২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আমতলী ফেরিঘাট যেন মরণফাঁদ


নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী (বরগুনা), ৯ জুলাই ॥ বরগুনার সঙ্গে সড়কপথে আমতলীর যোগাযোগের মাধ্যম ৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ পায়রা নদীর ফেরি। নদী পারাপারে লক্কড়-ঝক্কড় মার্কা ফেরি রয়েছে। আমতলী সড়কের উচ্চতার তুলনায় ফেরিঘাট নিম্নমুখী। এ কারণে স্বাভাবিক জোয়ারের তুলনায় পায়রা নদীর পানি বৃদ্ধি পেলে ফেরির গ্যাংওয়ে তলিয়ে যায়। জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেলে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। জনগণকে পড়তে হয় সীমাহীন দুর্ভোগে। বৃহস্পতিবার পূর্ণিমার ‘জো’ এবং লঘুচাপের প্রভাবে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে পানি বৃদ্ধি পেয়ে গ্যাংওয়ে তলিয়ে গেছে। জানা গেছে, ভৌগলিক কারণে আমতলী উপজেলার উপর দিয়ে কলাপাড়া-কুয়াকাটা ও বরগুনা জেলা শহরের সঙ্গে সড়ক পথে যোগাযোগের গুরুত্বপূর্ণ স্থান। ঢাকা, বরিশাল, পটুয়াখালী, কলাপাড়া ও কুয়াকাটার সঙ্গে সড়ক পথে বরগুনা যেতে হলে আমতলী ফেরি পার হতে হয়। সড়ক পথে বরগুনা যাওয়ার বড় বিড়ম্বনা হচ্ছে আমতলী ফেরিঘাট। পায়রা নদীতে লক্কড়-ঝক্কড় মার্কা ফেরি ১ ঘণ্টা পরপর চলাচল করছে। এ ফেরিটি মাঝে মধ্যে মাঝ নদীতে গিয়ে ইঞ্জিন খারাপ হয়ে থেকে যায়। পরে জোয়ার অথবা ভাটির টানে অন্য দিকে চলে যায়। এভাবে বছরের পর বছর ফেরিটি চলছে।

খুলনায় দুই কলেজ ছাত্রকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ সিটি পলিটেকনিক্যাল কলেজের দুই শিক্ষার্থীকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার সকালে খুলনার খালিশপুর থানার নেসারিয়া মাদ্রাসার কাছের একটি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত ছাত্ররা হলেনÑ প্রান্ত বিশ্বাস (১৯) ও মিঠুন (২০)। প্রথমে তাদের খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকে পুলিশ এখনও আটক করতে পারেনি।

খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আনোয়ার হোসেন জানান, কি কারণে এবং কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ। গুরুতর অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তাদের বাড়ি বাগেরহাট জেলার চিতলমারী থানা এলাকায়। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে ওসি জানান।

বরিশালে মামলার বাদীকে হত্যার হুমকি

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করে বিপাকে পড়েছেন জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান হারুন-অর রশিদ হাওলাদার। আসামি ও তাদের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা মামলা প্রত্যাহারের জন্য তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি অব্যাহত রেখেছেন। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হারুন অর-রশীদ অভিযোগ করেন, পূর্বশত্রুতার জেরধরে প্রভাবশালী মোজ্জামেল হক তালুকদার নাসির উদ্দিন খান ও হাসান আহম্মেদ নয়নের নেতৃত্বে তাদের সহযোগী সন্ত্রাসীরা ১৮ জুন রাতে তার ওপরে হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে।