এসব পাঞ্জাবি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে খাদি, কটন, এন্ডি, এন্ডিসিল্ক, জয়সিল্ক, দুপিয়ান, নিট ইত্যাদি ফেব্রিক্স। ঈদে পাঞ্জাবির জন্য ইজি, সুইসুতা, অর্ণব, আড়ং, লংলা, লা-রিভা, ক্যাটস আই, ক্রে-ক্রাফট, রঙ ক্রেতাদের অন্যতম পছন্দের ফ্যাশন হাউস।

তবে সবকিছু, সব অনুষ্ঠান ছাপিয়ে ঈদে শাড়ি পরার মজাটাই আলাদা। আর তাই ক’দিনের যাচাই-বাছাই, অপেক্ষার পর শুরু হয়ে গেছে সংগ্রহপর্ব। যুগ যুগ ধরে বাঙালী রমণীদের কাছে শাড়ি এক অনন্য ভূষণ হিসেবে সমাদৃত। সেই ধারাটা এখন যেন আরও এক অনবদ্য মাত্রায় হয়ে উঠেছে অতুলনীয়। একদিকে নারীর রুচি, পছন্দ, ভাললাগায় যেমন এসেছে মার্জিত ছাপ, তেমনি তাদের মধ্যে ফ্যাশন চেতনাও বেড়েছে পূর্বাপেক্ষা বহুগুণ। আর তাই শাড়ির আদি রূপেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন তথা এক সময়কার সাদামাটা শাড়িটাই এখন আধুনিক ডিজাইন ও কারুকাজে হয়ে উঠেছে অনিন্দ্যসুন্দরের প্রতিচ্ছবি। মসলিন, জামদানি, টাঙ্গাইল শাড়ির যে ঐতিহ্য বাংলার পরিধেয় বস্ত্র অঙ্গনে ছিল গৌরবময় অধ্যায়, সেই অধ্যায়ের দিক বদল হলেও সেই ঐতিহ্য থেকে বাঙালীর শাড়ি সংস্কৃতি পিছিয়ে না পড়ে একটু ভিন্ন আঙ্গিকে নতুন ডাইমেনশন নিয়ে তৈরি করেছে এক সুবিশাল প্ল্যাটফর্ম, যে প্ল্যাটফর্মে এখন সারবন্দী বাঙালী ললনার উপস্থিতি পরিলক্ষিত হতে দেখা যায় স্বমহিমায়।

আর ক’দিন বাদেই ঈদ। ঈদের আনন্দ-আবেগের ধারায় সিক্ত এখন সবাই। এখন আর অপেক্ষার সুযোগ নেই। তাই বাঙালী নারীর প্যাণোচ্ছ্বল উপস্থিতি প্রবলভাবে শপিংমলের ফ্যাশন হাউসগুলোতে চোখে পড়ছে। ঢাকার নিউমার্কেট, গাউছিয়া, চাঁদনীচক, ধানম-ি হকার্স, বেইলী রোড, বসুন্ধরা সিটি থেকে শুরু করে অন্যান্য নামী-দামী শপিংমলের অভিজাত শাড়ির শোরুমগুলোতেও পছন্দের শাড়ি সংগ্রহের লক্ষ্যে ভিড় করছেন বিভিন্ন বয়সের নারীরা। পাশাপাশি ফ্যাশন হাউসগুলোও শাড়িতে নতুন নতুন কারুকাজের সমাবেশ ঘটিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে আধুনিক বোধ ও মার্জিত রুচির সমন্বয় ঘটিয়ে ফ্যাশনেবল ফ্লেবার ফোটা শাড়িটা সাজিয়ে দিয়েছে ডিসপ্লেতে কিংবা নির্বাক ম্যানিকুইনের অবয়বে। প্রতিটা ফ্যাশন হাউস তার নিজস্ব অভিস্পৃহা, প্রেক্ষিতকে আলোকিত করে যেমন শাড়িকে বর্ণময় রূপে উপস্থাপন করছে, তেমনি ঢাকাই জামদানি, মিরপুরের বেনারসি, কাতান, টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ি, রাজশাহী সিল্কসহ দেশের ঐতিহ্যময়ী শাড়িও শাড়িবিতানগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন দামে। অন্যান্য শাড়ির সঙ্গে এই ঈদে টিস্যু, জুটসিল্ক শাড়ির কদরও পরিলক্ষিত হচ্ছে। রয়েছে টেক্সটাইলের প্রিন্টের শাড়িও। সুতি, সিল্ক, হাফসিল্ক, হ্যান্ডপেইট, ব্লকপ্রিন্ট, এমব্রয়ডারি, এ্যাপ্লিক, বালচুরিসহ বিভিন্ন অভিজাত নাম ধারণকারী শাড়ির গুঞ্জরনে জেগে উঠেছে যেন শাড়ির শোরুমগুলো। শুধু কি ঢাকা, এই উচ্ছ্বাসের ঢেউ লেগেছে মফস্বল শহরগুলোতেও। সেসব শহরেও চলছে পছন্দের শাড়িটি সংগ্রহ করার আকণ্ঠ ধুম। কেনাকাটার এই ধুম চলবে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত। অন্যান্য পোশাকের পাশাপাশি বাঙালী রমণী তার চিরায়ত পছন্দটা প্রকাশ করবে পছন্দের শাড়ি ক্রয়ের মধ্য দিয়ে। ঈদের দিনে তাই প্রিয় শাড়িটা পরেই তার মনটা ভরে যাবে অপার আনন্দে, অনন্ত ভাললাগায়।

ছবি : নাসিফ শুভ ও রুদ্্র ইউসুফ

মডেল : আইরিন, রাসেল, নাদিয়া নদী, ইকরাম, পুষ্পিতা, নিশা ও ডালিম

প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৫

১২/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: