মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

‘পাঁচদিন আগেই ঘূর্ণিঝড়ের আগাম বার্তা দিতে সক্ষম’

প্রকাশিত : ৭ জুলাই ২০১৫, ০২:৫২ পি. এম.

অনলাইন রিপোর্টার ॥ ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষয়-ক্ষতি কমিয়ে আনার লক্ষ্যে নানাবিধ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ঝড়ের তিনদিন আগে ঘূর্ণিঝড়ের আগাম বার্তা দেওয়া হতো। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর পাঁচদিন আগে আগাম বার্তা দিতে সক্ষম হয়েছে। ফলে জেলেরা সমুদ্রের যত গভীরে থাকুন না কেনো পাঁচদিনের মধ্যে নিরাপদ আশ্রয়ের চলে আসতে পারবেন বলে সংসদে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরকালে নুরুল ইসলাম ওমরের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, পাঁচদিন আগে ঘূর্ণিঝড়ের আগাম বার্তা পৌঁছে দিতে পারলে অনেক ক্ষয়-ক্ষতি কমিয়ে আনা যায়। জেলেরা সমুদ্রের যত গভীরেই যাক পাঁচদিন আগে বার্তা পৌঁছে দিলে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে পৌঁছে যাবেন।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের আগাম বার্তা দিতে পারলেও ভূমিকম্পের কোনো বার্তা দেওয়া যায় না। পৃথিবীর কোথাও ভূমিকম্পের আগাম বার্তা দেওয়ার প্রযুক্তি আবিষ্কার হয়নি।

সরকারদলীয় সদস্য এম আবদুল লতিফের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আপদকালীন সময়ে দুর্যোগ মোকাবেলা ও জনগণের জানমাল রক্ষার্থে সরকার বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে ইত্যেমধ্যেই ঢাকা, সিলেট ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ভূমিকম্প ঝুঁকি মানচিত্র তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া টাঙ্গাইল, রংপুর বগুড়া, ময়মনসিংহ ও রাজশাহীর ভূমিকম্প ঝুঁকি মানচিত্র তৈরি প্রক্রিয়াধীন।

তিনি বলেন, বন্যাপ্রবণ এলাকায় ১০০টি বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের কার্যক্রম নেওয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়প্রবণ এলাকায় ৩ হাজার ৭৫১টি আশ্রয়কেন্দ্র রয়েছে, আরও ১০০টি বহুমুখী ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের কার্যক্রম নেওয়া হয়েছে। এছাড়া উপকূলীয় এলাকার মানুষকে ঘূর্ণিঝড় সংক্রান্ত সর্তকবার্তা প্রচারের জন্য ৩৫টি উপজেলায় ৩৫টি মেগাফোন সাইরেন স্থাপন করা হয়েছে।

দ্রুত ত্রাণ সামগ্রী পরিবহনের জন্য ১২টি পিক-আপ ভ্যান কিনে সিডর বিধ্বস্ত ১২টি জেলায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া দুর্গত এলাকায় দ্রুত স্বাস্থ্যসেবা দিতে ৬টি ওয়াটার অ্যাম্বুলেন্স বোট কেো করা হয়েছে। এছাড়া ৪টি অ্যাকুয়াটিক সি-বোট ক্রয় কার্যক্রম নেওয়া হয়েছে।

প্রকাশিত : ৭ জুলাই ২০১৫, ০২:৫২ পি. এম.

০৭/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: