মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বিএনপির অভিযোগ গাফফার চৌধুরীর বক্তব্য ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে

প্রকাশিত : ৬ জুলাই ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী ও কলামিস্ট আবদুল গাফ্্ফার চৌধুরীর বক্তব্য ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। রবিবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মুখপাত্র ও দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন এ অভিযোগ করেন।

রিপন বলেন, গাফফার চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে এক অনুষ্ঠানে আল্লাহ তায়ালার নাম নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, তা মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে। তিনি বলেন, সাবেক মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকীর মতো গাফ্্ফার চৌধুরীকেও বিচারের আওতায় আনতে হবে। তিনি বলেন, গাফ্্ফার চৌধুরী শুধু ধর্ম নিয়ে নয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসে সেই দেশের বিনাশ কামনা করেছেন। এতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে প্রভাব পড়বে।

রিপন বলেন, ধর্ম নিয়ে কথা বলে গাফফার চৌধুরী মুসলিম সম্প্রদায়ের মনে আঘাত দিয়েছেন। বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী আমরা তার শাস্তি দাবি করছি। তিনি বলেন, গাফ্্ফার চৌধুরী আল্লাহর ৯৯ নাম নিয়ে ব্যঙ্গ করেছেন। আমরা এর তীব্র ঘৃণা ও নিন্দা প্রকাশ করছি। তিনি বলেন, গাফ্্ফার চৌধুরী এই বক্তব্য দেয়ার পর অনুষ্ঠান বন্ধ না করে জাতিসংঘ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি আবদুল মোমেন তাকে সংবর্ধনা ক্রেস্ট উপহার দিয়েছেন। আমরা বিস্মিত হয়েছি, কেন জাতিসংঘ মিশনে আল্লাহ বিদ্বেষী কথা বলার জন্য গাফ্্ফার চৌধুরীকে অতিথি হিসেবে হাজির করা হলো?

আমরা বিশ্বাস করতে চাই না এ ঘটনায় সরকারের কোন সম্পৃক্ততা আছে। তাই সরকারের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা উচিত এতে আবদুল মোমেনের কোন হাত আছে কিনা। যদি এ ব্যাপারে তার কোন হাত থেকে থাকে তবে তদন্ত সাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল উল্লেখ করে রিপন বলেন, জনগণ বা কোন রাজনৈতিক দল, এমনকি বিদেশীরাও বিএনপির সমালোচনা করতে পারে। এ নিয়ে বিএনপির কোন মাথাব্যথা নেই। তবে সমালোচনা গঠনমূলক না হলে বিএনপি তার জবাব দেবে।

রিপন বলেন, যে কোন সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনের আগে কর্তৃপক্ষের কাছে তা জমা দিতে হয়। তারা তা দেখে প্রকাশের অনুমোদন দেয়। জাতিসংঘের স্থায়ী মিশনের ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিষয়ে সেমিনারে আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সরকারী খরচে নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য দেয়া হয়েছে। ওই অনুষ্ঠানের বিষয়ে আব্দুল মোমেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়েছিল কিনা, সরকারের কাছে তা পরিষ্কার জানতে চাই।

প্রকাশিত : ৬ জুলাই ২০১৫

০৬/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



শীর্ষ সংবাদ: