২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান দ্বিতীয় টেস্ট শুরু আজ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কলম্বোর পি সারা স্টেডিয়ামে আজ থেকে শুরু হচ্ছে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের মধ্যকার তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। গলে ১০ উইকেটের দুর্দান্ত জয়ে এরই মধ্যে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে পাকিরা। তাই এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ পকেটে পুড়তে দারুণ আত্মবিশ্বাসী অতিথি অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক। পি সারা কুমার সাঙ্গাকারার অত্যন্ত পয়মন্ত ভেন্যু। ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াইয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর অপেক্ষায় থাকা তুখোড় এই ব্যাটসম্যানের দিকে তাকিয়ে গোটা লঙ্কাবাসী। যদিও অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস বলেছেন, সাঙ্গার অবসরের বিষয়ে তিনি এখনও পুরোপুরি নিশ্চিত নন!

মিসবাহকে আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে প্রথম টেস্টের সাফল্য। এক পর্যায়ে ৯৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফলোঅনের শঙ্কায় পড়া পাকিস্তানের জয়ের নায়ক স্পিন ভেল্কিতে শ্রীলঙ্কাকে দ্বিতীয় ইনিংসে ৭ শিকারে প্রতিপক্ষকে ২০৬ রানে গুড়িয়ে দেয়া ইয়াসির শাহ ও দারুণ ব্যাটিং করা সরফরাজ আহামেদ। ‘তরুণদের পারফর্ম করতে দেখা বেশ আনন্দের, যা মূলত ইউনুস ও আমার নিজের ওপর থেকে চাপ কমিয়ে দিয়েছে। এদের মাধ্যমে আমরা ভবিষ্যত গড়ছি এবং বয়সের সঙ্গে সঙ্গে এরাই দলকে সামনের দিকে এগিয়ে নেবে।’ স্পিন সহায়ক কন্ডিশনে কিছুদিন ধরেই পাকিস্তানের মূল অস্ত্র ছিলেন সাঈদ আজমল। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার পর ভাল করতে না পারায় দলে জায়গা হয়নি তার। গলে মাত্র আট টেস্ট খেলা ২৯ বছর বয়সী ইয়াসির মোটেই আজমলের অভাব বুঝতে দেননি। দ্বিতীয় ইনিংসে ৭ উইকেট নিয়ে খেলার মোড় ঘুড়িয়ে দিয়েছেন তিনি।

তবু সতর্ক মিসবাহ বলেন, ‘এটা কেবলমাত্র ইয়াসিরের শুরু। ওর পারফর্মেন্স ধাপে ধাপে উন্নতি হচ্ছে এবং পাকিস্তানের প্রধান বোলারে পরিণত হচ্ছে। বিশেষ করে যে দলটি স্পিনের বিপক্ষে ভাল খেলে (শ্রীলঙ্কা) সেই দলটির বিপক্ষে সাত উইকেট শিকারই এর প্রমাণ।’ ম্যাচসেরা সরফরাজকে নিয়ে অধিনায়কের মূল্যায়ন ‘ও একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়, টপঅর্ডারে আজহার আলী ভাল করছে এবং সরফরাজ এবং আসাদ শফিক যেভাবে খেলেছে তাতে ভবিষ্যতের জন্য আমরা তাদের উপর আস্থা রাখতেই পারি।’ ২০০৬ সালের পর শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি পাকিস্তান। সেদিকে ইঙ্গিত করে চল্লিশোর্ধ মিসবাহর চাওয়া, ‘আমরা দারুণভাবে আত্মবিশ্বাসী। স্পিরিটের ধারা অব্যাহত রেখে কলম্বোয় জয় তুলে নিতে চাই। এক ম্যাচ আগেই সিরিজ জিতে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটাতে ছেলেরা মরিয়া।’ মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান হারিস সোহেলের সামান্য চোট ছাড়া পাকিস্তান দল বেশ ভাল অবস্থায়।

বিপরীতে প্রথম টেস্ট হেরে কোণঠাসা লঙ্কানদের অবস্থা নাজুক। প্রস্তুতির সময় হাতের আঙ্গুলে ব্যথা পাওয়া প্রধান পেসার ধাম্মিকা প্রসাদকে নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। পুরোপুরি ফিট নন অপর পেসার সুরাঙ্গা লাকমলও। সুতরাং ম্যাচের একাদশে দেখা যেতে পারে থারিন্ডু কুশল ও দশমন্ত চামিরাকে। একটা বিষয় লঙ্কানদের আত্মবিশ্বাসী করবে। কলম্বোর পি সারা স্টেডিয়ামে ব্যাট হাতে অত্যন্ত সফল সাঙ্গাকারা। অভিজ্ঞ এই তারকা এই মাঠে ৫৫ গড়ে করেছেন ৮২১ রান। টেস্টের শীর্ষ আট দলের বিপক্ষে যেখানে গড় ৭৭-এর ওপরে! চলতি টেস্ট ও আসন্ন ভারত সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসর নেবেন আগেই ওয়ানডে ছাড়া সাঙ্গাকারাÑ লঙ্কান গণমাধ্যমের খবরে এমনটা প্রায় নিশ্চিত। তবে কাল নতুন কথা শোনালেন ম্যাথুস। খোদ অধিনায়ক নাকি এখনও বিষয়টা পরিষ্কার নন, ‘আমি যতদূর জানি এখনও বোর্ডের সঙ্গে বিষয়টা চূড়ান্ত করেনি সাঙ্গা। তবে আমাদের দৃষ্টি খেলায়। গল টেস্টে মোটেই ভাল কারিনি। ভুল-ত্রুটি শুধরে এখানে ঘুরে দাঁড়াতে হবে।’

পি সারা স্টেডিয়ামের উইকেট খুবই স্পোটিং। এখানে শেষ দশ টেস্টের আটটিতেই রেজাল্ট হয়েছে। গত এক বছরে একটি মাত্র ম্যাচই ছিল অমীমাংসিত। টেস্টে ৩০০০ রান হতে আর ৮০ রান চাই মোহাম্মদ হাফিজের। তবে প্রথম টেস্টে ফের বোলিং এ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় মানসিক চাপে থাকবেন পাকিস্তানী অলরাউন্ডার। গলে দুই ইনিংস মিলিয়ে ২০ ওভার বোলিং করেন হাফিজ। এর মধ্যে প্রথম ইনিংসে দুটি উইকেটও লাভ করেন। কিন্তু শেষদিকে মাঠে থাকা আম্পায়ারের দৃষ্টিতে তার বোলিং এ্যাকশনে ত্রুটি ধরা পড়ে। নিয়ম অনুযায়ী ২১ দিনের মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে, পুনরায় ত্রুটি ধরা পরলে কমপক্ষে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে হবে।