২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পরমাণু যুদ্ধাস্ত্র বাড়াচ্ছে পাকিস্তান ও ভারত


নিরস্ত্রীকরণের দিকে আন্তর্জাতিক প্রবণতা সত্ত্বেও পারমাণবিক অস্ত্রের অধিকারী অন্যান্য দেশের মধ্যে পাকিস্তান ও ভারত তাদের অস্ত্রসম্ভারের সংখ্যা বৃদ্ধি অব্যাহত রেখেছে। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট সিপ্রি সোমবার এক প্রতিবেদনে এ কথা বলেছে। ইনস্টিটিউটের বার্ষিক নিরস্ত্রীকরণ রিপোর্টে বলা হয়, ২০১০ থেকে ২০১৫-এর মধ্যে বিশ্বে পারমাণবিক যুদ্ধাস্ত্রের সংখ্যা ২২ হাজার ৬শ’ থেকে ১৫ হাজার ৮শ’ ৫০-এ হ্রাস পেয়েছে। এক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার হ্রাসের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। ইনস্টিটিউট বিশ্বের দুটি বৃহত্তম পরমাণু শক্তির অধিকারী দেশের ‘ব্যাপক ও ব্যয়বহুল দীর্ঘমেয়াদী আধুনিকীকরণ কর্মসূচীর’ কথাও উল্লেখ করে। খবর এএফপির।

সিপ্রির গবেষক শ্যানন কাইল এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণকে অগ্রাধিকার দিতে নতুন করে আন্তর্জাতিক আগ্রহ জাগলেও পরমাণু অস্ত্রাধিকারী দেশগুলোতে অস্ত্রের আধুনিকীকরণের যে কর্মসূচী পরিচালিত হচ্ছে, তাতে আভাস পাওয়া যায় যে, তাদের কেউই অদূর ভবিষ্যতে তাদের পরমাণু অস্ত্রভা-ার পরিত্যাগ করছে না।’ স্টকহোম পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট বলেছে, ১৯৬৮ সালের পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ চুক্তি দ্বারা বৈধভাবে স্বীকৃত অপর তিনটি পারমাণবিক অস্ত্রাধিকারী দেশ চীন (২৬০টি পরমাণু যুদ্ধাস্ত্র), (ফ্রান্স ৩০০ যুদ্ধাস্ত্র) ও ব্রিটেন (২১৫ পরমাণু যুদ্ধাস্ত্র)- ২য় নতুন পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবস্থার উন্নয়ন অথবা মোতায়েন করছে কিংবা তা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। বিশ্বের পাঁচটি পরমাণু অস্ত্রের অধিকারী দেশের মধ্যে চীন হলো একমাত্র দেশ যে তার অস্ত্রসম্ভারের ‘পরিমিত’ হারে বৃদ্ধি করেছে। রিপোর্টে আরও বলা হয়, বাকি পারমাণবিক দেশগুলো ভারত (৯০ থেকে ১০০ যুদ্ধাস্ত্র), পাকিস্তান (১০০ থেকে ১২০ যুদ্ধাস্ত্র) এবং ইসরাইলের (৮০ যুদ্ধাস্ত্র)Ñ যথেষ্ট কম অস্ত্রসম্ভার রয়েছে। ভারত ও পাকিস্তান তাদের অস্ত্রভা-ার বৃদ্ধি অব্যাহত রেখেছে এবং ইসরাইল দূরপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। উত্তর কোরিয়া তাদের ৬ থেকে ৮টি পারমাণবিক যুদ্ধাস্ত্রসজ্জিত অস্ত্রভা-ারের উন্নয়ন সাধন করছে। তবে সিপ্রি বলেছে, ‘কারিগরি অগ্রগতির’ মূল্যায়ন করা কঠিন। সংশ্লিষ্ট রাষ্ট্রগুলোর পরমাণু অস্ত্রভা-ারের নির্ভরযোগ্য তথ্যপ্রাপ্তিতে ব্যাপক হেরফের ঘটে। রিপোর্টে স্বচ্ছতার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রকে শীর্ষস্থান দেয়া হয়েছে। ব্রিটেন ও ফ্রান্স এ ব্যাপারে অনেক নিয়ন্ত্রণপ্রবণ এবং রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক যোগাযোগ কোন কিছুই সরকারীভাবে প্রকাশ করেনা। এশিয়াতে চীন তার অস্ত্রসম্ভারের ব্যাপারে কম তথ্য প্রকাশ করে এবং পারমাণবিক প্রতিষ্ঠা ভারত ও পাকিস্তানের এ ব্যাপারে একমাত্র তথ্য পাওয়া যায় তাদের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার ঘোষণার মধ্যে। পাঁচটি পারমাণবিক শক্তির অধিকারী দেশ এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, ব্রিটেন ও ফ্রান্স এবং সেই সঙ্গে জার্মানি আন্তর্জাতিক অবরোধ প্রত্যাহারের বিনিময়ে পরমাণু অস্ত্র তৈরি থেকে নিবৃত্ত করার জন্য ইরানের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।