১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় মাশরাফিদের


মিথুন আশরাফ ॥ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এবার হ্যাটট্রিক হার হয়ে গেছে বাংলাদেশের। দুটি টি২০’র পর প্রথম ওয়ানডেতেও হার হয়েছে। আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিকেল ৩টায় শুরু হতে যাওয়া ম্যাচটিতে যদি আবারও বাংলাদেশ হারে, ‘একহালি’ হার হয়ে যাবে। সেই সঙ্গে সিরিজ হারও হবে। তাও আবার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ হার হয়ে যাবে বাংলাদেশের। যদি জয় মিলে যায়, তাহলে সিরিজে আসবে সমতা।

সিরিজ হার না সমতা? এ প্রশ্নটি টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও উঠেছে। সেবার প্রথম টি২০-তে ৫২ রানে হারের পর দ্বিতীয় টি২০-তে ৩১ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ। সিরিজে হারে। এবার ওয়ানডে সিরিজেও প্রশ্নটি উঠছে। প্রথম ওয়ানডেতে ৮ উইকেটে হেরে গিয়ে সিরিজে পিছিয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। আজ হারলেই যে টি২০’র পর ওয়ানডে সিরিজেও হার হয়ে যাবে। তাই প্রশ্নও উঠছে, আজই সিরিজ হার হবে না সমতা আসবে। সমতায় ফিরতে পারলে বুধবার যে তৃতীয় ও সিরিজের শেষ ওয়ানডে আছে, সেটি সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ হয়ে উঠবে।

এবি ডি ভিলিয়ার্স না থাকায় ডেভিড মিলারের দিকেই দৃষ্টি রাখছেন সবাই। কিন্তু প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ ১৬০ রানে আউট হয়ে যাওয়ায় ‘কিলার’খ্যাত মিলার ব্যাটিং করার সুযোগই পাননি। সুযোগের অপেক্ষায় আছেন। সঙ্গে আজই সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে চান মিলার। শনিবার ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে মিলার বলেছেন, ‘ব্যাটিং, বোলিং কিংবা ফিল্ডিং যেই বিভাগে ভাল করা দরকার সেদিকে আমরা ভাল করতে চাই। বাংলাদেশের থেকেও আমরা আমাদের দল নিয়ে বেশি মনোযোগী। অবশ্যই কালকেই (আজ) আমরা সিরিজ নিশ্চিত করতে চাই। কিন্তু প্রথমে আমরা ম্যাচটি জিততে চাই। ম্যাচের প্রতিটি বল মনোযোগ দিয়ে খেলতে চাই। দশ ওভার করে ম্যাচের ভাগ্য ঠিক করতে হবে। ছোট ছোট টার্গেটে এগিয়ে ম্যাচ শেষ করতে চাই। তাহলেই ম্যাচের ফলাফল আসবে।’

নিজের সম্পর্কে মিলার বলেন, ‘এই সিরিজেই কিলার মিলারকে দেখা যেতে পারে। একটু হয়ত অপেক্ষা করতে হবে। ব্যাটিং করার জন্য মুখিয়ে আছি। দলের সাফল্যে সব সময় ভূমিকা রাখতে চাই। দলের ভেতরে ও বাইরে তরুণ ক্রিকেটারদের সমর্থন করতে চাই। এই সম্মানটুকু আমি পেতে চাই।’

মিলার বুঝতে পারছেন, প্রথম ওয়ানডে জেতায় এখন দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশ শক্তিশালী রূপেই ফিরতে পারে। আবির্ভাব হতে পারে পুরনো রূপেই, যে রূপ জিম্বাবুইয়ে, পাকিস্তান, ভারতের বিপক্ষে দেখিয়েছে বাংলাদেশ। তাই তো মিলার বলেছেনও, ‘তারা (বাংলাদেশ) ছেড়ে কথা বলবে না। লড়াই করবে। তারা ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ভাল করেছে। আগামীকাল (আজ) তারা আমাদের ওপর চড়াও হয়ে খেলতে চাইবে। আমাদের যে কোন পরিকল্পনা ভেস্তে দিতে চাইবে। আমরা জানি এটা আমাদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ এবং আশা করছি আমরা আমাদের সেরাটা দিতে পারব।’

বাংলাদেশ দলের অলরাউন্ডার নাসির হোসেনও দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জেতার আশাই করছেন। প্রথম ওয়ানডের স্মৃতি সামনে তুলে ধরে বলেছেন, ‘আমরা যেভাবে খেলছিলাম, সব ঠিক ছিল। আগের সিরিজগুলো যেভাবে খেলে আমরা জিতেছি, সেসব আমাদের মাথায় আছে। আসলে আমরা ব্যাটসম্যানরা রান করতে পারিনি। ব্যাটসম্যানরা রান পেলেই আর কোন সমস্যা থাকবে না। খারাপ খেললে অনেকে অনেক ধরনের কথা বলবে। এটাই স্বাভাবিক। আমি মনে করি, শেষ ওয়ানডেটায় আমাদের খারাপ দিন গেছে। ওখান থেকে আমাদের নিজেদেরই কামব্যাক করতে হবে। আর কোনকিছু বদলায়নি। দলে সব ঠিক আছে। সবাই আত্মবিশ্বাসী। একটা জিতলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমাদের সামর্থ্য আছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর মতো। এটা সবচেয়ে বড় কথা। ক্লিক করতে পারছি না। ব্যাটসম্যানরা ক্লিক করলে হারানো সম্ভব। এক সময় ছিল যখন সাকিব ভাই, মুশফিক ভাই, তামিম ভাই ভাল খেললে বাংলাদেশ জিতত। এখন আর ওই ব্যাপারটি নেই। অনেকেই আছেন ম্যাচ জেতানোর। কামব্যাক করা সম্ভব। সবাই জানে কিভাবে সম্ভব। আমার মনে হয় না খুব বেশি পরিবর্তনের দরকার আছে। শুধু মেন্টালি একটু ঠিক হলেই হবে।’

সেই মনোবল চাঙ্গা হয় ভাল খেলা থেকে। কিন্তু বাংলাদেশ যে প্রথম ওয়ানডেতে ভালই খেলতে পারল না। ১৭ রানে গিয়ে টানা তিন বলে তিন উইকেট গেল। এরপর ১৬০ রানেই ইনিংসের দম ফুরাল। একজন ব্যাটসম্যানও হাল ধরতে পারেননি। এমনকি বড় জুটিও হয়নি। এমনটি হলে আবারও বাংলাদেশ যে হারবে তা বলেই দেয়া যায়। টানা তিন ওয়ানডে সিরিজ জয়ের পর আজ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশকে সিরিজ হার এড়ানোর মিশনেই নামতে হচ্ছে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: