২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

ব্রাজিল থেকে আমদানিকৃত গম পচা নয় ॥ চিকন দানার


নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ১৬ জুন ॥ এক লাখ ৩৯২ মেঃটন নিম্নমানের গম নিয়ে উত্তরাঞ্চলের খাদ্য বিভাগে তোলপাড় শুরু হয়েছে। যার মূল্য চারশ’ কোটি টাকা। এই নিম্নমানের গম ক্রয়ে সরকারকে একশ’ কোটি টাকা গচ্ছা গিতে হয়েছে। অতিরিক্ত এই অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, বন্দর কর্তৃপক্ষ, খাদ্য অধিদফতর ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের পকেটে চলে গেছে। ২৬৫ ডলার মূল্যে প্রতিটন গম ব্রাজিল হতে বাংলাদেশে ৩টি প্রতিষ্ঠান আমদানি করেছে। বিগত বছরের ১৭ ডিসেম্বর ও চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি ৫ মাস আগে চট্টগ্রাম বন্দর ও খুলার মংলা বন্দর দিয়ে এই গম বাংলাদেশে ঢুকেছে। খাদ্য অধিদফতরের ইমক্স কনসালট্যান্টস সরবরাহকারীর মাধ্যমে গম সারা দেশের খাদ্য অধিদফতরের এলএসডি গোডাউনে ছড়িয়ে পড়েছে।

লালমনিরহাট জেলা খাদ্য কর্মকর্তা গোলাম মওলা জানান, ৫ মাস আগে লালমনিরহাট জেলায় এক হাজার টন গম সরবরাহ করা হয়। বর্তমানে এই গম দু’টি এলএসডি গোডাউনে ১৮৬ মেঃটন গম মজুদ রয়েছে। লালমনিরহাট জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছানাউল ইসলাম জানান, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে আদিষ্ট হয়ে সোমাবার জেলার কাকিনা খাদ্য গোডাউনে গিয়ে ব্রাজিল হতে আমদানিকৃত গমের নমুনা সংগ্রহ করে সীলগালা করে ঢাকায় ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। তবে প্রাথমকি পরীক্ষায় দেখা গেছে, নমুনার গম পচা নয়। চিকন দানার নিম্নমানের গম। প্রাথমিক কাউনের দানার মতো। এদিকে উত্তরাঞ্চলের জেলায় খাদ্য গোডাউনে মজুদ নিম্নমানের গম নিয়ে বিপাকে আছে খাদ্য অধিদফতর কর্তৃপক্ষ। পত্র-পত্রিকায় পচা গম নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ হওয়ায় মঙ্গলবারের পর হতে গম সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

সড়কে খানাখন্দ ॥ ধান চারা রোপণ করে প্রতিবাদ

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ ডোমার-মীরজাগঞ্জ-চিলাহাটির ১৭ কিলোমিটার সড়কটি খানাখন্দে ভরে কাঁদামাটিতে চলাচলে অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সড়কটি সংস্কারের দাবিতে ধানের চারা রোপণ করে প্রতিবাদ জানিয়েছে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীরা। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় সড়কটির ডোমারের মায়া মার্কেট ও শান্তা মার্কেটের সামনে কাঁদাময় রাস্তার উপর ধানের চারা রোপণ করে এ প্রতিবাদ জানানো হয়। এ সময় এলাকাবাসীর পক্ষে সেখানে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন ব্যবসায়ী আনিছুর রহমান মানিক, প্রভাষক মোস্তফা ফিরোজ প্রধান, জাকির প্রধান, আক্তারুজ্জামান সুমন, নুরুজ্জামান বাবলা, শরিফ আহমেদ, আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ। বক্তরা আগামী ১০ দিনের মধ্যে রাস্তা সংস্কারের পদক্ষেপ না নিলে কঠিন কর্মসূচীর ঘোষণার আল্টিমেটাম দেয়।