মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২২.৮ °C
 
২৪ এপ্রিল ২০১৭, ১১ বৈশাখ ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াফত করতে আইন সংশোধন করতে হবে ॥ মোজাম্মেল

প্রকাশিত : ৫ জুলাই ২০১৫, ০১:০৫ এ. এম.

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের পাশাপাশি তাদের সম্পদ বাজেয়াফত করতে আন্তর্জাতিক অপরাধ আইন-১৯৭৩ সংশোধনের আহ্বান জানিয়েছেন। খবর বাসসর।

মন্ত্রী বলেন, যেসব যুদ্ধাপরাধী আদালতের রায়ে সাজা পাচ্ছেন তাদের সম্পদও বাজেয়াফত করতে হবে। না হলে সেই অর্থ দিয়ে তাদের উত্তরসূরিরা যা খুশি তাই করবে। এটা হতে দেয়া যায় না। তাদের সম্পদ বাজেয়াফত করার জন্য যুদ্ধাপরাধ আইন সংশোধন করতে হবে ।

মন্ত্রী শনিবার রাজধানীতে বাংলাদেশে হেরিটেজ ফাউন্ডেশন আয়োজিত আন্তর্জাতিক অপরাধ আইনের প্রধান খসড়া প্রণয়নকারী অধ্যাপক অটো ভনের স্মরণ সভায় এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ওয়ালী-উর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ।

আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘এ আইনে যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের অনুমোদন ছাড়া অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা যায় না। এর মাধ্যমে অপরাধী ব্যক্তি পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেতে পারে। তাই কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলা হলে তাদের যাতে গ্রেফতার করে পুলিশী হেফাজতে রাখা যায় তার ব্যবস্থা করতেও আইনে সংশোধন আনতে হবে।’

মন্ত্রী যুদ্ধাপরাধ মামলার সাক্ষীদের অবশ্যই রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং যুদ্ধাপরাধ আইনে এর বিধান দেয়ার জন্য সংশোধনী আনার আহ্বান জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর যারা পাকিস্তানের পক্ষে কথা বলেছেন এবং পূর্ব পাকিস্তান পুনরুদ্ধারের স্বপ্ন দেখেছেন তাদের ভূমিকার কঠোর সমালোচনা করে মোজাম্মেল হক তাদেরও বিচারের আওতায় আনার পরামর্শ দেন।

শাহরিয়ার কবির যুদ্ধাপরাধীদের বয়স বিবেচনায় বিচারের রায় শিথিল করার বিষয়ে বলেন, অপরাধী অপরাধীই। তার কোন বয়স নেই। একাত্তরে তারা সবাই যুবক ছিল। তাদের সেই বয়সের অপরাধের বিচার হচ্ছে। কাজেই তাদের বয়সের কারণে মৃত্যুদ- শিথিল করার কোন মানে হয় না। তিনি যুদ্ধাপরাধের বিচারে আপীল, রিভিউ এবং রাষ্ট্রপতির ক্ষমার সুযোগ প্রত্যাহারেরও আহ্বান জানান।

প্রকাশিত : ৫ জুলাই ২০১৫, ০১:০৫ এ. এম.

০৫/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: