২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

দিনাজপুরে ২৬০ শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র


স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ ১৩টি উপজেলায় কলেজ, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, দাখিল, আলীম মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত প্রায় ২৬০ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় পুলিশ তদন্ত করে বৃহস্পতিবার আদালতে অভিযোগপত্র পেশ করেছে। অভিযোগের বিষয় জেলা শিক্ষা অধিদফতরকে অনুসন্ধান করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তালিকা প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

দিনাজপুর পুলিশ সুপার কার্যালয় সূত্রে প্রকাশ, গত বছরের ৫ জানুয়ারি ১০ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দিনাজপুর জেলার ৬টি সংসদীয় আসনের ১৩টি উপজেলায় অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নাশকতার অভিযোগে ১২৮টি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার বাদী সংশ্লিষ্ট ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার এবং পুলিশ কর্মকর্তাগণ ছিলেন। মামলাগুলো তদন্ত করে এ পর্যন্ত ৯৬টি অভিযোগপত্র পুলিশ গত ১৫ জুন পর্যন্ত আদালতে দাখিল করেছে। অবশিষ্ট ৩২টি মামলার অভিযোগপত্র দাখিল প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। দাখিলকৃত ৯৬টি মামলায় প্রায় ২৬০ জন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক আসামি হিসেবে তালিকাভুক্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে দিনাজপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ এনায়েত হোসেন জানান, এ বিষয়ে শিক্ষা অধিদফতর থেকে প্রাপ্ত পত্র অনুযায়ী নাশকতা মামলায় আসামিদের তালিকাভুক্ত করে তালিকা অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে। নির্দেশ প্রাপ্তি সাপেক্ষে ওই সব শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফরিদপুরে নিহত ৩ ডাকাতের পরিচয় মিলেছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ২৫ জুন ॥

বুধবার রাতে সদর উপজেলার কৈজুরি ইউনিয়নের বদরপুরে ডাকাত সন্দেহে গ্রামবাসীর গণপিটুনিতে নিহত তিন ডাকাতের পরিচয় পাওয়া গেছে। খুলনার বৈঠাঘাটা উপজেলার মৃত মোরশেদ শেখের ছেলে মোশাররফ শেখ একই এলাকার মৃত জাহাঙ্গীর শেখের ছেলে রেজাউল শেখ এবং বরগুনা সদরের পাতাকাটা গ্রামের শিরগন আলী হাওলাদারের ছেলে মোঃ বাচ্চু হাওলাদার। এদিকে বৃহস্পতিবার এলাকাবাসী ডাকাত দলের সদস্য সন্দেহে দুই জনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

তিতাসে শীর্ষ সন্ত্রাসী ইব্রাহীম গ্রেফতার

শাহ আলম হত্যা মামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, দাউদকান্দি, ২৫ জুন ॥ তিতাস উপজেলার হারাইরকান্দি গ্রামের চাঞ্চল্যকর শাহ আলম হত্যা মামলার অন্যতম আসামি ও শীর্ষ সন্ত্রাসী ইব্রাহিম ঢাকায় গ্রেফতার হয়েছে। বুধবার রাতে ঢাকার একটি আবাসিক হোটেল থেকে পল্টন থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

এদিকে সন্ত্রাসী ইব্রাহিম গ্রেফতার হওয়ায় এলাকাবাসী আনন্দ মিছিল করেছে। নিহতের পরিবার থেকেও মিছিলে অংশ নেয় এবং সাংবাদিকদের মাধ্যমে শাহ আলম হত্যার বিচার চেয়ে খুনী ইব্রাহিমের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানায়।

এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা যায়, সন্ত্রাসী ইব্রাহিম শাসক দলের এক শীর্ষ নেতার মদদে এলাকায় জুয়া, নারী দিয়ে পতিতা, ভূমি দখল করে সংখ্যালঘু পরিবার উচ্ছেদ, চাঁদাবাজি, লুণ্ঠন, ভাংচুর ও ত্রাসের রাজত্ব গড়ে তোলে। সন্ত্রাসী ইব্রাহিমের এ হেন কর্মকা-ের ঘটনায় তিতাস থানাসহ বিভিন্ন থানায় হত্যা, ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, ডাকাতি, বিস্ফোরক ও অস্ত্র মামলাসহ প্রায় এক ডজন মামলা রয়েছে বলে থানা সূত্রে জানা যায়। সন্ত্রাসী ইব্রাহিমের আতঙ্কে এলাকাবাসী মুখ খোলার সাহস পেত না। এলাকার সংখ্যালঘু পরিবারকে নানা হয়রানি ও উচ্ছেদ করে তাদের জায়গা দখল করে এবং বিভিন্ন নিরীহ মানুষদের ভূমি দখল করে এলাকায় ভূমিদস্যু হিসেবেই ব্যাপক পরিচিত ছিল টুন্ডা ইব্রাহিম।