২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রমজানে ভেজাল পণ্য ঠেকাতে ভিজিল্যান্স টিম মাঠে


মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ ভোগ্যপণ্যে ক্ষতিকারক রাসায়নিক দ্রব্য মেশানোসহ ভেজাল খাদ্যদ্রব্য বাজারজাতকরণের সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছে তাদের পাকড়াও করতে অভিযানে নেমেছে জেলা প্রশাসন। প্রশাসনের তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে খাদ্যদ্র্রব্যের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা এ অভিযানে সহায়তা করছে। কোন অসাধু ব্যবসায়ী কিংবা মজুতদারকে উল্লেখিত বিষয়ে কোন ধরনের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক গ্রেফতারসহ জরিমানা ও দ-াদেশের মুখোমুখি হতে হবে। অভিযোগ রয়েছে, শুধু রমজান এলেই অসাধু ব্যবসায়ীরা ভেজাল খাদ্য বাজারজাত করে অতি মুনাফা হাতিয়ে নেয়ার অপচেষ্টা চালায়। শুধু তাই নয়, মজুতদাররাও কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করে দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধির পাঁয়তারায় লিপ্ত হয়। উল্লেখ্য, এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে গত ২৭ মে সার্কিট হাউসে মোবাইল টিম গঠন করা হয়। সচেতন নাগরিকদের পক্ষ থেকে ও মোবাইল টিমের বাজার পর্যবেক্ষণের উপর ভিত্তি করে এ ধরনের অভিযান পরিচালিত হবে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে। জানা গেছে, ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি), বাংলাদেশ স্যাম্পল টেস্টিং ইনস্টিটিউট (বিএসটিআই), মৎস্য সম্পদ অধিদফতরসহ খাদ্য প্রস্তুতকারক ও বিতরণ বিভাগের সদস্যদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটির মূল লক্ষ্য হচ্ছে আসন্ন রমজান উপলক্ষে ভোগ্যপণ্যের উপর ব্যাপক মনিটরিং ও অসাধু ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার প্রক্রিয়া।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আসন্ন রমজান উপলক্ষে বাজার মনিটরিংয়ের জন্য তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে তিনটি ভিজিল্যান্স টিম গঠন করা হয়েছে। এ টিমে রয়েছে বিএসটিআই, টিসিবি ও ক্যাব প্রতিনিধিরা। এছাড়াও বিভিন্ন বাজার ও শপিং মলের পরিচালনা কমিটির সভাপতিরাও মোবাইল টিমের কার্যকারিতার পক্ষে মতবাদ ব্যক্ত করায় বাজার পর্যবেক্ষণ চলমান আছে। এদিকে, বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পর্যাপ্ত মজুদ ও সরবরাহ রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পাইকার ও খুচরা ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী অতিরিক্ত পরিমাণে ক্রয় করে বাজারে সঙ্কট সৃষ্টি না করাসহ জেলা প্রশাসনকে ভেজাল পণ্যের তথ্য দিয়ে সহায়তা করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। জনগণকে সচেতনকে ও সচেতন নাগরিকদের পক্ষ থেকে ভেজাল পণ্যের প্রস্তুত ও বিতরণকারীদের পাকড়াওর জন্য তিনটি মোবাইলে তথ্য জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম-০১৭১৬১৮৫৯০৫, আসিফ ইমতিয়াজ ০১৭৮৮৫৫০৭১০ ও হাবিবুল হাসান ০১৭১৬৯৭৩০৩৬ এ নম্বরগুলোতে যোগাযোগ করে অভিযোগ দায়ের করা যাবে।