মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

গাইবান্ধায় শিশুসহ খুন ২

প্রকাশিত : ৮ জুলাই ২০১৫, ০৬:০৬ পি. এম.

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা ॥ সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় সাইফুল ইসলাম (৩৫) এবং মনিকা (৭) নামে অপর এক শিশু মঙ্গলবার রাতে খুন হয়েছে। সাইফুল ইসলাম উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের তালুক সর্বানন্দ (আনন্দ বাজার) গ্রামের হাজী লুৎফর রহমানের ছেলে। অপরদিকে মনিকা বামনডাঙ্গ ইউনিয়নের দক্ষিণ হাতিবান্দা গ্রামের লাল মিয়ার মেয়ে। তাদের দু’জনকেই ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়।

পুলিশ ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে, সাইফুল ইসলাম ইরাকে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। তিনি এ ব্যাপারে এক আদম ব্যবসায়ির সাথে সাড়ে ৪ লাখ টাকার চুক্তিতে আগামী মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) ইরাক রওনা হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় টাকা পয়সা সংগ্রহ করছিলেন। ওই আদম ব্যবসায়িকে তিনি ইতিমধ্যে ২ লাখ টাকা অগ্রীম প্রদান করেন। অবশিষ্ট আড়াই লাখ টাকা আত্মীয়-স্বজনের কাছ থেকে সংগ্রহ করে গত মঙ্গলবার রাত ১২টায় বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছলে হঠাৎ করে ৪/৫ জনের একটি সশস্ত্র যুবক দল তার উপর হামলা চালায়। তার পেটে ছুরি চালায়, পায়ের রগ কেটে ফেলে এবং মাথায় আঘাত করে। এসময় সাইফুল ইসলাম চিৎকার করে উঠলে দুর্বৃত্তরা টাকা পয়সা ছিনিয়ে পালিয়ে যায়। পরে লোকজন সাইফুলকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার শেষ রাতে সেখানে তিনি মারা যান।

অপরদিকে বামনডাঙ্গার হাতিবান্ধা গ্রামের লাল মিয়ার সাথে প্রতিবেশী আলম বাদশার টাকা পয়সা ধার নিয়ে কয়েকদিন ধরে মনোমালিন্য চলছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিশু কন্যা মনিকাকে নিয়ে লাল মিয়া আলম বাদশার বাড়িতে গিয়ে পাওনা ২ হাজার টাকা চাইলে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে আলম বাদশা ছুরি বের করে লাল মিয়াকে আঘাত করার চেষ্টা করে। লাল মিয়া তা ঠেকালে আলম বাদশা ক্ষিপ্ত হয়ে মনিকার দেহে ছুরিকাঘাত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় মনিকাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সকালে সে মারা যায়। মনিকা হত্যা ঘটনায় পুলিশ আলম বাদশাকে গ্রেফতার করেছে।

প্রকাশিত : ৮ জুলাই ২০১৫, ০৬:০৬ পি. এম.

০৮/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: