১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

খানাখন্দে ভরা রাস্তাঘাট


নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ, ২৫ জুন ॥ কিশোরগঞ্জ পৌরসভা প্রথম শ্রেণীর হলেও নাগরিক সুবিধায় তেমন উন্নত হয়নি। শহরের প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে অলিগলি পর্যন্ত অধিকাংশ রাস্তাঘাট খানাখন্দে ভরা। নেই পয়ঃনিষ্কাশনের জন্য কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা। বর্ষার শুরুতেই তলিয়ে গেছে বেশিরভাগ রাস্তাঘাট। এ কারণে নাগরিকদের পড়তে হচ্ছে চরম ভোগান্তিতে। অন্যদিকে বিশুদ্ধ খাবার পানির সঙ্কটসহ রাতের বেলা পৌরএলাকার অনেক স্থানে বিদ্যুতের খুঁটি থাকলেও সেগুলোতে জ্বলে না আলো। এতে করে সন্ধ্যার পর অনেক এলাকায় তৈরি হয় ভুতুড়ে পরিবেশ। এদিকে পৌরসভার রাস্তায় বাসাবাড়ির ফেলে রাখা ময়লার স্তূপে ভরপুর থাকে সবসময়। এসব বিষয়ে পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি। শহরের আখড়াবাজার থেকে নগুয়া হয়ে কিশোরগঞ্জ-ঢাকা বাইপাস সড়কের নগুয়া এলাকায় স্থানে স্থানে অসংখ্য গর্ত। এ সড়কের দুইপাশে রয়েছে বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সড়কের প্রায় আধা কিলোমিটার অংশ জুড়ে থৈথৈ পানি। পৌর এলাকার এ গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি প্রায় ২ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন এলাকাবাসী। বর্ষার শুরুতেই শহরের রাস্তাঘাটের বেহাল দশা পৌরবাসীকে ফেলেছে চরম বিপাকে। রাস্তা সংস্কারেও সুষ্ঠু ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতেই তলিয়ে যায় রাস্তা। পানিবন্দী হয়ে পড়েন বাসিন্দারা। গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে শহরের নগুয়া ও বাসস্ট্যান্ড এলাকা, বত্রিশ ও বাসস্ট্যান্ড, হয়বতনগর, বটতলা, হারুয়া, সতাল, একরামপুর, বিন্নগাঁও, বড়বাজার, কাচারীবাজার, বউবাজার, নতুনপল্লীসহ আরও অন্তত ৮টি এলাকার সড়কগুলোতে জলাবদ্ধতায় সৃষ্টি হয়েছে। অনেক সড়ক দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় কার্পেটিং উঠে ছোট-বড় অসংখ্য খানাখন্দ ও বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। পৌর মেয়র মাজাহারুল ইসলাম কাঞ্চন ভূঁইয়া জানান, এবার বাজেটে রাস্তা ও ড্রেনের জন্য বেশি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বর্ষাকাল শেষ হলেই রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ সমস্যা সমাধানের জন্য কাজ করা হবে।

সমস্যায় জর্জরিত ঈশ্বরদী পৌরসভা

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী ॥ ঈশ্বরদী পৌরসভা হাজারো সমস্যার আবর্তে ঘুরপাক খাচ্ছে। ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠিত পৌরসভায়। লোক সংখ্যা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বৃদ্ধি পাচ্ছে। একই সঙ্গে বৃদ্ধি পাচ্ছে নানা সমস্যাও। প্রায় দেড় লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত এই পৌরসভার রাস্তা ঘাটের অবস্থা বর্তমানে শোচনীয়। এই পৌরসভার অধিকাংশ রাস্তা এখন চলাচলের অযোগ্য। অলিগলি ভাঙাচোরা। প্রধান সড়কগুলোর মধ্যে ঈশ্বরদী-পাবনা সড়ক, লোকোশেড সড়ক, ইপিজেড সড়ক, বিমানবন্দর সড়ক, অরনেখোলা সড়ক, ভেলুপাড়া থেকে ইস্তা সড়ক ও পৌরসভা সড়কসহ বেশিরভাগ সড়কের অবস্থা এতোই নাজুক যে, এসব সড়কে হেঁটে চলায় দুস্কর হয়ে পড়েছে। তার ওপরে পৌর এলাকার প্রত্যেকটি ফিডার সড়কে অগ্রিম সংস্কার বিল পরিশোধ সাপেক্ষে সড়ক কাটিং করে গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়। সে সময় সড়ক কাটিং এ শত শত গর্ত সৃষ্টি হলেও পৌর কর্তৃপক্ষ অদ্যাবধি মেরামত না করায় জনভোগান্তি চরমে উঠেছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই এসব গর্তে পানি জমে থাকে। ঈশ্বরদী বাজারের সংকীর্ণ ড্্েরনগুলো দীর্ঘদিন পরিস্কার না করায় দুর্গন্ধে চলাচল দুস্কর হয়ে পড়েছে। ড্রেনেজ সমস্যা পৌর সভার একটি অন্যতম সমস্যা। পরিকল্পিত ও চাহিদা অনুযায়ী ড্রেনেজ ব্যবস্থা পৌর কর্তৃপক্ষ এখনও করতে পারেনি।