২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশ-দ. আফ্রিকা প্রথম ওয়ানডে আজ বৃষ্টির শঙ্কায়


বাংলাদেশ-দ. আফ্রিকা প্রথম ওয়ানডে আজ বৃষ্টির শঙ্কায়

মিথুন আশরাফ ॥ এমনই অবস্থা দাঁড় হয়ে গেছে, হার-জিত নয়; আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বেলা ৩টায় শুরু হতে যাওয়া ম্যাচটি শেষপর্যন্ত হবে কি হবে না, এ নিয়েই সবার আগে ভাবতে হচ্ছে। হঠাৎ করে বুধবার বিকেল থেকে যে বৃষ্টি শুরু হয়েছে, তা আর থামছেই না। চলছে তো চলছেই। মাঝে মধ্যে আবার ঝুম বৃষ্টিও পড়ছে। বৃহস্পতিবার এমনই অবস্থা হলো, দুপুরে তাও বাংলাদেশ দল ইনডোরে ব্যাটিং অনুশীলন করল, বৃষ্টির অবস্থা দেখে দক্ষিণ আফ্রিকা দল তো অনুশীলনই বাতিল করে দিল! বৃহস্পতিবার অনুশীলন নিয়ে দুই দল করুণ অবস্থার মধ্যেই পড়েছে। বৃষ্টিতে এই অবস্থা আজও চলতে পারে। এমনকি ম্যাচ না হওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না।

ম্যাচ না হওয়ার শঙ্কা যখন থাকছে, তখন দুই দলের মধ্যে বৃষ্টি নিয়ে ভাবনাও থাকছে। যদিও প্রকৃতির উপর কাররই হাত নেই। এরপরও খেলা যদি না হয় তাহলে দুই দলের ভেতর আফসোস থাকবেই। সবাই চায় খেলতে। আবার নেই কোন রিজার্ভ ডে। সর্বশেষ ২০ ওভার পর্যন্ত খেলানো যায় কি না তা দেখা হবে। তাও যদি না হয় তাহলে খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হবে।

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এ নিয়ে বলেছেন, ‘আবহাওয়া নিয়ে তো কোন কিছু করার নেই। দুই দলকে তা গ্রহণ করতে হবে।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘সিরিজটি আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।’ তাতেই বোঝা গেল, মাশরাফির ভাবনায় বৃষ্টি কাজ করছে। ম্যাচের আগেরদিন মাঠে অনুশীলনই করতে পারলেন না বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। দুপুর ১২টায় হালকা বৃষ্টির মধ্যেই ফুটবল খেলা গেছে। কিন্তু তাতে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং অনুশীলন হয় না। তাই ইনডোরেই শুধু ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিকরা।

বাংলাদেশের জন্য ওয়ানডে সিরিজটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ খুবই ভাল দল। পাকিস্তান, ভারতকে সিরিজে হারানোর পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অন্তত একটি ওয়ানডে জিতে তা প্রমাণও করতে হবে। এ সিরিজে একটি ম্যাচ জিতলে আবার সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যে র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা আটে থাকতে পারলে ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলা নিশ্চিত করা যাবে, তা নিশ্চিত হবে। তখন পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ মিলে যতই ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করুক, তিনজাতি সিরিজ খেলে যতই বাংলাদেশকে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৭ নম্বর থেকে ৯ নম্বরে নামানোর চেষ্টা করুক; তা আর পারবে না। অবশ্য বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের কোন ম্যাচই যদি না হয় তাহলেও খারাপ হয় না। কোন দলেরই রেটিংয়ে কোন পরিবর্তন ঘটবে না।

দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক হাশিম আমলার অবশ্য বৃষ্টি নিয়ে বেশিই চিন্তা হওয়ার কথা। দলের অধিনায়ক ও বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স নেই। তার অনুপস্থিতিতে যতই ব্যাটিংয়ে প্রভাব পড়ুক, সিরিজ জেতার আশা প্রোটিয়াদেরই আছে। এখন যেহেতু অধিনায়ক আমলা, বৃষ্টি হতে থাকলে সিরিজ জেতার সুযোগটিও হাতছাড়া হবে। সেই সুযোগটি হাতছাড়া নিয়ে কী চিন্তিত নন প্রোটিয়া অধিনায়ক? কোন চিন্তার কথা বললেন না। এমনকি অনুশীলন যে করতে পারলেন না, তা নিয়েও ভাবনা নেই। আমলা বলেছেন, ‘আমি সেটা মনে করি না। আমি মনে করি সবাই অনেক প্রস্তুতি নিয়েছে। আমাদের কয়েকজন গত দুই-তিন দিন ধরে ভাল অনুশীলন করেই ওয়ানডে খেলতে নামবে। এছাড়া টি২০ খেলা ছিল।’

বৃষ্টির শঙ্কা দূর হয়ে গিয়ে যদি খেলা হয় তাহলে দুই দলই চায় জিততে। এর আগে বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে ম্যাচ হয়েছে ১৫টি। ১৩ ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছে। ১ ম্যাচে জিতেছে। ২০০৭ সালে বিশ্বকাপের সুপার এইট পর্বে গায়ানায় ঐতিহাসিক সেই জয়টি মিলেছে। আর একটি ম্যাচ হয়েছে পরিত্যক্ত। দুই দলের মধ্যকার ২০১১ সালের বিশ্বকাপে সর্বশেষ লড়াই হয়েছে। চার বছর পর আবার দুই দল ওয়ানডেতে মুখোমুখি হচ্ছে।

চার বছর পর দুই দল যখন আবার লড়াইয়ে নামবে এর আগে জয়ের আশাবাদই প্রকাশ করেছেন অধিনায়করা। মাশরাফি যেমন বলেছেন, ‘প্রথমত আমরা খেলোয়াড়রা সব সময় জিততে চাই। আমার মনে হয় আমরা যদি প্রসেস ঠিক রেখে খেলতে পারেছি বলে বিশ্বকাপ ও অন্য সিরিজে ভাল করেছি, সেটা ঠিকমতো করতে পারলে আমরা আরও ভাল করতে পারব। জেতার জন্য বেশি পরিকল্পনা না করে প্রসেস নিয়ে বেশি চিন্তা করা উচিত। শুধু একটা জয়ের কথা বললে ভুল হবে। আমরা তিন ম্যাচ জয়ের জন্য নামব। তবে কাজটা খুব কঠিন হবে। এদের থেকে সব সময় আমাদের একধাপ এগিয়ে থাকতে হবে, কিন্তু এটা বেশ কঠিন। তবে আমাদের আত্মবিশ্বাস আছে।’

জয় নিয়ে হাশিম আমলা বলেছেন, ‘আমরা কিছু বছর ধরেই এখানে অনেক সময় এসেছি। সুতরাং আমি মনে করি সবাই উপমহাদেশে খেলার বেশ অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে। এখানে খেলে আমি বাংলাদেশের বিপক্ষে কিছু রান পেয়েছি, সেটা ভাগ্যের বিষয়। আমি মনে করি আমরা ওই অভিজ্ঞতাগুলো এখানে কাজে লাগিয়ে সিরিজ জয়ের ক্ষেত্রে কাজে লাগাতে পারব। ছেলেরা টি২০ সিরিজে অনেক ভাল করেছে। সুতরাং আমি মনে করি দলের বাকিরা বেশ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই এগিয়ে আসবে। কারণ আসল অভিজ্ঞতাটা কয়েক দিন আগেই হয়েছে সবার।’

দ্বিতীয় পাওয়ার প্লে বাদ। শেষ ১০ ওভারে ৩০ গজের বাইরে ৫ ফিল্ডার রাখা যাবে। যে কোন ‘নো’ বলেই ফ্রি হিট মিলবে। বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে দিয়েই আজ আবার ওয়ানডেতে আইসিসির নতুন নিয়ম চালুও হয়ে যাচ্ছে।

১০ দিন আগের আর পরের বাংলাদেশের মধ্যে পার্থক্য বিস্তর। দশ দিন আগে যে বাংলাদেশ দল ভারতকে ২-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজে হারিয়েছে। দশ দিন পর সেই বাংলাদেশই ০-২ ব্যবধানে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরেছে। তবে টি২০ সিরিজে হেরেছে। ওয়ানডেতে নয়। এবার সেই ফরমেটে আজ খেলা শুরু হচ্ছে, যে ফরমেটে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি ভাল খেলে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: