মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

উৎপাদন সরবরাহ স্বাভাবিক থাকলেও ফের বাড়ছে চায়ের দর

প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ দেশে চা উৎপাদনের ভরা মৌসুম এখন। বেড়েছে সরবরাহ। তবুও রমজানের শেষ দিকে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় পণ্যটির দাম আবারও বাড়ছে।

মুসলমানদের সিয়াম সাধনার মাস রোজার শুরুতে চাহিদা কম থাকায় চায়ের দর নিম্নমুখী ছিল। কিন্তু সম্প্রতি অনুষ্ঠিত গত দুই নিলামের চিত্র চায়ের দামদরে হেরফের তৈরি করেছে। ক্রেতা সরগরম পরিবেশে নিলামে ওঠা অধিকাংশ চা বিক্রি হয়ে গেছে।

চলতি বছরের শুরুতে তীব্র দাবদাহের কারণে দেশের চা বাগানগুলোতে উৎপাদন অনেকাংশে কমে যায়। ফলে নিলামেও সরবরাহ কমে যায় পণ্যটির। তবে বর্তমানে চা উৎপাদনের ভরা মৌসুম হওয়ায় নিলামে পণ্যটির সরবরাহ বেড়েছে।

ন্যাশনাল টি ট্রেডার্সের (এনবিএল) কর্মকর্তা অঞ্জন দেব বর্মণ জানান, গত বছরের কয়েকটি নিলামে চায়ের সরবরাহ সন্তোষজনক ছিল না। শেষ কয়েকটি নিলামে ভাল মানের চা সরবরাহ বেড়েছে। এবারের চায়ের মান ভাল হওয়ায় নিলামে দামও কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাংলাদেশ টি ট্রেডার্স এ্যাসোসিয়েশনের (বিটিটিএ) তথ্যানুসারে, চলতি ২০১৫-১৬ সালের ১ম নিলামে প্রতি কেজি চা গড়ে ২০২ টাকা ৫৯ পয়সা, দ্বিতীয় নিলামে ২০৬ টাকা ৯৩ পয়সা, তৃতীয় নিলামে ২০৮ টাকা ১১ পয়সা, চতুর্থ নিলামে ২১১ টাকা ৪২ পয়সা, পঞ্চম নিলামে ২০৯ টাকা ৭৬ পয়সা ও ষষ্ঠ নিলামে ২০১ টাকা ৪৯ পয়সায় বিক্রি হয়।

নিলাম সূত্রে জানা গেছে, ৭ জুলাই বড় দানা চায়ের গড় দাম ছিল কেজিপ্রতি ১৮৮ হতে ১৯৫ টাকা, মাঝারি দানা ১৯৫ থেকে ১৯৮, ছোট দানা ১৯৫ থেকে ১৯৮ ও গুঁড়ো চা ১৭৩ থেকে ১৭৮ টাকা। সপ্তম নিলামে চায়ের গড় দাম ছিল ১৯৩ টাকা ৮৭ পয়সা।

এদিকে চলতি বছরের শুরুর দিকে তীব্র দাবদাহের কারণে ভাল মানের চা উৎপাদন ব্যহত হয় ও সরবরাহ কমে যায়। সরবরাহ ঘাটতির কারণে এবং হঠাৎ করে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সাম্প্রতিক নিলামে পণ্যটির দর বেড়েছে বলে জানালেন খাতুনগঞ্জের চা ব্যবসায়ী রেজাউর রহমান ভূঁইয়া। তিনি বলেন, সরবরাহ ঘাটতি ও হঠাৎ করে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় চায়ের দাম বাড়ছে। এবারের চায়ের মান আগেকার চেয়ে ভাল। সে কারণেও পণ্যটির দর বেড়েছে। খুচরো দামে কি ধরনের পরিবর্তন হতে পারে এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, কেজিতে ৩-৫ টাকা বাড়তে পারে। এর বেশি নয়।

বিটিটিএ বলছে, গত ৭ জুলাই চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত চায়ের সর্বশেষ নিলামে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় প্রায় ৯০ শতাংশ চা বিক্রি হয়ে গেছে। ওই নিলামে প্রায় সাড়ে ১২ লাখ কেজি চা বিক্রি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, আগামী ১৪ জুলাই চট্টগ্রাম আগ্রাবাদের চা নিলাম কেন্দ্রে ২৩ হাজার ২০৩ প্যাকেজে ১২ লাখ ৭১ হাজার ৫২৪ কেজি চা বিক্রির জন্য তোলা হবে।

প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৫

১২/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: