২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৯ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়তে পারে ভবন


নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী, বরগুনা, ২১ জুন ॥ বরগুনার তালতলী উপজেলার কড়াইতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের কাছে এখন মরণফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যেকোন মুহূর্তে ভবনটি ভেঙ্গে পড়তে পারে।

২০০৭ সালের ঘূর্ণিঝড় সিডরে বিদ্যালয় ভবনটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ২০০৮ সালে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে মেরামত করা হয়েছে। বর্তমানে ভবনের মূল পিলার ধসে পড়তে শুরু করেছে। ছাদের পলেস্তরা খসে পড়ছে। জানালা-দরজা নেই। সামান্য বৃষ্টি হলে ছাদ দিয়ে পানি পড়ে শ্রেণীকক্ষ ভিজে যায়। এতে শ্রেণীকক্ষে পাঠদান অনুপেযোগী হয়ে পড়ে। ফলে শিক্ষকরা ক্লাস বন্ধ করে শিক্ষার্থীদের ছুটি দিতে বাধ্য হয়। এ ছাড়া গত একমাসে ছাদ থেকে পলেস্তরা খসে পড়ে ফাতেমা, মনিরা, তানজিলা, কারিমা, লিমা, হৃদয়, রবিউল ও প্রতীক চন্দ্রসহ ১০/১৫ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। ভবনটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হওয়াতে অনেক অভিভাবক তার সন্তানদের স্কুলে পাঠানো বন্ধ করে দিয়েছে। এ বিদ্যালয়টিতে কড়াইতলা, চান্দখালী, হাড়িপাড়া, হুলাটানা, বড়পাড়া গ্রামসহ পঁচাকোড়ালীয়া বাজারের দেড় শতাধিক ছাত্রছাত্রী অধ্যায়ন করছে।

ওই বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র হৃদয় গাঙ্গলী বলে “মোর মাথায় দালানের ইডের টুকরা পইড়া মাথা ফাইট্যা গ্যাছে”। পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র রেজাউল বলে “মোগো স্কুলের দালানে ক্লাস করতে ভয় করে”। তালতলী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফিরোজ আহম্মেদ জানান, এ বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের প্রস্তাব উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে।