মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

শেখ জামালের আয়েশী জয়

প্রকাশিত : ১১ জুলাই ২০১৫
  • শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে জিততে পারল না ফরাশগঞ্জ, ফরাশগঞ্জ ২-২ রহমতগঞ্জ, শেখ জামাল ৫-১ চট্টগ্রাম আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ছোট দলের বড় লড়াই। নির্দিষ্ট করে বললে পুরান ঢাকার দুই ‘গঞ্জ’-এর দ্বৈরথ। আর তাতে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি দারুণ খেলে ড্র করল ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাবের সঙ্গে। শুক্রবার ‘মান্যবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ’ ফুটবলের দ্বিতীয় পর্বের (ম্যাচ নম্বর ৭২) খেলায় ফরাশগঞ্জ-রহমতগঞ্জ ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়। ফরাশগঞ্জ ম্যাচের প্রথমার্ধে এগিয়েছিল ১-০ গোলে। লীগের প্রথম পর্বের মোকাবেলায় ফরাশগঞ্জকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল রহমতগঞ্জ। ফলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত শুক্রবারের ম্যাচে জিতে প্রথম পর্বের হারের প্রতিশোধটা কড়ায়গ-ায় নিতে পারল না ‘নীলকুঠি’ খ্যাত ফরাশগঞ্জ। ‘আইলো’, ‘ডাইলপট্টি’ এবং ‘জায়ান্ট কিলার’ খ্যাত রহমতগঞ্জের এই ড্র যেমন ছিল বিস্ময়কর, তেমনি দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও দুই গোল হজম করাটা ফরাশগঞ্জের জন্য ছিল চমকপ্রদ। কেননা, শক্তির বিচারে প্রতিপক্ষের চেয়ে এগিয়েছিল রহমতগঞ্জ। আর রহমতগঞ্জকে হারিয়ে চলমান লীগে নিজেদের অধরা প্রথম জয়টি কুড়িয়ে নিতে ব্যর্থ হলো ২০১১ সালের স্বাধীনতা কাপের চ্যাম্পিয়ন দল ফরাশগঞ্জ।

একই দিনে চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত অপর খেলায় শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব লিমিটেড ৫-১ গোলে অনায়াসেই হারিয়েছে স্বাগতিক চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেডকে। প্রথমার্ধে ‘বেঙ্গল ইয়োলোস’ খ্যাত জামাল এগিয়েছিল ৩-০ গোলে। ৯ মিনিটে ইয়ামিন মুন্নার গোলে এগিয়ে যায় জামাল। এমেকা ডার্লিংটন ১৭ ও ৯০+১ মিনিটে করেন দুই গোল (লীগে এমেকার গোলসংখ্যা ১১)। ওয়েডসন এ্যানসেলমে ৪১ এবং ৫১ মিনিটে দুই গোল করেন। ফলে তিনি ১৫ গোল করে টপকে যান লীগের সর্বোচ্চ গোলদাতা ব্রাদার্সের অগাস্টিন ওয়ালসনকে। ৮৯ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনীর একমাত্র গোলটি করেন হানিফ। এই জয়ে ১৪ ম্যাচে দশম জয়ে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থাকল জামাল। আর চট্টগ্রাম আবাহনীর এটা ১৪ ম্যাচে নবম হার। ৭ পয়েন্ট নিয়ে আছে আগের দশম স্থানেই। ‘দুই গঞ্জ’-এর ম্যাচে খেলা শুরুর ৪৪ সেকেন্ডেই এগিয়ে যায় ফরাশগঞ্জ। ডিফেন্ডার ফরহাদুজ্জামান বাবুর কর্র্নারে তীব্র হেডে রহমতগঞ্জের জালে বল পাঠান নাইজিরিয়ান মিডফিল্ডার একিনইয়েলে পিটার (১-০)।

৫২ মিনিটে ফারাশগঞ্জের ফরোয়ার্ড ইউসুফের কাটব্যাক থেকে গড়ানো শটে পাশবন মোল্লার বাঁ পায়ের গড়ানো শট রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক আল আমিন ঝাঁপিয়ে পড়েও আটকাতে পারেননি। বল চলে যায় জালে (২-০)। ৭৮ মিনিটে বক্সে পাশবন মোল্লার বল বিপদমুক্ত করতে গিয়ে ফরাশগঞ্জের নাইজিরিয়ান ডিফেন্ডার ডেভিড উডোহ ব্রাইট আত্মঘাতী গোল করেন (১-২)। ইনজুরি টাইমে বদলি ফরোয়ার্ড নুরুল আবসারের ক্রস থেকে বল পেয়ে তীব্র শটে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান রহমগঞ্জের বদলি ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ হেলাল (২-২)। শুক্রবার সারাদেশে দিনভর বৃষ্টি হওয়াতে আশঙ্কা করা হয়েছিল দুটি ম্যাচই বুঝি স্থগিত হবে। কিন্তু খেলা শুরুর ঘণ্টাখানেক আগে বৃষ্টি থেমে গেলে মাঠ খেলার জন্য মোটামুটিভাবে উপযোগী করা হয়। তারপরও মাঠে কিছুটা জল জমে থাকায় ও পিচ্ছিল থাকায় দুই ভেন্যুতেই চার ফুটবলারেরই খেলতে সমস্যা হয়।

নিজেদের ত্রয়োদশ ম্যাচে এটা ফরাশগঞ্জের পঞ্চম ড্র। ৫ পয়েন্ট নিয়ে তারা এখনও পয়েন্ট টেবিলের তলানীতে (১১ দলের মধ্যে)। তাদের সমান পয়েন্ট চট্টগ্রাম আবাহনীরও। তবে গোল তফাতে এগিয়ে থাকায় চট্টগ্রাম আবাহনী আছে দশম অবস্থানে। পক্ষান্তরে নিজেদের ত্রয়োদশ ম্যাচে এটা রহমতগঞ্জেরও পঞ্চম ড্র, ১১ পয়েন্ট নিয়ে এখনও তারা আছে আগের অষ্টম স্থানেই।

প্রকাশিত : ১১ জুলাই ২০১৫

১১/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: