১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজ কাল শুরু


শাকিল অহমেদ মিরাজ ॥ ‘আসল’ বললে অত্যুক্তি হবে না! সম্প্রতি যে সংস্করণে সবচেয়ে ভাল খেলছে বাংলাদেশ সেই ওয়ানডের লড়াই শুরু হচ্ছে শুক্রবার থেকে। পাকিস্তান ও ভারতের মতো দুর্ধর্ষ দুই পরাশক্তিকে উড়িয়ে দেয়ার পর এবার দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে পঞ্চাশ ওভারের দ্বৈরথে মুখোমুখি মাশরাফিবাহিনী। ২-০তে টি২০ সিরিজ জিতে নেয়ার পরও টাইগারদের সমীহ করছে প্রোটিয়ারা। বুধবার তেমনটাই বলেছেন অতিথি অলরাউন্ডার রায়ান ম্যাকলরেন। পাশাপাশি একদিবসীয় লড়াইয়ে জ্বলে ওঠার প্রত্যয় ঝরেছে স্বাগতিক তারকা তামিম ইকবালের কণ্ঠে। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুটি হবে মিরপুরের শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে, শেষটি চট্টগ্রামে।

ম্যাকলরেন বলেন, ‘টি২০র মতো কাজটা সহজ হবে না, কারণ সম্প্রতি ওয়ানডেতে ভাল ক্রিকেট খেলছে বাংলাদেশ। ঘরের মাটিতে খুব ভয়ঙ্কর দল তারা। আমাদের তাই সেরাটা দিতে হবে।’ ওয়ানডেতে মাশরাফিদের উত্তুঙ্গ হাওয়া বইতে শুরু করে গত বিশ্বকাপ থেকে। কুলীন ইংলিশদের ছিটকে দিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নেয় টাইগাররা। এরপর ঘরের মাটিতে দুই সাবেক চ্যাম্পিয়নকে নিয়ে ছেলেখেলায় মেতে ওঠে তারা। পাকিস্তানকে ‘হোয়াইটওয়াশ’ করার পর মোড়ল ভারতকে হারায় ২-১ ব্যবধানে। টি২০ ভাল না হলেও তাই ওয়ানডে ম্যাচ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী তামিম।

ব্যাটিংয়ে দলের অন্যতম ভরসা এই ন্যাটা ওপেনার বলেন, ‘কেউ চায় না হার দিয়ে শুরু করতে। যদি একটি টি২০ জিততাম, তাহলে পরিবেশ অবশ্যই অন্যরকম হতো। এমন হারের পর আসলে কারই ভাল লাগার কথা নয়। তবে সামনে ওয়ানডে, আর এ সংস্করণেই আমরা সবচেয়ে শক্তিশালী। যার জন্য গোটা দল প্রস্তুত।’ পরিসংখ্যানও স্বাগতিকদের আত্মবিশ্বাস যোগাবে। ঘরের মাটিতে শেষ ১১ ওয়ানডের ১০টিতেই জিতেছে বাংলাদেশ! তামিমের কণ্ঠেও সেই সুর, ‘টি২০ খুব একটা খেলা হয় না বলেই এই অবস্থা। তবে ওয়ানডেতে আমরা অনেক আত্মবিশ্বাসী, টানা কয়েকটা সিরিজে ভাল করেছি।’ দুটি টি২০তে যেভাবে অসহায় আত্মসমর্পণ করতে হয়েছে এরপর ওয়ানডেটা আসলেই কেমন হয়, সেটি নিয়ে নতুন করে সংশয় তৈরি হয়েছে।

তামিম অবশ্য বলেছেন ওভাবে না ভেবে বরং পাকিস্তান ও ভারত সিরিজের খেলাটাই খেলতে চান, ‘ভারত-পাকিস্তান উপমহাদেশের কন্ডিশনে খুব শক্তিশালী দল। দক্ষিণ আফ্রিকাও তাই। ওরা র‌্যাঙ্কিংয়ে ওপরের দিকে। প্রোটিয়াদের বোলিং আক্রমণ ভাল, ব্যাটিংয়েও পিছিয়ে নয়। আমার মনে হয় ভারত-পাকিস্তানের বিপক্ষে যেমন, তেমনি এবারও আমাদের সেরাটা দিতে হবে। তবে অতিরিক্ত কিছু করতে হবে, বিষয়টা এমন নয়।’ সেই বিশ্বকাপ থেকে টানা ক্রিকেটের মধ্যে বাংলাদেশ, তাহলে কি ক্লান্তি পেয়ে বসেছে টাইগারদের? ‘পেশাদার’ বলে সেটি অবশ্য উড়িয়ে দেন তামিম।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: