১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ফেঁসে যেতে পারেন বরিশাল সিটি মেয়র কামাল


স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা ও বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আহসান হাবিব কামালের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে অস্থায়ী ভিত্তিতে কর্মচারীদের চাকরি স্থায়ীকরণের নিয়োগ প্রক্রিয়া, লোগো পরিবর্তন করে বিএনপির নির্বাচনী ‘ধানের শীষ’ প্রতীক ব্যবহারসহ নানা অভিযোগের সূত্রধরে তদন্তে নেমেছেন মন্ত্রণালয়ের গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি। সূত্রমতে, ইতোমধ্যে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব পরিমল চন্দ্র দেবের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটির সদস্যরা সিটি কর্পোরেশনে এসে প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছেন। তদন্ত শেষে আগামী সাত দিন অর্থাৎ ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দাখিল করবেন বলে জানা গেছে। তদন্তের শুরুতেই মেয়র আহসান হাবিব কামালের বিরুদ্ধে বেশকিছু অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। আর এ কারণে ফেঁসে যেতে পারেন মেয়র কামাল। অভিযোগ প্রমাণিত হলে মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্তও হতে পারেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির মৎস্য বিষয়ক সম্পাদক ও মেয়র আহসান হাবিব কামাল।

সিটি কর্পোরেশনের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, তদন্ত কমিটি অস্থায়ীভাবে কর্মচারীদের (মাস্টার রোল) স্থায়ীকরণের নিয়োগ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করছেন। পাশাপাশি চুপিসারে বিসিসি’র লোগো পরিবর্তন করে বিএনপির নির্বাচনী ‘ধানের শীষ’ প্রতীক ব্যবহার করার বিষয়টিও অধিক গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখছেন। সূত্রে আরও জানা গেছে, এ দুটি বিষয়ের ওপরই বিসিসি’র কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জোর দিয়ে জেরা করছেন তদন্ত কমিটির সদস্যরা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিসিসি’র এক কর্মকর্তা জানান, তদন্ত কমিটির প্রধান তাকে কয়েক দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। এছাড়াও বিসিসি’র কার্যক্রমে মেয়রপুত্র মোঃ রূপমের হস্তক্ষেপ রয়েছে কিনা সে বিষয়েও তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। অপর একটি সূত্রে জানা গেছে, বিসিসিতে কর্মরত মেয়র আহসান হাবিব কামালের ঘনিষ্ঠ একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারীর দিকেও তীক্ষè নজর রেখেছেন তদন্ত কমিটি। বিসিসিতে যোগদানের পরপরই তারা কিভাবে রাতারাতি অর্থশালী বনে গেছেন সে সম্পর্কেও খোঁজ নেয়া হচ্ছে। উল্লেখ্য, সম্প্রতি বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের লোগো চুপিসারে পরিবর্তন এবং কর্মচারীদের স্থায়ীকরণের নিয়োগ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে মেয়র আহসান হাবিব কামালের বিরুদ্ধে।