২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বেতন দাবিতে সড়ক অবরোধ


স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে বেতন ও বোনাসের দাবিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে সড়ক অবরোধ করে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। নগরীর বায়েজিদ থানার চা বোর্ডসংলগ্ন এলাকায় ‘গ্লোরি গার্মেন্টস’ নামের প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা এ বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এতে কিছুক্ষণের জন্য যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এদিকে, ঈদ সামনে রেখে বেতন-বোনাস ইস্যুতে অসন্তোষ সৃষ্টি হতে পারে এমন ঝুঁকিপূর্ণ ৭০টি পোশাক কারখানার একটি তালিকা প্রস্তুত করেছে শিল্প পুলিশ। এছাড়া পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএও এ ব্যাপারে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

বায়েজিদ থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গ্লোরি গার্মেন্টসের শ্রমিকরা দুপুর দেড়টার দিকে তাদের বেতন ও বোনাসের দাবিতে রাস্তায় নেমে পড়ে।

অক্সিজেন মহাসড়ক অবরোধ করলে বন্ধ হয়ে যায় যানবাহন চলাচল। উভয় দিকে আটকা পড়ে শত শত যানবাহন। পরে পুলিশ ও মালিক পক্ষের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার করলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এদিকে, শিল্প পুলিশ চট্টগ্রামে ৭০টি পোশাক কারখানার একটি তালিকা প্রস্তুত করেছে। ঈদকে সামনে রেখে বেতন-ভাতা ইস্যুতে এ সকল কারখানায় শ্রম অসন্তোষ দেখা দিতে পারে এমন আশঙ্কা করা হচ্ছে শিল্প পুলিশের পক্ষ থেকে। বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে বিজিএমইএ-কেও।

সিদ্ধিরগঞ্জে মানববন্ধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ থেকে জানান, রমজানের মধ্যে গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন ও পূর্ণ-বোনাস পরিশোধের দাবিতে গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট বিসিক শাখা মানববন্ধন করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফতুল্লার পঞ্চবটি বিসিক শিল্পনগরীর দুই নং গেটের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।

গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট বিসিক শাখার সভাপতি নূর হোসেন সর্দারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেনÑ সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, বিসিক শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সাইদুর। মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ বলেন, বোনাস শ্রমিকের অধিকার। কিন্তু মালিকরা বোনাস প্রদানের সময় টালবাহানা শুরু“ করে। সরকারী প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পূর্ণ বোনাস দেয়া হয়। অথচ গার্মেন্টস শ্রমিকদের হাফ বোনাস দেয়া হয়। অনেক গার্মেন্টস এ বকশিস দেয়া হয়। বোনাস পরিশোধ করা হয় ঈদের ১ দিন আগে অথবা চাঁদ রাতের দিন। এ সময়ে টাকা পেলে শ্রমিকদের পক্ষে কেনাকাটা করে গ্রামের বাড়িতে যাওয়া সম্ভব হয় না।