১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ক্যামেরনের ভাষণ মুসলিমদের বিচ্ছিন্ন করবে ॥ ওয়ার্সি


যুক্তরাজ্যের মুসলিমরা চরমপন্থীদের মোকাবেলায় যথেষ্ট কিছু করছে না বলে ডেভিড ক্যামেরনের মন্তব্য মুসলিমদের বিচ্ছিন্ন ও মনমরা করে তুলতে পারে। যুক্তরাজ্যের সাবেক টোরি ক্যাবিনেট মিনিস্টার সাঈদা ওয়ার্সি সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন। খবর মেইল ও গার্ডিয়ান অনলাইনের।

সাঈদা ওয়ার্সি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার সেøাভাকিয়ায় চরমপন্থীদের আরও দূরে ঠেলে দিয়েছেন হয়ত। প্রধানমন্ত্রী ঐ ভাষণে বলেছেন, চরমপন্থা উচ্ছেদে আরও বেশকিছু করার রয়েছে ব্রিটিশ মুসলিমদের। ওয়ার্সি সতর্কতা উচ্চারণ করে বলেন, সরকার যেখানে তাদের পর্যাপ্তভাবে সহযোগিতা ও সমর্থন দিতে ব্যর্থ হচ্ছে সেখানে ক্যামেরন ও মিনিস্টারদের এ দাবির পেছনে বিশ্বাসযোগ্যতার ঘাটতি রয়েছে। তবে তিনি এ কথাও বলেছেন, প্রতিরোধের ইচ্ছা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। ওয়ার্সি গার্ডিয়ান পত্রিকায় তার এক লেখাতে বলেন, আমার উদ্বেগ হচ্ছে, মুসলিমরা এর মধ্যেই সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যা করছে তা উপলব্ধিতে না এনে মুসলিমদের প্রতি আরও কিছু করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে তারা নিরুৎসাহিত হয়ে পড়বে। কারণ, তারা সন্ত্রাসী আদর্শের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার খুব ভালভাবেই অবগত রয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে ব্রিটিশ মুসলিম সম্প্রদায় কতটা দূরে সরে গেছে। কেবিনেটের প্রথম মুসলিম সদস্য ব্যারনেস ওয়ার্সি আরও বলেন, ক্যামেরন যে লড়াইয়ে লিপ্ত রয়েছেন সে একই লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে মুসলমানরা। তারা জানে, তাদের আরও অনেক কিছু করতে হবে সন্ত্রাস উচ্ছেদে, তাদের এ জন্য ইচ্ছাও রয়েছে অনেক। কিন্তু তারা যদি বুঝতে পারে যে আমরা একই পথে রয়েছি তা হলে তারা আরও সুচারুরূপে তাদের দায়িত্ব পালন করবে। সরকারের দাবির পেছনে বিশ্বাসযোগ্যতা থাকবে যে, এ সম্প্রদায়কে আরও কিছু করতে হবে। সেøাভাকিয়ায় এ ভাষণ দেয়ার জন্য ক্যামেরনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তার নিজস্ব ব্রিটিশ মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাষণ দেয়ার জন্য স্থান হিসেবে ব্রাতিসøাভাকে বেছে না নেয়ার জন্যও তাকে পরামর্শ দেয়া উচিত ছিল এ বক্তব্য রাখতে পারতেন তিনি বার্মিংহামে বা ব্র্যাডফোর্ডে।