মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

পুঁজিবাজারে লেনদেন বেড়েছে ২৪ দশমিক ৫৭ ভাগ

প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৫
  • সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গত সপ্তাহে বেশিরভাগ দিনেই দেশের দুই পুঁজিবাজারে উর্ধমুখী প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে। বেশিরভাগ কোম্পানির দর বাড়ার কারণে সার্বিক সূচকের পাশাপাশি বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণও বেড়েছে। এদিকে সাপ্তাহিক ব্যবধানে প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বাজার মূলধন বেড়েছে ২ হাজার ৬৪১ কোটি টাকারও বেশি। একইভাবে ডিএসইতে আগের সপ্তাহের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ২৪ দশমিক ৫৭ ভাগ।

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, সপ্তাহ শেষে ডিএসইর সার্বিক সূচকের অবস্থান দাঁড়ায় ৪ হাজার ৫৯৯ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক অবস্থান করে ১ হাজার ৭৯৫ পয়েন্টে এবং শরিয়াহ সূচক অবস্থান করছে ১ হাজার ১৩৩ পয়েন্টে। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইর সার্বিক সূচক অবস্থান করেছিল ৪৫৭২ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক অবস্থান করে ১ হাজার ৭৭২ পয়েন্টে এবং শরিয়াহ সূচক অবস্থান করে ১১২১ পয়েন্টে। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইর সার্বিক সূচক বেড়েছে ০.৬০ শতাংশ বা ২৭.৩৩ পয়েন্ট, ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ১.২৬ শতাংশ বা ২২.৩৪ পয়েন্ট এবং শরিয়াহ সূচক বেড়েছে ১.১৩ শতাংশ বা ২৬.৬৯ পয়েন্ট।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া মোট ৩২৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৬টির, কমেছে ১৩২টির, অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টি এবং লেনদেন হয়নি ২টি কোম্পানির। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৩৪৮ কোটি ৭৫ লাখ ৩৮ হাজার ৮৮৫ টাকা। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৮৮৫ কোটি ৪১ লাখ ৯৩ হাজার ৬৫৩ টাকা। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৪৬৩ কোটি ৩৩ লাখ ৪৫ হাজার ২৩২ টাকা বা ২৪.৫৭ শতাংশ।

সপ্তাহশেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ২৬ হাজার ৫৯১ কোটি ২০ লাখ ১১ হাজার ৮৯৬ টাকা। যা আগের সপ্তাহে ছিল ৩ লাখ ২৩ হাজার ৯৪৯ কোটি ৪৫ লাখ ৮৫ হাজার ৩৩৬ টাকা। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ০.৮২ শতাংশ বা ২ হাজার ৬৪১ কোটি ৭৪ লাখ ২৬ হাজার ৫৬১ টাকা।

সাপ্তাহিক লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : ইউনাইটেড এয়ার, এসিআই, অলিম্পিক এক্সেসরিজ, বেক্সিমকো, গ্রামীণফোন, ইফাদ অটোস, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, বেক্সিমকো ফার্মা, এসিআই ফর্মূলেশন লিমিটেড ও স্কয়ার ফার্মা।

দরবৃৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলো : মুন্নু সিরামিক, আরামিট সিমেন্ট, লিন্ডে বাংলাদেশ, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ, এসিআই লিমিটেড, ন্যাশনাল ফিড মিলস লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, হিডেলবার্গ সিমেন্ট ও বেঙ্গল উইন্ডসর থার্মোপ্লাস্টিক।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলো : উত্তরা ফাইনান্স, বিডি অটোকারস, ইফাদ অটোস, তুং হাই নিটিং, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স, স্টাইল ক্রাফট, তসরিফা ইন্ড্রাস্টিজ, এশিয়া প্যাসিফিক ইন্ড্রাস্টিজ ও ইউনাইটেড পাওয়ার।

এদিকে সপ্তাহশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ ম্ল্যূসূচক ০.৫৮ শতাংশ বেড়ে অবস্থান করছে ৮ হাজার ৬২৬ পয়েন্টে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন করা মোট ২৮০টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৪টির, কমেছে ১২১টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৯০ কোটি ৮৩ লাখ ৩৩ হাজার ২৪ টাকা।

আগের সপ্তাহে সিএসইর সাধারণ মূল্যসূচক ২.৭১ শতাংশ বেড়ে অবস্থান করে ৮ হাজার ৫৭৬ পয়েন্টে। সে সপ্তাহে সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছিল ১৮১ কোটি ৬৪ লাখ ৩৫ হাজার ৭৯৮ টাকা। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে সিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৯ কোটি ১৮ লাখ ৯৭ হাজার ২২৬ টাকা বা ৫.০৬ শতাংশ।

প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৫

১২/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: