২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

পরমাণু আলোচনায় ইরানের নতুন প্রস্তাবে খুশি নয় পশ্চিমারা


ইরান ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে পরমাণু আলোচনায় মতবিরোধ নিরসনে গঠনমূলক সমাধানের প্রস্তাব করেছে। ইরানিয়ান স্টুডেন্টস নিউজ এজেন্সি (আইএসএনএ) বুধবার এ কথা জানায়। তবে পশ্চিমা কর্মকর্তারা আভাস দিয়েছেন যে, তারা তেহরানের কাছ থেকে নতুন কিছু জানতে পারেননি।

ইরান এবং বিশ্বশক্তিগুলো ইরানের পরমাণু কর্মসূচী প্রশ্নে ১২ বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা অচলাবস্থার অবসান ঘটিয়ে একটি চূড়ান্ত চুক্তিতে উপনীত হতে শেষ পর্যায়ের আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। আলোচনার লক্ষ্য ওই কর্মসূচীতে অন্তত ১০ বছরের নিয়ন্ত্রণ আরোপের বিনিময়ে অবরোধ প্রত্যাহার করা। খবর ইয়াহু নিউজের।

একজন অজ্ঞাতপরিচয় ইরানী কূটনীতিক আইএসএনএকে জানান, ‘ইরান অবশিষ্ট মতপার্থক্য দূরীকরণে গঠনমূলক সমাধানের প্রস্তাব পেশ করেছে। আমরা আমাদের বেঁধে দেয়া ন্যূনতম দাবি নিয়ে কোন নমনীয়তা দেখাব না।’

তবে পাশ্চাত্যের কর্মকর্তারা আভাস দেন যে, তারা এখন পর্যন্ত কোন নতুন প্রস্তাব পাননি। সবচেয়ে বড় ধরনের বিরোধপূর্ণ প্রশ্নের মধ্যে আছেÑ জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা, জাতিসংঘের ক্ষেপণাস্ত্র নিষেধাজ্ঞা, নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দ্রুততা এবং পরমাণু সেন্ট্রিফিউজের গবেষণা ও উন্নয়ন।

আলোচনার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ একজন পশ্চিমা কূটনীতিক বলেন, ‘আমি ইরানের কাছ থেকে নতুন কিছু পাইনি। আরেকজন পশ্চিমা কর্মকর্তা তার মন্তব্যের প্রতিধ্বনি করেন।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জরিফ অচলাবস্থা দূর করার প্রচেষ্টায় ইইউর বৈদেশিক নীতিবিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোঘেরিনির সঙ্গে ভিয়েনায় থেকে গেছেন। অপরদিকে অন্যান্য বেশিরভাগ পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাদের নিজ নিজ রাজধানীতে ফিরে গেছেন।

কেরি এবং জরিফ সোমবার রাতে জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা প্রশ্নে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ে জড়িয়ে পড়েন বলে কূটনীতিকরা জানান। তেহরান বলেছে, পরমাণু প্রশ্নের সঙ্গে প্রচলিত অস্ত্রশস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্রের কোন সম্পর্ক নেই এবং সে কারণে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে।