২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ফ্যাশন সচেতন তরুণ প্রজন্ম


লাল সূর্য উদয়ের সঙ্গে সঙ্গে আগমন ঘটে নতুন একটি দিনের। দিন যত যাচ্ছে পরিবেশ তত প্রগাঢ়ভাবে বদলাচ্ছে। পাল্টে যাচ্ছে দিনের হাওয়া আর আমাদের সাজসজ্জা। আর এই ধাপে বর্তমান তরুণ প্রজন্মের জুড়ি নেই। নিত্যদিন তারা নতুন নতুন সাজে সেজে উঠছে, সবাইকে তাক লাগিয়ে দিচ্ছে। ফ্যাশনের আলোকে নিজেদের মেলে ধরতে একটু ভিন্ন আঙ্গিকে সাজতে ভীষণ ব্যস্ত তারা।

চলছে গ্রীষ্মকাল। রোদের প্রচ- তাপদাহে মানবজীবন অতিষ্ঠপ্রায়। গ্রীষ্মের এই দৃশ্য খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। তাই এই গরমে জীবনযাত্রায় কিছুটা ভিন্ন মাত্রা যোগ হয়। সেখানে পরিবর্তন আনা অত্যাবশ্যক। অন্যান্য ঋতুর তুলনায় গরমকালে পোশাক-পরিচ্ছদে যদি স্বাচ্ছন্দ্য না আনা যায়, তবে অস্বস্তির কোন সীমা থাকে না। তাই শরীরের সঙ্গে মানিয়ে শরীরের তাপমাত্রাকে সহনীয় রাখতে পোশাকে বৈচিত্র্য আনতে হবে।

এ সময়টা অন্যান্য ঋতুর তুলনায় অনেক বেশি উষ্ণ। উষ্ণ আবহাওয়ায় দৈনন্দিন চলাফেরার পাশাপাশি বাড়তি নজর দিতে হয় পোশাকের দিকে। সচেতন না হলে সূর্যের তেজ যেন এক হাত দেখিয়ে দেয় আমাদের। গরমে পরে আরাম, শরীরের তাপকে শোষণ করতে পারে, এমন হালকা রঙের পোশাক পরাই শ্রেয়। সেখানে প্রথম পছন্দ হতে পারে সুতি কাপড়। সুতি কাপড় শরীরের তাপ ও বাইরের তাপমাত্রা, দুটোই প্রতিরোধের যোগ্য। এই গরমে ফ্যাশন হাউসগুলো রুচিও আরামের ওপর বিচার করে পোশাক তৈরি করছে। একটু ইজি ও স্মার্ট পোশাক না হলে আবহাওয়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলা মুশকিল। এই গরমে হাতা কাটা পোশাকগুলো বেশ পছন্দ করছে বর্তমান ফ্যাশন সচেতন তরুণ-তরুণী। এর পাশাপাশি রকমারি রং ও ডিজাইনের আরামদায়ক টি-শার্ট। পোশাকটি আমাদের ফ্যাশন ট্রেন্ডে এনেছে নতুন মাত্রা । ফ্যাশন ভাবনা বজায় রেখে তরুণ প্রজন্ম ঝুঁকছে পশ্চিমা ধাঁচের পোশাকেও। গরম থেকে প্রশান্তি, সহজে বহন যোগ্যতা আর ফ্যাশনে আধুনিকতার ছোঁয়া-সব মিলিয়ে পশ্চিমা পোশাকগুলো বর্তমান তরুণ প্রজন্মের বেশ পছন্দের। সঠিক পোশাক নির্বাচন বয়সটা অনেকটাই কমিয়ে দেয়। বর্তমান তরুণ সমাজ এখন অনেক বেশি ফ্যাশন সচেতন। আগের সনাতনী ধারণাকে তারা মোটেও পাত্তা দেয় না। আবহাওয়া, পরিবেশ আর ব্যক্তিত্বকে প্রাধান্য দিয়ে নিত্যদিন ডিজাইন করা হচ্ছে দেশের পোশাকগুলো। সেখানে থাকছে তারুণ্যের ছোঁয়া,

ঐতিহ্যের

বিবরণ

আর

সংস্কৃতির

আকর্ষণ।