১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রাহুলের ঠেলায় ঝাড়ু হাতে আপ ও বিজেপি


রাজধানীতে তুঙ্গে উঠল জঞ্জাল নিয়ে রাজনীতি। শুক্রবার সাফাইকর্মীদের হয়ে পথে নেমেছিলেন রাহুল গান্ধী। শনিবার ময়দানে নেমেছিল বিজেপি এবং আম আদমি পার্টি (আপ)। একেবারে ঝাড়ু হাতে।

ঘটনাচক্রে শুক্রবার রাহুল সরব হওয়ার পরে দিল্লী হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে সাফাইকর্মীদের বেতন মেটাতে ৪৯৩ কোটি টাকা মঞ্জুর করার নির্দেশ দেন উপরাজ্যপাল নজীব জঙ্গ। বিষয়টিকে নিজেদের জয় বলে প্রচার শুরু করেছে কংগ্রেস। তার জবাব দিতেই এদিন ঝাড়ু হাতে জঞ্জাল সাফ করতে নেমে পড়লেন বিজেপি এবং আপ নেতারা। শুক্রবার আপ শিবির থেকে সাংবাদিকদের মেসেজ করেও জানিয়েও দেয়া হয়েছিল কোন্ নেতা কোথায় জঞ্জাল সাফাইয়ে যাবেন।

কিন্তু এতদিন যখন দিল্লীর রাজপথে জঞ্জালে উপচে পড়ছিল, তখন নেতারা কোথায় ছিলেন? আপ নেতা মণীশ সিসৌদিয়ার অভিযোগ, সাফাইকর্মীদের বেতন দেয়ার কথা বিজেপি পরিচালিত দিল্লী পুরসভার। তারা টাকা না দেয়ার কারণেই এই সমস্যা তৈরি হয়েছে। সাফাইয়ের এই প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে থাকতে রাজি নয় বিজেপিও। বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যখন স্বচ্ছ ভারতের ডাক দিয়েছেন। কংগ্রেস ও আপ শিবির সাফাইয়ে নেমে পড়ায় তড়িঘড়ি তাই ঝাড়ু হাতে তুলে নেন দিল্লী বিজেপির সভাপতি সতীশ উপাধ্যায়। তার অভিযোগ, দিল্লী সরকারের ব্যর্থতার কারণেই এই সমস্যা তৈরি হয়েছে।

শুক্রবার রাহুলের অবস্থান-বিক্ষোভের পরই পরিস্থিতি বদলাতে শুরু করায় শনিবার চড়া সুরে প্রচার শুরু করেছে কংগ্রেস। দলের দাবি, আগের কংগ্রেস সরকারের সময় এমন ঘটনা ঘটেনি। এবার রাহুল গান্ধীর হস্তক্ষেপের কারণেই সমস্যার দ্রুত সমাধান হলো। রাহুল অবশ্য কৃতিত্ব নিতে নারাজ। সাফাইকর্মীদের একটি দল তাকে ধন্যবাদ জানাতে গেলে তিনি তাদের বলেন, কার জন্য কাজ হলো, সেটা বড় ব্যাপার নয়। দল সব সময় গরিবের পাশে রয়েছে। ভবিষ্যতে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটলে আমি ফের রাস্তায় নামব।

-ওয়েবসাইট

দঃ কোরিয়ায় মার্সে আরও ৭ জন আক্রান্ত

দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করে আরও ৭ জন মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় রবিবার এ কথা জানায়। দক্ষিণ কোরিয়ায় মার্স ভাইরাসে এ পর্যন্ত ১৪ জন মারা গেছে। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে মোট ১৪৫ জন। খবর এএফপির।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, সিউলের স্যামসাং মেডিক্যাল সেন্টারে নতুন করে তিনজন আক্রান্ত হয়েছে। দেশটির অন্যতম এ বৃহত্তম হাসপাতালে ৭০ জনেরও বেশি লোক মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

এছাড়া দায়েজন নগরীতে একজন এবং হায়েসন নগরীতে অপর একজন মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তবে এ ভাইরাসে নতুন করে কারও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। আক্রান্ত ১০ জনকে চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়ারও খবর জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।